মঙ্গলবার, ২৭ অক্টোবর ২০২০ খ্রীষ্টাব্দ | ১২ কার্তিক ১৪২৭ বঙ্গাব্দ
সর্বশেষ সংবাদ
দেশে চীনের ভ্যাকসিন ট্রায়ালের অনুমতি দিয়েছে সরকার  » «   অক্টোবর-নভেম্বরেই অক্সফোর্ডের ভ্যাকিসন  » «   রিজেন্ট হাসপাতালের এমডি মিজান গ্রেফতার  » «   নকল মাস্ককাণ্ডে ৩ দিনের রিমান্ডে অপরাজিতার শারমিন  » «   পানিতে দাঁড়িয়েই কয়রাবাসীর ঈদের নামাজ  » «   ২৪ ঘণ্টায় করোনা শনাক্তের রেকর্ড, মৃত্যু ৫০০ ছাড়ালো  » «   ফিনল্যান্ডে ভিন্ন আবহে ঈদ উদযাপন  » «   উপকূলে আমফানের আঘাত  » «   করোনা চিকিৎসায় ইতিবাচক ফলাফল দেখতে পেয়েছে বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা  » «   করোনার টিকা আবিষ্কারের দাবি ইতালির বিজ্ঞানীদের  » «   জেলে করোনা আতঙ্কে প্রিন্সেস বাসমাহ  » «   ঘুষের প্রশ্ন কিভাবে আসে, বললেন ওষুধ প্রশাসনের ডিজি  » «   কিশোরগঞ্জে এবার করোনায় সুস্থ হলেন চিকিৎসক  » «   স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয় অজ্ঞতাবশত ভুল বলিয়াছে: ডা. জাফরুল্লাহ  » «   বিশ্বে করোনায় আক্রান্তের সংখ্যা ৩০ লাখ ছাড়িয়েছে  » «  

আব্বাসসহ ৫ জনের বিরুদ্ধে গ্রেফতারি পরোয়ানা



Abbas_sm_381900889নিউজ ডেস্ক :: ঢাকা সাংবাদিক ইউনিয়ন সমবায় সমিতির প্লট বরাদ্দে দুর্নীতির অভিযোগে দায়ের করা মামলায় বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য ও সাবেক গৃহায়ণ ও গণপূর্তমন্ত্রী মির্জা আব্বাসসহ ৫ জনের বিরুদ্ধে গ্রেফতারি পরোয়ানা জারি করেছেন আদালত।
|
মঙ্গলবার (২৪ ফেব্রুয়ারি) আসামিদের অনুপস্থিতিতে ঢাকার ভারপ্রাপ্ত সিনিয়র স্পেশাল জজ ইমরুল কায়েস অভিযোগপত্র আমলে নিয়ে এ পরোয়ানা জারি করেন।
একই সঙ্গে আগামী ২৫ মার্চ পরোয়ানা সংক্রান্ত প্রতিবেদন দাখিলের জন্য দিন ধার্য করা হয়েছে।

এর আগে গত ১৬ ফেব্রুয়ারি আসামিদের বিরুদ্ধে অভিযোগপত্র দাখিল করে দুর্নীতি দমন কমিশন (দুদক)।

মির্জা আব্বাস ছাড়াও মামলার অন্য চার আসামি হলেন- সাবেক প্রতিমন্ত্রী আলমগীর কবির, গৃহায়ন ও গণপূর্ত মন্ত্রণালয়ের যুগ্ম-সচিব (বর্তমানে অবসরপ্রাপ্ত) বিজন কান্তি সরকার, জাতীয় গৃহায়ন কর্তৃপক্ষের কোষাধ্যক্ষ মো. মনছুর আলম ও হিসাব সহকারী মতিয়ার রহমান।

প্রাথমিকভাবে অভিযোগ প্রমাণিত না হওয়ায় ভূমি মন্ত্রণালয়ের সাবেক উপ-পরিচালক মো. আজহারুল হককে অব্যাহতি দেওয়া হয়েছে।

মামলার অভিযোগপত্রে বলা হয়, প্রতিমন্ত্রী থাকাকালে মির্জা আব্বাস ২০০৬ সালে জাতীয় গৃহায়ন কর্তৃপক্ষের কর্মকর্তাদের মাধ্যমে ক্ষমতার অপব্যবহার ও দুর্নীতির মাধ্যমে ঢাকা সাংবাদিক ইউনিয়ন সমবায় সমিতি লিমিটেডকে বাজার মূল্যের চেয়ে কম মূল্যে প্লট বরাদ্দ দেন।

একই সঙ্গে ১৮ কোটি ৯১ লাখ ৩০ হাজার ৯০০ টাকা মূল্যের সাত একর সম্পত্তি মাত্র ৩ কোটি ৩৮ লাখ ৮০ হাজার টাকায় বরাদ্দ দিয়ে সরকারের ১৫ কোটি ৫২ লাখ ৫০ হাজার ৯০০ টাকা ক্ষতি করেছেন আসামিরা।

এমন অভিযোগে ২০১৪ সালের ৬ মার্চ রাজধানীর শাহবাগ থানায় একটি মামলা করে দুর্নীতি দমন কমিশন।

সংবাদটি শেয়ার করুন

Developed by: