রবিবার, ১৮ নভেম্বর ২০১৮ খ্রীষ্টাব্দ | ৪ অগ্রহায়ণ ১৪২৫ বঙ্গাব্দ
সর্বশেষ সংবাদ
প্রবাসী স্ত্রীকে লাইভে রেখে সিলেটের স্বামীর আত্মহত্যা!  » «   খাশোগি হত্যা: যুক্তরাষ্ট্র-সৌদির নীল নকশা ও তুরস্কের উদ্দেশ্য  » «   দুই নম্বরি কেন ১০ নম্বরি হলেও ঐক্যফ্রন্ট নির্বাচনে থাকবে: ড. কামাল  » «   বোরকার বিরুদ্ধে সৌদি নারীদের অভিনব প্রতিবাদ  » «   আজ থেকে শুরু হচ্ছে প্রাথমিক ও ইবতেদায়ী সমাপনী পরীক্ষা  » «   সিডরে নিখোঁজ শহিদুল বাড়ি ফিরলেন ১১ বছর পর!  » «   ভাওতাবাজির জন্য সরকারকে গোল্ড মেডেল দেওয়া উচিৎ: ড. কামাল  » «   দিল্লির লাল কেল্লা দখলের হুমকি পাকিস্তানের!  » «   সত্য বলায় এসকে সিনহাকে জোর করে বিদেশ পাঠানো হয়েছে: মির্জা ফখরুল  » «   নির্বাচনী কর্মকর্তারা পক্ষপাতিত্ব করলে শাস্তি হবে: নির্বাচন কমিশনার  » «   গোলান মালভূমিতে সিরিয়ান মালিকানা জাতিসংঘে অনুমোদন  » «   শ্রীলংকার পার্লামেন্টে স্পিকারের চেয়ার দখল, সংঘর্ষে আহত একাধিক এমপি  » «   আজ মওলানা ভাসানীর ৪২তম মৃত্যুবার্ষিকী  » «   কে হবেন প্রধানমন্ত্রী: উত্তরে যা বললেন ড. কামাল  » «   ক্যালিফোর্নিয়া দাবানল: নিহতের সংখ্যা বেড়ে ৫৯  » «  

২০২১ সালের চ্যাম্পিয়ন্স ট্রফি বাংলাদেশে!



স্পোর্টস ডেস্ক:: সূচি অনুযায়ী ২০২১ সালের চ্যাম্পিয়ন্স ট্রফির আসর বসার কথা ছিল ভারতের মাটিতে। কিন্তু বোর্ড অব কন্ট্রোল ফর ক্রিকেট ইন ইন্ডিয়া (বিসিসিআই) কর সংক্রান্ত ঝামেলায় জড়িয়ে পড়তে যাচ্ছে আইসিসির সঙ্গে। এমনটাই আভাস পাওয়া গেছে। তাই ক্রিকেটের দ্বিতীয় বৃহত্তর এই টুর্নামেন্টটির বিকল্প ভেন্যু নিয়ে এরই মধ্যে ভাবতে শুরু করেছে ইন্টারন্যাশনাল ক্রিকেট কাউন্সিল (আইসিসি)। আর তাদের ভাবনায় প্রথমেই এসেছে বাংলাদেশের নাম।

বাংলাদেশ ছাড়াও বিকল্প ভেন্যুর তালিকায় নাম আছে শ্রীলঙ্কারও। তবে আয়োজক হিসেবে বাংলাদেশের বেশ সুনাম থাকায় বাংলাদেশকেই এগিয়ে রেখেছে আইসিসি। তবে শুধু চ্যাম্পিয়ন্স ট্রফি নয়, ভারত থেকে সরে যেতে পারে ২০২৩ সালের বিশ্বকাপও। আর তেমন কিছু হলে বাংলাদেশ ও শ্রীলঙ্কার কোন এক দেশে আয়োজন করা হবে সেটিও।

মূলত সরকারের সিদ্ধান্ত অনুযায়ী আইসিসিকে কর ছাড় দেবে না ভারত। আর এ কারণে শুধু ভারতের জন্যই আইসিসিকে প্রায় ১০০ মিলিয়ন ডলার ক্ষতির মুখে পড়তে হবে। আর এত পরিমাণ আর্থিক ক্ষতি করে ভারতে আসর দুটি আয়োজন করতে চাচ্ছে না আইসিসি। গেল শুক্রবার দুবাইয়ে বিসিসিআইয়ের সাথে এক বৈঠকে পরিষ্কার করে এসব জানিয়ে দিয়েছে সংস্থাটি।

২০১৬ সালের টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপ আসর থেকেও কর নিয়েছে বিসিসিআই। আর এ থেকেই শিক্ষা পেয়েছে আইসিসি। দুই বছর আগে ভারতে হয়ে যাওয়া আসরটি থেকে ২০-৩০ মিলিয়ন ডলার কম আয় হয়েছে ক্রিকেটের সর্বোচ্চ সংস্থাটির।

বৈঠক শেষে এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তির মাধ্যমে আইসিসি জানিয়েছে, বিসিসিআই চাইলে বিষয়টি নিয়ে ভারত সরকারের সঙ্গে কথা বলুক৷ কিন্তু আমরা ভারত ছাড়াও অন্য কোথায় এই টুর্নামেন্ট খেলা দেওয়া যেতে পারে তার খোঁজ শুরু করবে ৷ পুরো বিশ্বে টুর্নামেন্ট চালানোর মতো ভেন্যুর অভাব হবে না।

ক্রিকেট বিষয়ক ওয়েবসাইট ক্রিকইনফো জানিয়েছে, আইসিসি প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা ডেভিড রিচার্ডসন এবং অন্য কর্মকর্তাদের চ্যাম্পিয়ন্স ট্রফির সময় ঠিক রেখে বিকল্প ভেন্যু খুঁজতে বলা হয়েছে। সেক্ষেত্রে বাংলাদেশ ও শ্রীলঙ্কার নাম সামনে রেখেছে তারা। তবে এই বিষয়ে চূড়ান্ত সিদ্ধান্ত নিতে আরও কিছুটা সময় নেবেন তারা। কমপক্ষে ১২ থেকে ১৬ মাসের আগে বিকল্প ভেন্যু চূড়ান্ত করতে পারবেন না তারা।

২০১৯ সালের শেষে দিকে ভারতেই বসবে চ্যাম্পিয়ন্স ট্রফির আসর। এ আসরের পরই পরের আসরের ভেন্যু নিয়ে চূড়ান্ত সিদ্ধান্তে যাবে আইসিসি।

সংবাদটি সম্পর্কে আপনার বস্তুনিষ্ট মতামত প্রকাশ করুন

টি মন্তব্য

সংবাদটি শেয়ার করুন

Developed by: