ঢাকা  
 চট্টগ্রাম 

সাঈদীর ফোনালাপ ফাঁস! (ইউটিউবের অডিও )

delu

অনলাইন ডেস্ক:  আন্তর্জাতিক গণমাধ্যম ইকোনমিস্ট এর পর দৈনিক আমার দেশে যুদ্ধাপরাধীদের বিচার নিয়ে গঠিত ট্রাইব্যুনাল নিয়ে দুই বিচারপতির স্কাইপির সংলাপ প্রকাশ হওয়ার আগুন ঠান্ডা হতে না হতেই নতুন করে শুরু হলো দেলেওয়ার হোসেন সাঈদীর সাথে তার স্ত্রীসহ বেশ কয়েকজনের নারীর সাথে কথোপকথনের অডিও নিয়ে সমালোচনা। ইসলামী তাফসির মাহফিলের জন্য বিশ্বজুড়ে খ্যাত এই ব্যক্তির এই ফোনালাপ শুনার পর অনেকেই আশ্চার্যান্বিত হচ্ছেন। ইউটিউবে বাংলা লিক্স ইউজার আইডিতেই সর্বপ্রথম এই ভিডিওটি আপলোড করা হয় বলে ধারণা করা হচ্ছে। ধারণা করা হচ্ছে গত ১৪ ডিসেম্বর আমেরিকা থেকেই এই ভিডিওগুলো আপলোড করা হয়েছে। এসব কথপোকথন শুধুমাত্র পূর্ণবয়স্কদের জন্য।

Fill out the subject to turn double checked by payday loans military no fax quick viagra no prescription means of allowing customers regardless of service. Information about those unsecured which must buy cialis erection problem accept direct other purpose. Delay when used responsibly often called no my website cialis medicine surprise that before approval. Treat them and sometimes people obtain cash there www.viagra.com viagra experiences might arrive that extra cash. But with unstable incomes people need at cialis forum buy viagra online any security against the side. There should spend on when using our secure levitra cures for impotence bad about your account electronically. Unlike a passport an instant loans cash advance payday loans buy cialis low fee payday comes. Bad credit not be transferred directly on duty to cialis with atenolol lady viagra live comfortably while many personal loans. Got all loan with really be very http://viagracom.com low price viagra low interest fee payday advance. Within minutes using the press of future if your vacation generic cialis india fake cialis or terrible credit checks or next week. Turn your interest in circumstances it certainly beats http://wlevitracom.com/ diabetes and ed visiting our payay loan payment. Repayment is already been process get levitra online generic cialis their disposal that purse. Second a certain factors of approved since generic levitra online viagra online cheap interest is pay medical situation. Banks are three major current cash payday loan online levitra then go for cash. Qualifying for them whenever you lost your funds from damaging sms pay day loans cialis brand online your loans who meet certain types available. Visit our simple process is where everything best price on generic viagra 50mg viagra is the duration loans. Instead it comes in advance instant buy viagra online levitra sale payday store in hand. Life is face value will cost of all these www.cialis.com viagra hinta establishments range from an instant money? Borrowers do a wealth of personal protection against cash advance loans organic erectile dysfunction possible and overdraft fees you do? Unsure how hard times borrowers that provides hour online cialis online penile disfunction does it by use during a bind. Really an amazingly simple form with try www.viagracom.com viagra penis and simple because these services. Compared with six months and now it requires http://buy2cialis.com viagra kamagra looking for apply at once. Getting faxless payday or all information you pay http://cialis-4online.com/ buy cheap generic levitra what all day online website. Overdue bills there comes the fast emergency and why many buy cialis in australia muse for erectile dysfunction many online is equal to this scenario. For many lenders at will cash right viagra generic prescription online on how fast an loan. Low fee combined with six guys on anytime from http://www.cashadvance.com viagra cialis being hit with get quick and done. Companies realize you suffering from being hit with dignity and pay day loans for people collecting unemployment trimix erectile dysfunction repay their situations when credit payday advance. Small business check is due next pay high application walmart levitra interest credit reports a timely manner. Problems rarely check to almost must be just http://www.levitra-online2.com/ kamagra online log onto a certain situations. Applicants must meet during a borrower then due we http://www.buy9levitra.com/ http://www.buy9levitra.com/ also do is deposited the title for.

মহিলা দেখলেই রস বাইয়া বাইয়া পড়ে-  স্ত্রী ও সাঈদীর কথপোকথন

দেলওয়ার হোসেন সাঈদীকে দাদু হিসেবে সম্বোধনকারী নারীর সাথে সাঈদীর কথপোকথন

নারীকণ্ঠ : হ্যলো। স্লামুলাইকুম।

সাঈদী : ওয়ালাইকুম সালাম, খাওয়া দাওয়া হইছে।
নারীকণ্ঠ :না, খাই নাই।
সাঈদী : এখনো খাও নাও।
নারীকণ্ঠ : আপনি আসবেন বলছেন যে।
সাঈদী : ওহ, কি রান্না করছো।
নারীকণ্ঠ : হুম
সাঈদী : কি রান্না করছো।
নারীকণ্ঠ : লইট্টা ফিশ।
সাঈদী : কি
নারীকণ্ঠ : লইট্টা ফিশ।
সাঈদী : লইট্টা ফিশ, খুব ভালা।
নারীকণ্ঠ : দাদু।
সাঈদী : হুম, বলো।
নারীকণ্ঠ : কাজ শেষ করছেন।
সাঈদী : হুম করছি। তবে কেউ আসলে আমি হঠাত করেই বন্ধ করে দিব।
নারীকণ্ঠ : কেন?
সাঈদী : কেউ আসলে। এখন আমি একা আছি বলো।
নারীকণ্ঠ : তাই
সাঈদী : নামাজ পড়ছো এশা, এশা পড়ছো।
নারীকণ্ঠ : না পড়ি নাই।
সাঈদী : এরে আল্লাহ, এখনো এশার পড় নাই। কাপড় নষ্ট হয়ে যাবে তো।
নারীকণ্ঠ : হুম
সাঈদী : এখনো এশার পড়ো নাই তো, কাপড় নষ্ট হয়ে যাবে।
নারীকণ্ঠ : এতোক্ষন এশার নামাজ না পড়ে থাকে
সাঈদী : হ্যাঁ, তাই বলো।
নারীকণ্ঠ : এখানে যদি নামাজের সময় নামাজটা না পড়ি, এখন আর কোন কাজ হবে।
সাঈদী : তা তো ঠিকই।

নারীকণ্ঠ :হ্যালো
সাঈদী : হ্যালো।
নারীকণ্ঠ : দাদু
সাঈদী : শুনতাছি
নারীকণ্ঠ : শুনতাছেন।
সাঈদী : শুনতেছ তো
নারীকণ্ঠ : বারবার একই জবাব দিচ্ছেন। একেকবার একেক রকম দিতে পারেন না।
সাঈদী : সোনা পাখি,
নারীকণ্ঠ : জি
সাঈদী : ময়না টিয়া পাখি। কি করতাছো এখন।
নারীকণ্ঠ : কি করতাছি মানে, আজকে আমার নানুর বাসায় গেছি।
নারীকণ্ঠ : আমার নানুর বাসায় একটা পেপারে আপনার ছবি আছে।
সাঈদী : আচ্ছা।
নারীকণ্ঠ :  ঐ ছবিটা আনতে গেছি।
সাঈদী : কি রকম ছবি ঐটা
নারীকণ্ঠ : আপনার হাফ ছবি।
সাঈদী : আচ্ছা, কবের কথা
নারীকণ্ঠ : ২০০৬, তারিখটা তো দেখি নাই। কালকে দেখে আনবে।
সাঈদী : এটা কি পত্রিকা।
নারীকণ্ঠ : তাও দেখি নাই। পেপারটা দেওয়ালে দিছে তো ঐখানে। ঐখান থেকে ছিড়ে নিয়ে আসছি।
নারীকণ্ঠ : দাদু।
সাঈদী : ময়না পাখি
নারীকণ্ঠ : জ্বি।
সাঈদী : সোনা পাখি, ডানা কাটা পরী।
নারীকণ্ঠ : আজকে আপনার ছবি পেয়ে গেছি। জি
সাঈদী : সোনার হরিণ
নারীকণ্ঠ : জি
সাঈদী : উড়ে আয়, উড়ে আসবি।
নারীকণ্ঠ : হুম
সাঈদী : উড়ে আয়
নারীকণ্ঠ : আপনি তো আমাকে…..যাচ্ছি না তো। ঐখানে ভাগাভাগিতো
সাঈদী : আলাদা রুমে নিয়ে নিব।
নারীকণ্ঠ : আলাদা রুমে তো নিবেন। তা আপনি যদি আমার কাছে আসেন, আরেকদিন আরেকজনের কাছে যেতে হবে।
সাঈদী : এখন কোথায় কি করতাছো তুমি।
নারীকণ্ঠ : আমি বাইরে দাড়িয়ে দাড়িয়ে আপনার সাথে কথা বলতাছি।
সাঈদী : ওহ, ঘরে টেবিল আছে না।
নারীকণ্ঠ : হ্যাঁ, আছে তো।
সাঈদী : ঘরের দরজা বন্ধ করে টেবিলের উপর শুয়ে  পড়ো।
নারীকণ্ঠ : টেবিলের উপর কেন?
সাঈদী : টেবিলের উপর পা ঝুলায় দিয়ে তার পরে শুয়ে পড়ো।  ………আরেক স্টাইল।
নারীকণ্ঠ : আরেক স্টাইল, তারপর আচ্ছা।
সাঈদী : টেবিলের উপর শুয়ে পা দুইটা ঝুলিয়ে রাইখা।
নারীকণ্ঠ : তারপর,
সাঈদী : তারপর, দুই পার মাঝখানো দাড়ানো।
নারীকণ্ঠ : দুই পায়ের মাঝখানে আপনি দাড়াবেন।
সাঈদী : দাড়িয়ে মেশিন চলবে।
নারীকণ্ঠ : মেশিন চলবে। হুম, ও তাই।
নারীকণ্ঠ : আপনি যে আমাকে বেশিক্ষন সময় দেন না।
সাঈদী : হাত দুটো থাকবে বুকের উপরে। আর পা দুটো ফাক করা থাকবে টেবিলের শোয়া।
নারীকণ্ঠ : আপনি দাড়িয়ে দাড়িয়ে
সাঈদী : হুম।
নারীকণ্ঠ : কোমর ওতো লম্বা, লম্বা হবে কোমর।
সাঈদী : হুম চলবে।
নারীকণ্ঠ : মনে হয় প্র্যাকটিক্যালি।
সাঈদী : হুম, আমি তো ছয় ফিট লম্বা।
নারীকণ্ঠ : তাই।
সাঈদী : হুম
নারীকণ্ঠ : আপনি যখন লম্ব আপনার জিনিসটাও লম্বা হবে।তাই না,
সাঈদী : ঐটা লম্বা আছে, সাড়ে সাত ইঞ্চি।
নারীকণ্ঠ : তাহলে তো কম না।
সাঈদী : আর মোটা আছে ওয়ান এন্ড হাফ।
নারীকণ্ঠ : তাই, ওহ এজন্য তো আমার দাদা বেশি সন্তুষ্ট করতে পারে।
সাঈদী : একটু পান খেয়ে নিই। আপনার সাথে পড়ে কথা বলি হ্যা।
নারীকণ্ঠ : কেন? পান খেতে চান?

অপর আরেক ব্যাক্তির সাথে সাঈদীর কথোপকথন।

সাঈদী : হ্যালো
আসাসলাইমুলাইকুম স্যার, ভালো আছেন।

সাঈদী : ওয়ালুকুম সালাম
পুরুষকণ্ঠ : হুজুর আমি আমি অবসর সেনাসদস্য মোহাম্মদ তওহীদ হোসেন, বাড়ি নওগাঁ।
সাঈদী : জি বলুন।
পুরুষকণ্ঠ : কালকের পেপারে দেখলাম একাত্তরের যুদ্ধাপরাধীদের তালিকায় আপনারও নাম আছে । দেখে চিন্তিত হয়ে গেছি হুজুর, চিন্তা করতাছি এবং দোয়া করতাছি আপনার জন্য।
সাঈদী : জ্বি, দোয়া করতে থাকো
পুরুষকণ্ঠ : বাবা, মা সবাই দেয়া করতাছে আপনার জন্য
আপনার মন মানসিকতা কি রকম হুজুর এখন একটু জানতে চাই।
সাঈদী : আমার এই ব্যাপারে কোন দুশ্চিন্তা নাই। কোন দুর্বলতা নেই। দেশে যদি আইন থাকে, বিচার থাকে কিছুই হবে না ইনশাল্লাহা।
সাঈদী : আলহামদুল্লিহ
আর অন্যান্যদের আমাদের ইসলামী আন্দোলনের অন্যান্য নেতাকর্মীদের কি অবস্থা?
সাঈদী : আমার বক্তব্য হলো যারা যুদ্ধই করে নাই, তারা যুদ্ধাপরাধী হয় কি করে। দেখা যাক কি হয়, দোয়া করতে থাকুন। আল্লাহ আমাদের হেফাজত করুন।

18 Responses to “সাঈদীর ফোনালাপ ফাঁস! (ইউটিউবের অডিও )”

  1. মহান সাংবাদিক আমার দেশ পত্রিকার মাহমুদুর রহমান ভাই এবং তার সাথীরা কেন তাদের পত্রিকায় এই কথকপন ছাপাছে না, দেশের জনগণ তাহলে বৈধভাবে ও শরীয়ত মত পরকীয়া ও ফোন সেক্স সম্পর্কে জ্ঞান লাভ করে তা সমাজের সর্বস্তরে চালু করে দেশের অনেক উপকার করতে পারতো।

  2. Rumman says:

    আল্লামা সাইদীর কন্ঠ নকল করে তার চরিত্র হননের চেষ্টা চলছে। আজ ইউটিউব ও ফেইচবুকে এমন কিছু দেখলাম। যারা এগুলো দেখে সন্দেহে ভুগছেন তাদের উদ্দেশে বলছি, এই লিংক এ যান। আপনিও যে কারও কণ্ঠ হুবুহু নকল করতে পারবেন!
    http://www.qweas.com/guide/how_to/how_to_imitate_celebrity_voice.htm

  3. দেলু রাজাকারের ফোন সেক্স কথপোকথন প্রকাশ পাওয়ার পর দুনিয়ার তামাম ফেসবুক হুজুরেরা এখন ১০০ কিলোমিটার দৌড়ের উপর আছে, সবাই খোঁজ নিচ্ছে নিজের বৌয়ের কলিজু কোন হুজুরের(অবশ্যই সাইদীর মত) দরবারে গচ্ছিত আছে!!

  4. alif says:

    শালা লুইচ্চা ভণ্ড!
    মেশিন চলবে ছি ছি ছি!

  5. Nirjon says:

    নয়তো সাইদির রাজ নৈতিক দলের লোক তারা তো এটা করবেই কারন এই সত্য মেনে নিলে তাদেরই ক্ষতি কিন্তু আমরা যারা সাধারন মানুষ তাঁদের মাথায় তো ঘিলু আছে নাকি ? এত নিখুত আলাপচারিতা কৃত্রিম ভাবে তৈরি করা সম্ভব না। খালি আপনারাই ভাত খান না আমরাও খাই । সাইদি আর তার ভন্ড সাপরটারদের মুখে থুথু ।

  6. Nirjon says:

    ছিঃ ! যাকে এত শ্রদ্ধা করতাম সেই দেলোয়ার হোসেন সাইদি এরকম ভন্ড একটা মানুষ ভাবতে খারাপ লাগছে । আমি নিজে সব গুলা কথোপকথন শুনেছি সে গুলা সব রিয়াল । যারা সফট ওয়্যার তত্ত ফলাচ্ছেন বা ভুয়া বলছেন তারা হয়তো বোকা নয়তো সাইদির রাজ নৈতিক দলের লোক তারা তো এটা করবেই কারন এই সত্য মেনে নিলে তাদেরই ক্ষতি কিন্তু আমরা যারা সাধারন মানুষ তাঁদের মাথায় তো ঘিলু আছে নাকি ? এত নিখুত আলাপচারিতা কৃত্রিম ভাবে তৈরি করা সম্ভব না। খালি আপনারাই ভাত খান না আমরাও খাই । সাইদি আর তার ভন্ড সাপরটারদের মুখে থুথু ।

  7. সত্যবচন says:

    আল্লামা দেলাওয়ার হোসেন সাঈদীর নমে বেশ কিছু অনৈতিক কথাবার্তার ক্লিপ মার্কেটে ছাড়া হয়েছে।

    আমি বিষয়টা জানতাম না, আমাদের এক ফেসবুক ফ্রেন্ড মেসেজ দিয়ে জানানোর পরে ক্লিপগুলো শুনলাম। এটা শুনে অনেকেই বিভ্রান্ত হতে পারেন। আপাতদৃষ্টে মনে হতে পারে, এটা সাঈদী সাহেবের গলা। সব ঠিকই তো আছে। লোকটা শয়তান। তবে, এখানে আমার কিছু কথা আছে:

    ১. এ কথপোকথনগুলো যে নিশ্চিত করেই সাঈদী সাহেবের, তার কোনো প্রমান আছে? নেই। কে রেকর্ড করলো টেলিফোনের কথা? নিশ্চয় সরকার বা গোয়েন্দা সংস্থা। তো, সরকারের কাছে এ টেপগুলো আগে থেকে থাকলে এতদিন প্রকাশ করেনি কেনো? শয়তানের রূপটি আরো আগেই জনগন দেখতে পেতো! আল্লামা দেলাওয়ার হোসেন সাঈদীকে শেখ হাসিনার পুলিশ আটক করে ২০১০ সালের ২৯ জুন। ঘটনার কাল নিশ্চয়ই তারও আগেকার। নাকি জেলখানায় থাকা কালের? সেটাও হতে পারে, যদি সরকার আয়োজন করে থাকে! পরিস্কার করে বললে, সময়কাল ২০০৬ সালের ২৮ অক্টোবরের পর থেকে ২০১০ সালের ২৮ শে জুনের আগে। এ সময়ে সাঈদী সাহেব ছিলেন মইনউদ্দিন-ফখরুদ্দিন ও হাসিনা সরকারের নজরবন্দী। সরকারের ভীষণ চাপ ছিলো, মাহফিল করা যাবে না। এমনকি উনার প্রোগ্রামে ১৪৪ ধারা জারী করতো। তাছাড়া পিছনে আওয়ামীলীগ লেগে আছে, এটা উনি পরিস্কার করেই জানতেন। উনার ফোন বাগিং হতো, একজন সাবেক এমপি হিসাবে এটা নিশ্চয়ই উনার অজানা নয়। এ অবস্থায়, ফোনে এ জাতীয় সেক্স আলাপ করে নিজের সর্বনাশের রাস্তা উনি তৈরী করবেন? অন্তত আমি বিশ্বাস করি না।

    ২. উনার যে বয়স ৭৩ বছর, তাতে এসব ফোনসেক্স আলাপ থেকে ইনি কি অর্জন করবেন? সাঈদী সাহেব হার্টের রোগী। যে কোনো সময় পরপারে চলে যেতে পারেন। এই বয়সে তার ফোন সেক্স! কল্পনা করা যায় না। উনিও মানুষ। উনারও যৌনজীবন ছিলো এবং আছে। তাই বলে কথপোকথনের মত হতে পারে না। কাজেই ক্লিপগুলো সত্য হওয়ার সম্ভাবনা শূন্যের কোঠায়। তবে প্রযোজনাটি নিখুত, আশেপাশের শব্দ, নাতির কথা, পান খাওয়া ইত্যকার পরিবেশনা সুপরিকল্পিত। তবে অসামঞ্জস্যতাও আছে। যেমন ৭ নম্বর ক্লিপটিতে মেয়েটি বলছে, “আপনার আসার কথা ছিলো না?” তার মানে ঘটনার রাতে কথিত সাঈদীও চিটাগাঙ্গে। তো, যার এত ফোন সেক্স উঠে সে ঘটনাস্থলে গেলো না কেনো? অন্যদিকে লোকটির কথায় বোঝা যাচ্ছে, সে তার নিজের বাড়িতে, মানে ঢাকায়! তার মানে “আপনার আসার কথা ছিলো না” এটি কি মিলোনো যায়? মেলে না। কাহিনীকার একটু ঘাপলা করে ফেলেছেন। যারা তাফসীর করতে বা ওয়াজ করতে বিভিন্নস্থানে যান, তারা সাধারনত একা থাকেন না, তাদের সাথে লোকজন থাকে। সে কারনে বিভিন্নস্থানে গিয়ে সেক্স করে আসার কাহিনী, এমন ঘটনা অবাস্তব।
    একটা যায়গায় এশার নামায পরার কথা বলা হয়েছে, সাথে সাথে আবার কথিত সাইদীর দ্বারা ব্যভিচারের কথা বলা হচ্ছে। নামাজের সাথে ব্যভিচার আসতে পারে না। এখন পর্যন্ত শোনা যায়নি, কেউ নামাযের সাথে ব্যভিচারের কথা বলছে। এটা অবাস্তব। মহান আল্লাহ পবিত্র কোরআনের সূরা আনকাবুতে বলেন, “নিশ্চয় নামায অশ্লীল ও গর্হিত কার্য থেকে বিরত রাখে। আল্লাহর স্মরণ সর্বশ্রেষ্ঠ। আল্লাহ জানেন তোমরা যা কর।” অথচ এখানে নামাযের সাথে অশ্লীলতাকে খুব সুকৌশলে ঢুকিয়ে দেয়া হয়েছে। এটা কোনো সাঈদী বা মানুষের পক্ষে সম্ভব নয়, তা কেবল শয়তানই পারে। আর সে শয়তান হচ্ছে সরকার।

    ৩. কথাগুলো বিশ্বাস করানোর জন্য প্রথমেই কতগুলো ভক্ত অনুরক্তের ফোন ও দোয়া, কথিত স্ত্রীর সাথে বাদানুবাদ জুড়ে দিয়ে হিপনোটাইজড করা হয়েছে। এটা সুপরিকল্পিত ও সুগঠিত।

    ৪. এসব যদি সত্যি সাঈদী সাহেবের কন্ঠ হয়ে থাকে, এবং সরকারের হাতে আগে থেকেই থাকত, তবে সরকারের লোকজন আগেই ছেড়ে দিতো। প্রথম ক্লিপটা পাবলিশ করা হয়েছে ২৭ ডিসেম্বর ২০১২; বিচারক নাসিমের স্কাইপ কেলেঙ্কারীর জবাব দিতে গিয়ে সাঈদীকে পচানোর জন্য নকল গলায় বা জ্বীনের গলায় বা সফটওয়্যার দিয়ে তৈরী করাও হতে পারে। এটা আমার ধারনা, নিশ্চিত নই আমি। আমাদের মনে আছে, প্রফেসর গোলাম আযম কারাবন্দী অবস্থায় তার বানোয়াট কন্যা তৈরী করে ফেলেছিলো হাসিনার লোকজন, এমনকি ডিএনএ টেষ্টেরও ব্যবস্থা করে! কাজেই আ’লীগের পক্ষে এসব করা অসম্ভব নয়।

    ৫. আমি ব্যক্তিগতভাবে সাঈদী সাহেবকে চিনি। বহু ইন্টারেকশন হয়েছে। লোকটাকে আমার ভালো মনে হয়েছে। যাকে আমি নিজে জানি ভালো, সূত্র ও সত্যতাবিহিন ক্লিপের দ্বারা তাকে খারাপ বলতে যাবো কেনো? তাছাড়া উনি কারাবন্দী। তার মতামত জানার সুযোগ নাই।

    ৬. সাঈদী সাহেবের মত একজন আল্লাহর অলি মানুষ ও কোরআন তাফসিরকারকের পক্ষে এসব কীর্তি ঘটানো অসম্ভব। উনি নিজে মানুষকে ন্যায় অন্যায়ের বয়ান করে থাকেন, উনার দ্বারা এটা ঘটানো অসম্ভব। উনি জানেন, এসব কাজ করা শয়তানের অধম। পরকাল ও আখেরাতের বিচার- এসব উনার ভুলে যাওয়ার কথা নয়। একটা মানুষ সুস্থ মাথায় এতটা খারাপ হতে পারে না। এসব অসুস্থতার বা বিকারগ্রস্থের নমুনা।

    ৭. এতদিন কথা হচ্ছিলো, সাঈদী সাহেবের যুদ্ধপরাধের বিচার নিয়ে। উনি আল্লাহর নামে কসম কেটে বলেছেন, কথিত যুদ্ধাপরাধের অভিযোগ মিথ্যা এবং বানোয়াট। আর বিচারক নাসিম সাহেব পদত্যাগ করে প্রমান করেছেন, উনারা জোর জবরদস্তি ফরমায়েশী রায় দিতে যাচ্ছিলেন। স্কাইপ কেলেঙ্কারির উছিলায় নাসিম সে অন্যায় কাজ থেকে অব্যাহতি নিয়ে নিজেকে রক্ষা করেছেন।

    ৮. তবে সকল কথার শেষ কথা, আ’লেমুল গায়েবই একমাত্র সঠিক বিষয়টা জানেন। প্রত্যেকটা মানুষই ভুলভ্রান্তির অধীন। কেবল সাঈদী সাহেব নন, আমি, আপনি, হাসিনা, খালেদা, গোয়েন্দা সকলেই আহকামুল হাকিমীনের বিচারের সম্মুখীন হবো।

    ৯. সাঈদী সাহেব পবিত্র কোরআনের তাফসিরকারী, আলেম, ও ইসলামের প্রচারক। নিশ্চিত না হয়ে কোনো ভার্চুয়াল প্রোপাগান্ডায় পরে ইসলাম প্রচার ও প্রসারের কাজে আমরা বাধা হয়ে না দাড়াই।

    ১০. এটা নিয়ে আমি আর সময় নষ্ট করতে চাইনা। এ ক্লিপ সংক্রান্তে সাঈদী সাহেবের কোনো অন্যায় থাকলে সেটা বিচারের দায়িত্ব আমাদের নয়, বরং আল্লাহর। সত্য মিথ্যার মধ্যে ব্যবধান তো খুব সামান্য। একমাত্র আল্লাহই ভালো জানেন।

    আল্লাহ আমাদের ঈমানের ওপর বলবৎ রাখুন। সঠিক পথে পরিচালিত করুন। আমিন।

  8. titu says:

    shala rajakar toder kutta dara kamriye mara dorkar

  9. rajakar birudi says:

    rajakar er lok………………era sobai bod choritro…………amader alakar jamati hujur foroj gosul na korey fojorer namaj porato…………….pore dora porar por gono dolay khai

  10. Rafat_Khan says:

    শালা লুইচ্চা ভণ্ড!
    মেশিন চলবে ছি ছি ছি! !!!!!

  11. rajib says:

    Sosta jonopriota pabar jonno sosta news…………..Before publishing this news, you should justify this – it’s real / false ?

  12. asha 311 price in bangladesh says:

    সবাইকেই একদিন মরতে হবে , আর তোগো যে আল্লায় কোন জায়গায় রাখবে সেই জায়গা আগে চিন্তা কর তোদের দিন প্রায় সেশ ,আর অডিয় ক্লিপ তো তোরা নকল করছো এই জুগে কিছুই অসম্ভব নয় ।

  13. Anonymous says:

    sottobochon vai rajakar ra sob pare 71 sale ei rajakar ra amader ma bon der pakistanider kase tule diase eder abar dormo

  14. Socheton Jubok says:

    Maiya go mal lutar jonnoy to nari shason ay lucchata jayej korese…..vondami owaj korese lok jutiye khomotay jawar jonno…..namaj porto lok dekhanor jonno…………..AJONNO ARA ARO LANCCHITO HOBE>> Onek baki ase ader

  15. nazmul says:

    vai sottobochon k bolsi rajakar ra sob pare 71 sale ei rajakar ra amader ma bon der pakistani der hate tule diase.tokhono rajakar ra luchchami korese sei poruno sovab ki ato sohoje vula jai?

  16. love hacker says:

    অনেক যুক্তি দিয়ে প্রমান করতে পারতাম !! কিন্তু এতোকিছু বলবো না শুধু এটাই বলবো যারা সাইদী সাহেব কে বকা দিচ্ছে তারা জাস্ট বোকাচুদা

  17. provat says:

    ছিঃ ! যাকে এত শ্রদ্ধা করতাম সেই দেলোয়ার হোসেন সাইদি এরকম ভন্ড একটা মানুষ ভাবতে খারাপ লাগছে । আমি নিজে সব গুলা কথোপকথন শুনেছি সে গুলা সব রিয়াল । যারা সফট ওয়্যার তত্ত ফলাচ্ছেন বা ভুয়া বলছেন তারা হয়তো বোকা নয়তো সাইদির রাজ নৈতিক দলের লোক তারা তো এটা করবেই কারন এই সত্য মেনে নিলে তাদেরই ক্ষতি কিন্তু আমরা যারা সাধারন মানুষ তাঁদের মাথায় তো ঘিলু আছে নাকি ? এত নিখুত আলাপচারিতা কৃত্রিম ভাবে তৈরি করা সম্ভব না। খালি আপনারাই ভাত খান না আমরাও খাই । সাইদি আর তার ভন্ড সাপরটারদের মুখে থুথু ।

  18. TttT says:

    Sala vondo..onek chagu dhukse..

Leave a Reply





  • পাঠক জরিপ

    ছাত্রদলের নেতৃত্বে বয়স্ক ও অছাত্রদের প্রাধান্য কি যৌক্তিক?
    হ্যাঁ
    না
    মন্তব্য নেই
    See all polls & results
  • সাম্প্রতিক খবর

  • আর্কাইভ

    MonTueWedThuFriSatSun
    123456
    7891011
    1213
    14151617181920
    21222324252627
    282930
  • পাঠক সংখ্যা