মঙ্গলবার, ২১ নভেম্বর ২০১৭ খ্রীষ্টাব্দ | ৭ অগ্রহায়ণ ১৪২৪ বঙ্গাব্দ
সর্বশেষ সংবাদ
লিপস্টিক যখন মাজাদার খাবার!  » «   কিশোরী ধর্ষণের প্রমান মেলায় ২ নেতার বিরুদ্ধে অভিযোগপত্র  » «   শিক্ষার্থীদের মুক্তিযুদ্ধের চেতনা সমৃদ্ধ শিক্ষা দিতে হবে- রেজাউল রহিম লাল  » «   মাশরাফির রংপুরের কাছে নাসিরের সিলেটের পরাজয়!  » «   যাত্রীবাহী বাসের ধাক্কায় নারীর মৃত্যু  » «   সালমানের স্ত্রী-সন্তান থাকে বিদেশে!  » «   পুলিশ পেটালো ছাত্রলীগ!  » «   চুয়াডাঙ্গায় সাপের কামড়ে একজনের মৃত্যু  » «   বিপিএল পয়েন্ট টেবিলে কে কোথায় দাঁড়িয়ে  » «   আম্পায়ারের সঙ্গে সাকিবের এ কেমন আচরণ!  » «   সংসদে বাদলকে তুলোধুনো করলেন নৌমন্ত্রী  » «   ৭ মার্চ কেন জাতীয় দিবস নয় : হাইকোর্ট  » «   আজ সুফিয়া কামালের জন্মদিন  » «   অভিবাসীবিরোধী নন ট্রাম্প  » «   আন্তর্জাতিক চলচ্চিত্র উৎসবের উদ্বোধন করবেন শাহরুখ  » «  

২৬৫ রানের লক্ষে ব্যাট করছে অস্ট্রেলিয়া



স্পোর্টস ডেস্ক:: ঢাকা টেস্টের তৃতীয় দিনে ২৬৫ রানের লক্ষে ব্যাট করছে অস্ট্রেলিয়া। টেস্টের তৃতীয় দিনের দ্বিতীয় সেশনেই শেষ হয়ে গেল বাংলাদেশের দ্বিতীয় ইনিংস। মিরপুর শেরে বাংলা জাতীয় ক্রিকেট স্টেডিয়ামের ঘূর্ণি উইকেটে ২২১ রানে অলআউট হলো বাংলাদেশ। ফলে জয়ের জন্য অস্ট্রেলিয়ার লক্ষ্য দাঁড়িয়েছে ২৬৫ রান।

নাইটওয়াচম্যান হিসেবে ব্যাটিংয়ে নামা তাইজুল ইসলামের (৪) উইকেট হারিয়ে তৃতীয় দিন শুরু করে বাংলাদেশ। বেশিক্ষণ টিকতে পারেননি ইমরুল কায়েসও। মাত্র ২ রান করে নাথান লায়নের বলে এলবিডব্লিউয়ের শিকার হন তিনি। এরপর দারুণ এক জুটি গড়েন তামিম ইকবাল এবং অধিনায়ক মুশফিকুর রহিম। তামিম তুলে নেন ক্যারিয়ারের ২৪তম হাফ সেঞ্চুরি। তবে প্রথম ইনিংসের মতো সেঞ্চুরির সম্ভাবনা জাগিয়েও নাটকীয়ভাবে আউট হয়ে সাজঘরে ফিরতে হয় দেশসেরা এই ওপেনারকে। তার ব্যাট থেকে আসে ৭৮ রান।

এদিন টিকতে পারেননি সাকিবও। তামিম-সাকিবের বিদায়ের পর দলের হাল ধরেছিলেন মুশফিক এবং সাব্বির রহমান। এ দু’জনের ব্যাটে বড় সংগ্রহের স্বপ্নই দেখছিল বাংলাদেশ। কিন্তু আচমকাই ধস নামে বাংলাদেশের ব্যাটিং লাইনআপে। ১৮৬/৫ থেকে মুহূর্তেই ১৮৬/৮ হয়ে যায় বাংলাদেশ। দুর্ভাগ্যজনকভাবে বিদায় নেন মুশফিক। ৬৮তম ওভারে বল করছিলেন নাথান লায়ন। পঞ্চম বলটি মোকাবেলা করেন সাব্বির। এই সময় ক্রিজ থেকে কিছুটা হেঁটে বের হয়েছিলেন নন স্ট্রাইক প্রান্তে থাকা মুশফিক।

নাথান লায়নের হাতে লেগেই বল আঘাত হানে স্টাম্পে। সাথে সাথে আউটের জন্য আবেদন করেন অস্ট্রেলিয়ান ক্রিকেটাররা। অন ফিল্ড আম্পায়ার সিদ্ধান্ত নিতে না পারায় টিভি আম্পায়ারের শরানাপন্ন হন তিনি। টেলিভিশন রিপ্লে দেখে মুশফিককে আউট ঘোষণা করেন টিভি আম্পায়ার ইয়ান গোল্ড। আউট হওয়ার আগে মুশফিকের ব্যাট থেকে আসে ৪১ রান। পরের ওভারেই বল হাতে আঘাত হানেন অ্যাস্টন অ্যাগার। তার বলে রানের খাতা না খুলেই উইকেটের পিছনে থাকা ম্যাথু ওয়েডের গ্লাভসে ধরা পড়েন নাসির হোসেন।

এরপর সাব্বিরকে অজি স্পিনার লায়ন নিজের চতুর্থ শিকারে পরিণত করলে ব্যাকফুটে চলে যায় বাংলাদেশ। আউট হওয়ার আগে সাব্বিরের ব্যাট থেকে এসেছে ২২ রান। দলের এমন বিপর্যয়ে প্রতিরোধ গড়েন মেহেদী হাসান মিরাজ ও শফিউল ইসলাম। গড়েন ২৮ রানের জুটি। এই দুই উইকেট ভাগাভাগি করে নেন দুই স্পিনার লায়ন ও অ্যাগার। শেষ পর্যন্ত স্বাগতিকদের ইনিংস থামে ২২১ রানে। বাংলাদেশের দশজন ব্যাটসম্যানের মধ্যে আটজনই ক্যাচ আউটের শিকার হয়েছেন। বাকি দুইটির একটি এলবিডব্লিউ এবং একটা রানআউট।

ম্যাচের বাকি আরও দুই দিন। এই পুঁজি নিয়ে অজিদের বিপক্ষে প্রথমবারের মতো টেস্ট জিততে পারবে তো বাংলাদেশ?

সংবাদটি সম্পর্কে আপনার বস্তুনিষ্ট মতামত প্রকাশ করুন

টি মন্তব্য

সংবাদটি শেয়ার করুন

Developed by: