মঙ্গলবার, ১১ ডিসেম্বর ২০১৮ খ্রীষ্টাব্দ | ২৭ অগ্রহায়ণ ১৪২৫ বঙ্গাব্দ
সর্বশেষ সংবাদ
ইসি প্রশ্নবিদ্ধ ভোট করতে চায় না: সিইসি  » «   বিয়ানীবাজারে ‘পুলিশ প্রহরায়’ নাহিদের প্রচারণা!  » «   হবিগঞ্জে ধানের শীষ পেলেন রেজা কিবরিয়া  » «   কাতারে কোরআন প্রতিযোগিতায় প্রথম সিলেটের সাইয়্যেদ  » «   প্রিয়ডটকম-বিএনপিনিউজ২৪-সিএনএনবিডি২৪ সহ ৫৮ নিউজ পোর্টাল বন্ধের নির্দেশ  » «   আজ থেকে শুরু জাতীয় ভ্যাট দিবস ও ভ্যাট সপ্তাহ  » «   নিজেকে ট্রাম্পকন্যা দাবি এক পাকিস্তানি তরুণীর!  » «   প্রতীক বরাদ্দ আজ, শঙ্কা নিয়ে শুরু হচ্ছে ভোটযুদ্ধ  » «   আজ খালেদা জিয়ার ভাগ্য নির্ধারণ  » «   নৌকা প্রতীকে লড়বেন জাতীয় পার্টির যে ২৯ প্রার্থী  » «   জাপা পেলো ৩০ আসন, উন্মুক্ত ১৩২  » «   মেয়র পদে থেকেই সংসদ নির্বাচন করা যাবে: হাইকোর্ট  » «   সমাজের রন্ধ্রে রন্ধ্রে দুর্নীতি প্রবেশ করছে: প্রধান বিচারপতি  » «   প্রার্থিতা ফিরে পেতে হাইকোর্টে হিরো আলম  » «   যেসব আসনে ধানের শীষের প্রার্থী পরিবর্তন  » «  

৯ জেএসসি পরীক্ষার্থীর ‘আত্মহত্যা’



শিক্ষাঙ্গন ডেস্ক ::জুনিয়র স্কুল সার্টিফিকেট পরীক্ষায় (জেএসসি) অকৃতকার্য ও আশানুরূপ ফলাফল না হওয়ায় আট জেলায় ৯ শিক্ষার্থীর আত্মহত্যার খবর পাওয়া গেছে। আত্মহত্যার চেষ্টা করেছে আরো অনেকে। বাংলাদেশ জার্নালের প্রতিনিধিদের পাঠানো খবর-

চাঁদপুর : চাঁদপুরে জুনিয়র স্কুল সার্টিফিকেট পরীক্ষায় (জেএসসি) অকৃতকার্য হয়ে ফেরদৌসী আক্তার নামে এক শিক্ষার্থী গলায় ফাঁস দিয়ে আত্মাহত্যা করেছে। অপরদিকে চাঁদপুর শহরের প্রফেসরপাড়ায় ফারজানা আক্তার (১৫) নামে এক শিক্ষার্থী বিষপানে আত্মহত্যা করেছে। শনিবার দুপুরে ফলাফল ঘোষণা করার পর বিকেল ৪টার দিকে লজ্জায় ফারজানা ও একই সময় ফেরদৌসী আত্মহত্যা করে। ফারজানা চাঁদপুর শহরের মাঝি বাড়ির দুলাল গাজীর এবং ফেরদৌসী ফরিদগঞ্জ উপজেলার পাইকপাড়া গ্রামের মানিক সরদারের মেয়ে।

পরিবার সূত্রে জানা যায়, ফেরদৌসী পাইকপাড়া উচ্চ বিদ্যালয়ের শিক্ষার্থী। শনিবার দুপুরে ফলাফল ঘোষণা পর সে অকৃতকার্য হয়েছে জানতে পেরে লজ্জ্বায় ঘরের কক্ষ বন্ধ করে সিলিং এর কাঠে ওড়না পেঁচিয়ে গলায় ফাঁস দিয়ে আত্মহত্যা করে। তাকে উদ্ধার করে সন্ধ্যায় চাঁদপুর সরকারি জেনারেল হাসপাতালে নিয়ে গেলে কর্তব্যরত চিকিৎসক নুরুল আলম তাকে মৃত বলে জানায়।

চাঁদপুর মডেল থানা ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) ওয়ালী উল্লাহ ফারজানা ও ফরিদগঞ্জ থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা শাহ আলম ফেরদৌসীর বিষয়টি নিশ্চিত করে বলেন, মূলত তারা পরীক্ষায় ফেল করায় আত্মহত্যা করেছে। তবে তাদের আত্মহত্যার পিছনে কোনো প্ররোচনা আছে কি-না তা খতিয়ে দেখা হচ্ছে।

রাজশাহী : রাজশাহীর বাঘায় জেএসসি পরীক্ষায় জিপিএ ৫ না পেয়ে এক শিক্ষার্থী আত্মহত্যা করেছে। শনিবার সন্ধ্যা ৬টার দিকে নিজ বাড়ির রান্নাঘরের তীরের সঙ্গে গলায় রশি দিয়ে আত্মহত্যা করেছে ওই ছাত্রী। নিহত ঝুমু খাতুন (১৪) উপজেলার পীরগাছা গ্রামের মোজাম্মেল হকের মেয়ে ও নওটিকা উচ্চবিদ্যালয়ের জেএসসি পরিক্ষার্থী।

পারিবারিক সূত্র জানায়, উপজেলার নওটিকা উচ্চবিদ্যালয় থেকে নিহত ঝুমু খাতুন এ বছর জেএসসি পরীক্ষায় অংশগ্রহণ করে। শনিবার প্রকাশিত পরীক্ষার ফলাফলে ঝুমু খাতুন জিপিএ ৩.৮০ পেয়ে উত্তীর্ণ হয়েছে। কিন্তু এই ফলাফলে সন্তুষ্ট হতে না পেরে বাড়ির রান্না ঘরের তীরের সঙ্গে গলায় রশি দিয়ে আত্মহত্যা করে। নওটিকা উচ্চবিদ্যালয়ের সহকারি প্রধান শিক্ষক রফিজ উদ্দিন বলেন, এই বিদ্যালয়ে থেকে ৫৬ জন পরীক্ষার্থী অংশগ্রহণ করে। এরমধ্যে ৯ জন জিপিএ ৫ পেয়েছে। ওই প্রতিষ্ঠানে ৪৯জন সফলতার সঙ্গে উত্তীর্ণ হয়েছে।

তিনি আরো বলেন, ঝুমু খাতুন জিপিএ ৫ পাওয়ার কথা ছিল। ভাগ্যক্রমে সে জিপিএ ৩.৮০ এ-মাইনাস পেয়েছে। তাই সে জিপিএ ৫ না পাওয়ার কারণে আত্মহত্যা করেছে।

নিহতের বাবা মোজাম্মেল হক জানান, ফলাফলের বিষয়ে মেয়েকে সান্ত্বনা দিয়ে মাঠে খেসারির ক্ষেত দেখতে যান। এ সময় বাড়িতে কেউ ছিল না। তিনি মেয়ের অকালমৃত্যু মেনে নিতে পারছেন না। এ ব্যাপারে বাঘা থানার ওসি রেজাউল হাসান রেজা বলেন, আত্মহত্যার খবর পেয়ে ঘটনাস্থলে পুলিশ পাঠানো হয়েছে।

পটুয়াখালী : পটুয়াখালী জেলার কলাপাড়ায় জেএসসি পরীক্ষায় অকৃতকার্য হওয়ায় এক ছাত্রী গলায় ফাঁস লাগিয়ে আত্মহত্যা করেছে। নিহত জান্নাত (১৪) মেলাপাড়া গ্রামের লামমিয়ার মেয়ে ও পূর্ব মধুখালী মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের ছাত্রী। পারিবারিক সূত্র জানায়, শনিবার ফলাফল ঘোষণার পর নিহত জান্নাত জানতে পারে সে ডি-গ্রেড (১.৫০) পেয়েছে। এরপর সে তার বাড়ি গিয়ে ঘরের আড়ার সঙ্গে নিজের গায়ের ওড়না দিয়ে গলায় ফাঁস দেয়। পূর্ব মধুখালী মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের শিক্ষক রঞ্জন ওঝা জানান, ফলাফল খারাপ হওয়ায় ওই ছাত্রী আত্মহত্যা করেছে বলে তিনি জানতে পেরেছেন।

লক্ষ্মীপুর : লক্ষ্মীপুরে জেএসসি পরীক্ষায় উত্তীর্ণ হতে না পেরে সানজিদা সুলতানা শ্রাবন্তী নামের এক স্কুল ছাত্রী আত্মহত্যা করেছে। রবিবার সকালে নিহতের লাশ উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য সদর হাসপাতাল মর্গে পাঠিয়েছে পুলিশ। এর আগে ভোরে তার নিজ ঘরের আড়ার সঙ্গে ওড়না পেঁচিয়ে শ্রাবন্তী আত্মহত্যা করছে বলে দাবি করে নিহত স্কুল ছাত্রীর পরিবার। নিহত ওই ছাত্রী সদর উপজেলার চরুরুহিতা গ্রামের মো. শাহীনের মেয়ে ও স্থানীয় রসুলগঞ্জ বহুমুখি উচ্চ বিদ্যালয়ের শিক্ষার্থী।

নিহতের চাচা মাহবুবুর রহমান, স্থানীয় ইউপি চেয়ারম্যান ও বিদ্যালয় ম্যানেজিং কমিটির সভাপতি হুমায়ুন কবির পাটোয়ারী বিষয়টি নিশ্চিত করেন। সদর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা মো. লোকমান হোসেন জানান, শিক্ষার্থীর মরদেহ উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য হাসপাতালে প্রেরণ করা হয়েছে।

মাদারীপুর : মাদারীপুরের কালকিনিতে জেএসসি পরীক্ষায় ফেল করায় প্রান্ত (১২) নামে এক ছাত্র গলায় ফাঁস দিয়ে আত্মহত্যা করেছে। শনিবার দিবাগত রাতে এ ঘটনা ঘটে। প্রান্ত উপজেলার ডাসার এলাকার শশীকর গ্রামের অমল বিশ্বাসের ছেলে।

পরিবার সূত্রে জানা গেছে, উপজেলার শশীকর উচ্চ বিদ্যালয় থেকে প্রান্ত জেএসসি পরীক্ষায় অংশগ্রহণ করেছিল। শনিবার দুপুরে পরীক্ষার ফল ঘোষণা করা হয়। এ পরীক্ষায় সে প্রত্যেক বিষয়ে ফেল করে। এতে লজ্জায় নিজ ঘরের আড়ার সঙ্গে গলায় ফাঁস দিয়ে আত্মহত্যা করে প্রান্ত।

নিহতের বাবা অমল বিশ্বাস বলেন, পরীক্ষায় ফেল করায় লজ্জায় ছেলে আত্মহত্যা করেছে। এ ব্যাপারে ডাসার থানার ওসি (তদন্ত) নাসিরউদ্দিন বলেন, পরীক্ষায় ফেল করায় পরীক্ষার্থী আত্মহত্যা করেছে। আমরা ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছি।

খাগড়াছড়ি : জেএসসি অকৃতকার্য হওয়ায় খাগড়াছড়িতে গলায় ফাঁস দিয়ে আত্মহত্যা করেছে জোবেদা আক্তার (১৩) নামে এক কিশোরী। শনিবার সন্ধ্যায় জেলা সদরের কুমিল্লা টিলা এলাকায় এ ঘটনা ঘটে। জোবেদা আক্তার কুমিল্লা টিলা এলাকার মৃত লিয়াকত আলীর মেয়ে।

পুলিশ ও পারিবারিক সূত্র জানায়, এবারের জেএসসি পরীক্ষায় কেআই জুনিয়র হাই স্কুল থেকে অংশ নেয় সে। শনিবার ঘোষিত ফলাফলে অকৃতকার্য হয় জোবেদা। জোবেদার বান্ধবী ফারজানা আক্তার জানায়, সন্ধ্যায় ঘরে ঢুকে ভিতর থেকে দরজা আটকে দেয় সে। জোবেদা আক্তারের বড় ভাই আমির হোসেন জানান, ঘরে এসে দরজা ভেঙ্গে দেখা যায় সিলিংয়ের সাথে রশি লাগিয়ে ফাঁস দিয়ে আত্মহত্যা করেছে জোবেদা।

খাগড়াছড়ি সদর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা তারেক মো. আব্দুল হান্নান জানান, এ ঘটনায় ওই ছাত্রীর বড় ভাই আমির হোসেন একটি অপমৃত্যু মামলা করেছে।

নারায়ণগঞ্জ : সোনারগাঁও উপজেলার জামপুর ইউনিয়নের উত্তর কাজিপাড়া মহজমপুর এলাকায় আরিফা আক্তার (১৪) নামে এক শিক্ষার্থী জেএসসি পরীক্ষায় ফেল করে আত্মহত্যা করেছে। ঘটনাটি ঘটেছে শনিবার বিকেলে। আরিফা আক্তার মহজমপুর হাইস্কুলের ছাত্রী ছিলো। বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন সোনারগাঁও থানার ওসি মোরশেদ আলম।

জামপুর ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান হামিম শিকদার শিপলু জানায়, উপজেলার জামপুর ইউনিয়নের মহজমপুর হাইস্কুলের অষ্টম শ্রেণীর ছাত্রী আরিফা আক্তার এ বছর জেএসসি পরীক্ষায় অংশ নিয়ে ইংরেজী ও গণিত বিষয়ে ফেল করে। শনিবার দুপুরে বিদ্যালয় থেকে পরীক্ষার ফলাফল জানতে পেরে বাসায় এসে ক্ষোভে ও দুঃখে ঘরের ভেতরে ওড়না পেঁচিয়ে গলায় ফাঁস আত্মহত্যা করে। আরিফা আক্তার একই এলাকার হানিফ মিয়ার কন্যা। এ ঘটনায় এলাকায় শোকের ছায়া নেমে আসে। আরিফার আত্মহত্যা খবর পেয়ে ঘটনাস্থলে তার সহপাঠী ও আত্মীয়-স্বজনরা ছুটে এসে কান্নায় ভেঙ্গে পড়েন।

সোনারগাঁও থানার ওসি মোরশেদ আলম জানান, আরিফা আক্তার জেএসসি পরীক্ষায় ফেল করে আত্মহত্যা করেছে। পরে তার আত্মীয়-স্বজনরা অনুমুতি নিয়ে বিনা ময়নাতদন্তেই তার লাশ দাফনের উদ্দেশ্যে নিয়ে গেছে।

সাতক্ষীরা : কালিগঞ্জ উপজেলায় জেএসসি পরীক্ষায় উত্তীর্ণ হতে না পেরে আত্মহত্যা করেছে শামীমা আক্তার শিউলি নামে এক শিক্ষার্থী। শনিবার রাতে উপজেলার নলতা ইউনিয়নের বাগনলতা গ্রামের নিজ বাড়িতে আত্মহত্যা করেছে সে। শামীমা আক্তার শিউলি বাগনলতা গ্রামের সিরাজুল ইসলামের মেয়ে ও নলতা কেবি আহসানউল্লাহ প্রি-কাডেট অ্যান্ড হাইস্কুলের শিক্ষার্থী।

নলতা কেবি আহসানউল্লাহ প্রি-কাডেট অ্যান্ড হাইস্কুলের প্রধান শিক্ষক শ্রী কুমার জানান, শামীমা আক্তার শিউলি পাঁচটি বিষয়ে লেটার মার্ক পেলেও অংকে ফেল করেছে। সন্ধ্যায় খবর পাই সে আত্ম অভিমানে আত্মহত্যা করেছে। কালিগঞ্জ থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) সুবীর দত্ত ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে বলেন, এ ঘটনায় থানায় একটি ইউডি মামলা হয়েছে।

মাগুরা : জেএসসি পরীক্ষায় ফেল করে দুই ছাত্রী বিষপানে আত্মহত্যার চেষ্টা। শনিবার সন্ধ্যায় তাদেরকে মাগুরা ২৫০ শয্যা বিশিষ্ট সদর হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে।

স্বজনরা জানান, জেএসসি পরীক্ষায় পাস না করায় সদর উপজেলার জগদল গ্রামের লিটন মিয়ার মেয়ে মিতা খাতুন ও টোকন মল্লিকের মেয়ে মুসলিমা কীটনাশক পানে আত্মহত্যার চেষ্টা চালায়। পরিবারের সদস্যরা বিষয়টি জানতে পেরে তাদেরকে উদ্ধার করে মাগুরা সদর হাসপাতালে ভর্তি করে।

মুসলিমার বাবা টোকন মল্লিক জানান, পরীক্ষায় অকৃতকার্য হওয়ার খবর পেয়ে মুসলিমা বাড়িতে থাকা কীটনাশক খেয়ে আত্মহত্যার চেষ্টা করে।

মিতা খাতুনের মা জানান, দুই দিন আগে মিতা তার দাদির কাছ থেকে পাখি মারার কথা বলে ফুরাডান নিয়ে লুকিয়ে রাখে। পরীক্ষার ফল প্রকাশিত হওয়ার পর সে অকৃতকার্য হয়েছে জানতে পেরে ওই ফুরাডান খেয়ে আত্মহত্যার চেষ্টা চালায়।

মাগুরা ২৫০ শয্যা বিশিষ্ট সদর হাসপাতালের চিকিৎসক পরিক্ষিত পাল জানান, তাদেরকে প্রাথমিক চিকিৎসা দিয়ে হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। তবে এখনো শংকামুক্ত নয় তারা।

সংবাদটি সম্পর্কে আপনার বস্তুনিষ্ট মতামত প্রকাশ করুন

টি মন্তব্য

সংবাদটি শেয়ার করুন

Developed by: