শুক্রবার, ৭ অগাস্ট ২০২০ খ্রীষ্টাব্দ | ২৩ শ্রাবণ ১৪২৭ বঙ্গাব্দ
Sex Cams
সর্বশেষ সংবাদ
অক্টোবর-নভেম্বরেই অক্সফোর্ডের ভ্যাকিসন  » «   রিজেন্ট হাসপাতালের এমডি মিজান গ্রেফতার  » «   নকল মাস্ককাণ্ডে ৩ দিনের রিমান্ডে অপরাজিতার শারমিন  » «   পানিতে দাঁড়িয়েই কয়রাবাসীর ঈদের নামাজ  » «   ২৪ ঘণ্টায় করোনা শনাক্তের রেকর্ড, মৃত্যু ৫০০ ছাড়ালো  » «   ফিনল্যান্ডে ভিন্ন আবহে ঈদ উদযাপন  » «   উপকূলে আমফানের আঘাত  » «   করোনা চিকিৎসায় ইতিবাচক ফলাফল দেখতে পেয়েছে বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা  » «   করোনার টিকা আবিষ্কারের দাবি ইতালির বিজ্ঞানীদের  » «   জেলে করোনা আতঙ্কে প্রিন্সেস বাসমাহ  » «   ঘুষের প্রশ্ন কিভাবে আসে, বললেন ওষুধ প্রশাসনের ডিজি  » «   কিশোরগঞ্জে এবার করোনায় সুস্থ হলেন চিকিৎসক  » «   স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয় অজ্ঞতাবশত ভুল বলিয়াছে: ডা. জাফরুল্লাহ  » «   বিশ্বে করোনায় আক্রান্তের সংখ্যা ৩০ লাখ ছাড়িয়েছে  » «   ফ্রান্সে টানা চতুর্থদিন মৃত্যুর রেকর্ড, ৪ হাজার ছাড়াল প্রাণহানি  » «  

কলকাতায় বাংলাদেশিকে জিম্মি করে মুক্তিপণ আদায়



প্রবাস ডেস্ক:: ভারতের পশ্চিমবঙ্গে এক বাংলাদেশি ব্যবসায়ীকে অপহরণ করে অর্ধকোটি রুপি মুক্তিপণ আদায় করার ঘটনায় গত রোববার কলকাতার এন্টালি থানায় অভিযোগ দায়ের হয়েছে বলেজানা গেছে। দেশটির সিনিয়র এক পুলিশ কর্মকর্তার বরাতে বুধবার ভারতের সরকারি বার্তা সংস্থা পিটিআই এমন খবর দিয়েছে।

একদল লোক বশির মিয়া নামে ওই বাংলাদেশিকে চব্বিশ পরগণা জেলার হাবড়া এলাকায় একটি অপরিচিত স্থানে জিম্মি রেখে ৫০ লাখ রুপি আদায় করেন বলে খবরে বলা হয়েছে। আটককারীরা তার পরিচিতই ছিল বলে এজাহারে উল্লেখ করা হয়েছে।খবরে বলা হয়েছে, স্ত্রীর জন্য কিছু গহনা কিনতে ডলার নিয়ে গত সপ্তাহে কলকাতায় পৌঁছান তিনি। এর পর ব্যবসায়িক দরকারে শনিবার শিয়ালদা এলাকার একটি বিপণিবিতানে কয়েকজন লোকের সঙ্গে দেখা করেন বশির।

সেখানে তারা সবাই মিলে দুপুরের খাবার খেয়েছেন। তারপর সবাই ব্যবসায়িক কাজে হাবড়ায় একজনের সঙ্গে দেখা করতে যেতে ট্রেনে উঠেন।এজাহারে বলা হয়, বশির হাবড়ায় পৌঁছার পর আসামিরা তাকে অপরিচিত জায়গায় নিয়ে তার হাত বেঁধে ফেলে ও চোখ ঢেকে দেয়। তাদের চাপে বশির বাংলাদেশে বাবার কাছে ফোন করলে মুক্তিপণের জন্য তিনি প্রায় ছয় লাখ রুপি যোগার করে দেন।

এরসঙ্গে তার কাছে থাকা ৪৪ লাখ রুপির বিদেশি মুদ্রাও অপহরণকারীরা ছিনিয়ে নিয়ে যায়। পুলিশ কর্মকর্তা বলেন, বশিরকে বাংলাদেশ-ভারত সীমান্ত পার করানোর জন্য তারা দুজন দালালও ঠিক করে। কিন্তু বশির বিএসএফ সদস্যদের কাছে ঘটনা প্রকাশের হুমকি দিলে দুই দালাল তাকে ছেড়ে দেয়।

তিনি বলেন, এঘটনায় আমরা তদন্ত শুরু করেছি। শপিং মলে যেখানে তারা খাওয়া-দাওয়া করেন, তার ফুটেজ যাচাই করা হচ্ছে। উত্তর চব্বিশ পরগনা পুলিশের সঙ্গেও আমাদের যোগাযোগ হয়েছে।

সংবাদটি শেয়ার করুন

Developed by: