মঙ্গলবার, ৯ অগাস্ট ২০২২ খ্রীষ্টাব্দ | ২৫ শ্রাবণ ১৪২৯ বঙ্গাব্দ
সর্বশেষ সংবাদ
সংবাদ ২১ ডটকম সম্পাদক ইজিএনের নতুন সভাপতি, অনুরূপ সম্পাদক  » «   ফিনল্যান্ডে ভাষা শহীদ দিবস পালন  » «   ‘শিশুবক্তা’ রফিকুলের মোবাইলে পর্নো ভিডিও!  » «   বর্ণাঢ্য আয়োজনে ভেরনো’র প্রতিষ্ঠা বার্ষিকী উদযাপন  » «   স্টকহোম বাংলাদেশ দূতাবাসে ‘গণহত্যা দিবস-২০২১’ পালিত  » «   নিকাব ছেড়ে পশ্চিমা পোশাকে ব্রিটেন ফেরার লড়াইয়ে শামীমা(ভিডিও)  » «   হারুন আর রশিদের জীবন বাঁচাতে এগিয়ে আসুন  » «   সংবাদ ২১ ডটকম সম্পাদক তৃতীয়বারের মত ইজিএন সচিব নির্বাচিত  » «   মাহমুদ-উস সামাদ চৌধুরী`র মৃত্যুতে বঙ্গবন্ধু পরিষদ ফিনল্যান্ডের শোক  » «   সংবাদ ২১ ডটকম সম্পাদক আন্তর্জাতিক `এইজে´র কমিটি সদস্য নির্বাচিত  » «   ফিনল্যান্ডে মহান ভাষা শহীদ দিবস ও আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবস পালন  » «   দেশে চীনের ভ্যাকসিন ট্রায়ালের অনুমতি দিয়েছে সরকার  » «   অক্টোবর-নভেম্বরেই অক্সফোর্ডের ভ্যাকিসন  » «   রিজেন্ট হাসপাতালের এমডি মিজান গ্রেফতার  » «   নকল মাস্ককাণ্ডে ৩ দিনের রিমান্ডে অপরাজিতার শারমিন  » «  

আসল ঘটনা এই এপ্রিল ফুলকে নিয়েই…



apআজ ১ লা এপ্রিল। সারা বিশ্বে আজকের দিন কে এপ্রিল ফুল বা এপ্রিলের বোকা দিবস হিসেবে পালন করা হয়। আমাদের মুসলীমদের মাঝে এই দিন পালন করা নিয়ে একটি কথা চালু আছে যে এই দিন আসলে নাসারারা মুসলীমদের বোকা বানানোর স্মৃতি শ্মরণ করে পালন করা হয়। নতুন করে বলতে চাই না আপনারা অনেকেই হয়ত সেই গল্প শুনেছেন যে স্পেনের রানী ইসাবেলা ও তার স্বামী ফার্ডিনান্ড মুসলীমদের এক শর্ত দেয় মসজিদে ঢুকে আশ্রয় নিলে সবাইকে মাফ করে দেয়া হবে। সরল মুসলীমরা মসজিদে ঢুকার পর মসজিদে আগুন জ্বালিয়ে সবাইকে মেরে ফেলা হয়। আর স্পেনিশ খ্রিষ্টিয়ান বাহিনী বোকা মুসলীম বলে উল্লাস করে। সেই দিনটি ছিল ১ লা এপ্রিল।
হুম এমন কথাই আমরা শুনেছি। তবে আসলে কি তাই ? ইতিহাসে আমরা এমন কোন ঘটনার কথা পাই না। কোন মুসলীম শাসক ১ লা এপ্রিল পরাজিত হন নাই। ১৪৯২ সনের ২ জানুয়ারি ইসাবেলা এবং ফার্ডিনান্ড স্পেনের গ্রানাডায় প্রবেশ করে এবং মুসলীম শাসল দ্বাদশ মোহাম্মদের কাছ থেকে শান্তি পূর্ণ ভাবে নগরের চাবি গ্রহণ করে।
স্পেনে মুসলীমরা ইসাবেলার কাছে পরাজিত বা আত্মসমর্পন করেন ১ লা জানুয়ারি ১৫৯২ সালে ১ লা এপ্রিল না।
তাহলে দেখা যাচ্ছে আমরা ১ লা এপ্রিল নিয়ে যেই ইতিহাস জেনেছি তা আসলে অসত্য।
এবার আসুন ১ লা এপ্রিল কেন পালন করা হয় তা জেনে নেই ইউকিপিডিয়া থেকে।
/ইরানে পার্সি ক্যালেন্ডার অনুসারে নববর্ষের ১৩তম দিনে আনন্দ মজা করা হয়। এই দিন গ্রেগরিয়ান ক্যালেন্ডারে ১লা এপ্রিল ও ২রা এপ্রিল সদৃশ্য। ঐতিহাসিকদের মতে, ১৫৬৪ সালে ফ্রান্সে নতুন ক্যালেন্ডার চালু করাকে কেন্দ্র করে এপ্রিল ফুল ডে’র সুচনা হয়। ঐ ক্যালেন্ডারে ১লা এপ্রিলের পরিবর্তে ১লা জানুয়ারীকে নতুন বছরের প্রথম দিন হিসেবে গণনার সিদ্ধান্ত নেয়া হলে কিছু লোক তার বিরোধিতা করে। যারা পুরনো ক্যালেণ্ডার অনুযায়ী ১লা এপ্রিলকেই নববর্ষের ১ম দিন ধরে দিন গণনা করে আসছিল, তাদেরকে প্রতি বছর ১লা এপ্রিলে বোকা উপাধি দেয়া হতো। ফ্রান্সে পয়সন দ্য আভ্রিল(poisson d’avril) পালিত হয় এবং এর সাথে সম্পর্ক আছে মাছের। এপ্রিলের শুরুর দিকে ডিম ফুটে মাছের বাচ্চা বের হয়। এই শিশু মাছগুলোকে সহজে বোকা বানিয়ে ধরা যায়। সেজন্য তারা ১ এপ্রিল পালন করে পয়সন দ্য এভ্রিল অর্থাৎ এপ্রিলের মাছ। সে দিন বাচ্চারা অন্য বাচ্চাদের পিঠে কাগজের মাছ ঝুলিয়ে দেয় তাদের অজান্তে। যখন অন্যরা দেখে তখন বলে ওঠে পয়সন দ্য আভ্রিল বলে চিৎকার করে। কবি চসারের ক্যান্টারবারি টেইলস(১৩৯২) বইয়ের নানস প্রিস্টস টেইল এ এই দিনের কথা খুজে পাওয়া যায়।/
তবে একজন মুসলীম হিসেবে কাউকে মিথ্যা মিথ্যি বোকা বানানোর খেলা কখনোই ভালো নয়। এ থেকে আমাদের যদি কেউ বিরত থাকা কথা বলে আমদের তা মানা উচিত।

সংবাদটি শেয়ার করুন

Developed by: