রবিবার, ২২ সেপ্টেম্বর ২০১৯ খ্রীষ্টাব্দ | ৭ আশ্বিন ১৪২৬ বঙ্গাব্দ
সর্বশেষ সংবাদ
মোহামেডানসহ মতিঝিলে চার ক্লাবে অভিযান  » «   তাহিরপুরে ১০টি গাঁজার বালিশ উদ্ধার  » «   ফ্রান্সে মসজিদে গাড়ি হামলা  » «   সদলবলে মধুর ক্যান্টিনে ছাত্রদলের নবনির্বাচিত সভাপতি-সম্পাদক  » «   মুসলিম যাত্রী থাকায় ফ্লাইট বাতিল করল আমেরিকান এয়ারলাইনস  » «   মধ্যরাতে বনানীতে শাবি ভিসিপুত্রের কাণ্ড!  » «   সিলেট বিএনপিতে শোডাউনের প্রস্তুতি  » «   ‘ভূতের আড্ডায়’ অভিযান, বাতি জ্বালাতেই তরুণ-তরুণীর অপ্রীতিকর দৃশ্য  » «   মধ্যযুগীয় কায়দায় নির্যাতন, প্রধান শিক্ষকসহ গ্রেপ্তার ৩  » «   টেকনাফে ‘গোলাগুলিতে’ রোহিঙ্গা স্বামী-স্ত্রী নিহত  » «   প্রাথমিকের শিক্ষকদের সুখবর দিলেন গণশিক্ষা সচিব  » «   সাত বডিগার্ডসহ জি কে শামীমকে গুলশান থানায় হস্তান্তর  » «   মালদ্বীপে স্থায়ী জমি পেলো বাংলাদেশ  » «   শিক্ষার্থীদের ওপর হামলার প্রতিবাদে পদত্যাগ করলেন সহকারী প্রক্টর  » «   তাহরির স্কয়ারসহ মিসরজুড়ে একনায়ক সিসির বিরুদ্ধে বিক্ষোভ  » «  

হিজাবের জন্য চাকরি হারাচ্ছেন মালালা



আন্তর্জাতিক ডেস্ক:: কানাডার কুইবেকে শিক্ষকতায় নিয়োজিত ছিলেন শান্তিতে নোবেলজয়ী পাকিস্তানি নাগরিক মালালা ইউসুজাই। কিন্তু এখন হিজাবের জন্য তার চাকরি হারাতে যাচ্ছেন তিনি। সম্প্রতি কুইবেকের শিক্ষাদপ্তর এক তথ্যে জানিয়েছে, কর্মজীবিরা ধর্মীয় চিহ্নযুক্ত কোনও কিছু পরে কর্মক্ষেত্রে আসতে পারবে না। তবে মালালা হিজাব ছাড়লে কর্মক্ষেত্রে যোগ দিতে পারবেন বলে জানানো হয়েছে।

অধিদফতরের পক্ষ থেকে অভিযোগে জানিয়েছেন, যে মালালা নিয়মিত হিজাব পরেন, যা ইসলাম ধর্মের অন্যতম চিহ্ন। সেভাবেই তিনি কানাডার প্রদেশ কুইবেকে পড়াতেন। ফলে নতুন আইন অনুযায়ী, কুইবেকে তার পড়ানো নিষিদ্ধ। কুইবেকের শিক্ষামন্ত্রী জঁ ফ্রাঁসোয়া রবার্জের যুক্তি, ধর্মনিরপেক্ষতা বজায় রাখার জন্যই এই আইনটি পাশ করানো হয়েছে। এসবের মাঝে আবার সেই শিক্ষামন্ত্রীর সঙ্গেই মালালার একটি ছবি ভাইরাল হয়েছে।

যা বিতর্ক বাড়িয়েছে। জানা গেছে, আইনটি পাশ হওয়ার পর তিনি ফ্রান্সে সফরে মালালার সঙ্গে দেখা করেন। সেসময় মালালাও ফ্রান্সেই ছিলেন। এই আইনের আওতায় শিক্ষক ছাড়াও পুলিশ অফিসার ও আইনজীবীদের রাখা হয়েছে। ধর্মনিরপেক্ষতা বজায় রাখার জন্যই এই আইনটি পাশ করানো হয়েছে বলে জানান কুইবেকের শিক্ষামন্ত্রী জঁ ফ্রাঁসোয়া রবার্জো।

তিনি জানান, কুইবেকে মালালা পড়ালে আমরা সম্মানিত হব। কিন্তু যে কোনও উদার, সহিষ্ণু দেশে শিক্ষকরা কোনও ধর্মচিহ্ন সঙ্গে নিয়ে কাজ করবেন, এরকম কোনও উদাহরণ নেই। আইনটি পাশ হওয়ার পর ফ্রান্স সফরে মালালার সঙ্গে দেখা করেন কুইবেকের ওই শিক্ষামন্ত্রী। পরে তাদের একটি ছবি ভাইরাল হলে শিক্ষামন্ত্রীর সমালোচনা করা হয়।

সংবাদটি সম্পর্কে আপনার বস্তুনিষ্ট মতামত প্রকাশ করুন

টি মন্তব্য

সংবাদটি শেয়ার করুন

Developed by: