মঙ্গলবার, ২০ অক্টোবর ২০২০ খ্রীষ্টাব্দ | ৫ কার্তিক ১৪২৭ বঙ্গাব্দ
Sex Cams
সর্বশেষ সংবাদ
দেশে চীনের ভ্যাকসিন ট্রায়ালের অনুমতি দিয়েছে সরকার  » «   অক্টোবর-নভেম্বরেই অক্সফোর্ডের ভ্যাকিসন  » «   রিজেন্ট হাসপাতালের এমডি মিজান গ্রেফতার  » «   নকল মাস্ককাণ্ডে ৩ দিনের রিমান্ডে অপরাজিতার শারমিন  » «   পানিতে দাঁড়িয়েই কয়রাবাসীর ঈদের নামাজ  » «   ২৪ ঘণ্টায় করোনা শনাক্তের রেকর্ড, মৃত্যু ৫০০ ছাড়ালো  » «   ফিনল্যান্ডে ভিন্ন আবহে ঈদ উদযাপন  » «   উপকূলে আমফানের আঘাত  » «   করোনা চিকিৎসায় ইতিবাচক ফলাফল দেখতে পেয়েছে বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা  » «   করোনার টিকা আবিষ্কারের দাবি ইতালির বিজ্ঞানীদের  » «   জেলে করোনা আতঙ্কে প্রিন্সেস বাসমাহ  » «   ঘুষের প্রশ্ন কিভাবে আসে, বললেন ওষুধ প্রশাসনের ডিজি  » «   কিশোরগঞ্জে এবার করোনায় সুস্থ হলেন চিকিৎসক  » «   স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয় অজ্ঞতাবশত ভুল বলিয়াছে: ডা. জাফরুল্লাহ  » «   বিশ্বে করোনায় আক্রান্তের সংখ্যা ৩০ লাখ ছাড়িয়েছে  » «  

করোনা চিকিৎসায় ইতিবাচক ফলাফল দেখতে পেয়েছে বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা



ডেস্ক নিউজ:: করোনাভাইরাসের কোনও কোনও চিকিৎসায় রোগটির তীব্রতা কমে যাচ্ছে এবং অসুস্থতার সময় কমে আসছে বলে দেখতে পেয়েছে বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা (ডব্লিউএইচও)। মঙ্গলবার সংস্থাটি জানিয়েছে, সম্ভাব্য চার থেকে পাঁচটি চিকিৎসা পদ্ধতি থেকে সবচেয়ে কার্যকরটি খুঁজে বের করার চেষ্টা চলছে। ব্রিটিশ বার্তা সংস্থা রয়টার্স এ খবর জানিয়েছে।
করোনাভাইরাসের নিরাপদ ও কার্যকর টিকা, পরীক্ষা এবং প্রতিরোধের ওষুধ উদ্ভাবনে বৈশ্বিক তৎপরতার নেতৃত্ব দিচ্ছে জেনেভাভিত্তিক জাতিসংঘের সংস্থা ডব্লিউএইচও। শ্বাসতন্ত্রের অসুস্থতা তৈরি করা এই ভাইরাসটিতে বিশ্বজুড়ে প্রায় ৪২ লাখ মানুষ আক্রান্ত হয়েছেন।

মঙ্গলবার এক সংবাদ সম্মেলনে ডব্লিউএইচও মুখপাত্র মার্গারেট হ্যারিস বলেন, ‘আমরা কিছু চিকিৎসা পেয়েছি, সেগুলো প্রাথমিক পর্যায়ে থাকলেও গবেষণায় দেখা যাচ্ছে, এগুলো রোগের তীব্রতা এবং অসুস্থতার মেয়াদ কমিয়ে দিতে পারে। কিন্তু এখন পর্যন্ত এমন কিছু পাওয়া যায়নি যা ভাইরাসটিকে মেরে ফেলতে কিংবা থামিয়ে দিতে পারে।’ তিনি বলেন, ‘আমরা সম্ভাব্য ইতিবাচক তথ্য পাচ্ছি, তবে শতভাগ আত্মবিশ্বাসের সঙ্গে এগুলো থেকে একটি বেছে নিতে আমাদের আরও তথ্য খতিয়ে দেখতে হবে।’
তবে করোনার কোনও ওষুধের নাম বলেননি ডব্লিউএইচও মুখপাত্র মার্গারেট হ্যারিস। তবে ওষুধ নির্মাতা প্রতিষ্ঠান গিলাড সাইন্স বলছে, তাদের রেমডেসিভর ওষুধ করোনা রোগীদের চিকিৎসায় কার্যকর ভূমিকা রাখছে।
করোনার টিকা নিয়ে সতর্ক করে দিয়ে ডব্লিউএইচও কর্মকর্তা বলেন, ‘ভাইরাসটি খুবই কৌশলী। সে কারণে এর বিরুদ্ধে কোনও টিকা উদ্ভাবন বেশ কঠিন।’
বর্তমানে বিশ্বজুড়ে করোনার টিকা উদ্ভাবনে শতাধিক প্রচেষ্টা চলছে। এরমধ্যে বেশ কয়েকটি ক্লিনিক্যাল ট্রায়াল পর্যায়ে রয়েছে। গত এপ্রিলে ডব্লিউএইচও জানিয়েছে, টিকা উদ্ভাবনে অন্তত ১২ মাস সময় লাগবে।
সংবাদটি শেয়ার করুন

Developed by: