মঙ্গলবার, ২৫ সেপ্টেম্বর ২০১৮ খ্রীষ্টাব্দ | ১০ আশ্বিন ১৪২৫ বঙ্গাব্দ
সর্বশেষ সংবাদ
অবশেষে বাড়ছে সরকারি চাকরিতে প্রবেশের বয়স  » «   টানা দুই সংসদ নির্বাচনে অংশ না নিলে ঝুঁকিতে পড়বে নিবন্ধন: ইসি  » «   সন্ত্রাসবাদের বিরুদ্ধে লড়াই করুন: বিশ্বনেতাদের প্রধানমন্ত্রী  » «   আসামের নাগরিক তালিকা সংশোধন শুরু, চলবে দুই মাস  » «   শিক্ষার উন্নয়নে মুনাফার মানসিকতা ত্যাগের আহ্বান শেখ হাসিনার  » «   ভারতে ‘গণেশ’ বিসর্জন দিতে গিয়ে ১৮ জনের মৃত্যু  » «   পাকিস্তানের বিরুদ্ধে পদক্ষেপ নিতে চান ভারতীয় সেনাপ্রধান  » «   প্রধানমন্ত্রীর ফ্লাইটের ক্রুর মাদক সেবন  » «   কাশ্মীরে বিদ্রোহীদের টার্গেট এখন পুলিশ  » «   রোহিঙ্গাদের জন্য ১৩শ কোটি টাকার মার্কিন সহায়তার ঘোষণা  » «   ট্রাক চাপায় অটোরিকশার চালকসহ নিহত ৫  » «   দুর্নীতির প্রমাণ পেলেই সিনহার বিরুদ্ধে মামলা হবে: দুদক চেয়ারম্যান  » «   মানব পাচারের ঝুঁকি বেড়েই চলেছে: জাতিসংঘে প্রতিমন্ত্রী  » «   আরপিও সংশোধন: সরকারের দিকে তাকিয়ে ইসি  » «   রোহিঙ্গা সংকট সমাধানে প্রধানমন্ত্রীর ৩ প্রস্তাব  » «  

১ লাখ জাল নোট তৈরিতে খরচ মাত্র ১০ হাজার টাকা!



নিউজ ডেস্ক:: খুব সহজে সস্তায় তৈরি হওয়ায় দেশব্যাপী ছড়িয়ে পড়েছে জাল নোট।তবে ঈদ উপলক্ষে এ নোটের প্রভাব বেড়েছে। মাত্র ১০ হাজার টাকা খরচ করে ১ লাখ টাকার জাল নোট তৈরি করছে প্রতারক চক্র।শুক্রবার রাতে রাজধানীর লালবাগ থেকে ৭৫ লাখ জাল টাকা ও জাল টাকা তৈরিতে ব্যবহৃত বিভিন্ন সরঞ্জামসহ ৮ জনকে গ্রেফতার করে ঢাকা মেট্রোপলিটন পুলিশ (ডিএমপি)। এরপরই বেরিয়ে আসে মূল্য তথ্য।

জানা যায়, মাত্র ১০ হাজার টাকা খরচ করে এক লাখ টাকার জাল নোট তৈরি করে তা পাইকারের কাছে বিক্রি হয় ১৪-১৫ হাজার টাকায়।পাইকারি বিক্রেতা তা খুচরা বিক্রেতাদের কাছে বিক্রি করে ২০ থেকে ৫০ হাজার টাকায়।খুচরা বিক্রেতাদের থেকে মাঠ পর্যায়ের ক্রেতারা আরও বেশি দামে কিনে নিত্য প্রয়োজনীয় পণ্য ক্রয়ের মাধ্যমে তা ছড়িয়ে দেয় দেশের বিভিন্ন স্থানে।এ নিয়ে শনিবার দুপুরে ডিএমপি মিডিয়া সেন্টারে সংবাদ সম্মেলনে ডিবির অতিরিক্ত পুলিশ কমিশনার মো. আবদুল বাতেন গণমাধ্যমকে বিষয়টি জানান।

গ্রেফতারকৃতরা হলেন- কাউসার হামিদ, আলাউদ্দিন, নজরুল ইসলাম, মো. মোস্তফা, মো. সোহেল, মো. মজিবর রহমান বাদশা, মোঃ সজিব হোসেন ও মোছাঃ সালেহা বেগম।এ সময় তাদের কাছ থেকে প্রায় ৭৫ লাখ বাংলাদেশি জাল টাকার নোট ও জাল টাকা তৈরির সরঞ্জাম একটি ল্যাপটপ, দুটি কালার প্রিন্টার, টাকা তৈরির বিভিন্ন কাগজ, প্রিন্টার কালি, স্কিন বোর্ড, জাল টাকায় ব্যবহৃত ফয়েল পেপার উদ্ধার করা হয়।

আবদুল বাতেন বলেন, জাল টাকা তৈরির মূলহোতা কাউসার হামিদ তার অন্যতম সহযোগী আলাউদ্দিনসহ লালবাগের ৪নং এমসি রায় লেনের একটি ফ্ল্যাট বাসা ভাড়া নিয়ে জাল টাকা তৈরির ব্যবসা করে আসছিল। আসামি সজিব ও মোছা. সালেহা জাল টাকা তৈরির কাগজে জলছাপ নিরাপত্তা সুতা স্থাপন করে। আসামি কাউসার হামিদ তার বড় ভাইয়ের সাথে জাল টাকা তৈরি করতো। পরবর্তীতে ২০০৪ সাল থেকে নিজেই জাল টাকা তৈরির সরঞ্জামাদি কিনে ব্যবসা করতো। ইতোপূর্বে সে একাধিকবার জাল টাকা ও তৈরির সরঞ্জামাদিসহ গ্রেফতার হয়েছে।

সংবাদটি সম্পর্কে আপনার বস্তুনিষ্ট মতামত প্রকাশ করুন

টি মন্তব্য

সংবাদটি শেয়ার করুন

Developed by: