মঙ্গলবার, ২৩ জুলাই ২০১৯ খ্রীষ্টাব্দ | ৮ শ্রাবণ ১৪২৬ বঙ্গাব্দ
সর্বশেষ সংবাদ
হবিগঞ্জে ছেলেধরা সন্দেহে তিনজনকে গণপিটুনি  » «   গণপিটুনিতে রেনু নিহতের ঘটনায় আটক ৩ জন রিমান্ডে  » «   ব্যারিস্টার সুমনের বিরুদ্ধে মামলা  » «   ফের জাতীয় সংলাপের আহ্বান ড. কামালের  » «   জবানবন্দি প্রত্যাহার ও চিকিৎসা- মিন্নির পক্ষে দুই আবেদনই নামঞ্জুর  » «   উ. কোরিয়ায় নির্বাচন: ভোট পড়েছে ৯৯.৯৮ শতাংশ  » «   এইডস ঝুঁকিতে সিলেট ও মৌলভীবাজার  » «   ঈদের আগেই সরকারি ব্যাংকের নিয়োগ পরীক্ষার ফল  » «   বিমানের ৪৫ হাজার টিকিট কর্মকর্তা-কর্মচারীদের মধ্যে হরিলুট  » «   মিন্নি নয়, রিফাত হত্যার নেপথ্যে চেয়ারম্যানের স্ত্রী?  » «   পাকিস্তানে নারী আত্মঘাতীর বিস্ফোরণে ছয় পুলিশসহ নিহত ৯  » «   সাইকেল চালিয়ে হজ করতে যাচ্ছেন ৮ ব্রিটিশ মুসলিম  » «   প্রিয়া সাহার মিথ্যা বক্তব্য মার্কিন আধিপত্য বিস্তারের ষড়যন্ত্র : জয়  » «   বাংলাদেশের পোশাক খাতে রপ্তানি বেড়েছে ২২ শতাংশ  » «   ব্যাটারি চালিত অটোরিকশার শোরুম সিলগালা করলো সিসিক  » «  

হারবাল ওষুধে শিশুসহ দুইজনের মৃত্যু, পল্লী চিকিৎসক আটক



নিউজ ডেস্ক:: কুষ্টিয়ার মিরপুরে ইউনানি ওষুধ খেয়ে শিশুসহ দুইজনের মৃত্যু হয়েছে বলে অভিযোগ উঠেছে। মৃতরা হলেন, উপজেলার বহলবাড়ীয়া ইউনিয়নের খাড়ারা এলাকার পলান শেখের ছেলে নুর মহাম্মদ (৫০) ও একই এলাকার নবাব আলীর মেয়ে শামীমা (৯)। একই ঔষুধ খেয়ে নবাব আলীও হাসপাতালে চিকিৎসাধীন রয়েছেন বলে জানা গেছে। রবিবার রাতে এ ঘটনা ঘটেছে।

স্থানীয়রা জানান, নবাব আলীর বাড়ীতে ওই রাতে টেলিভিশন দেখতে যায় নুর মহাম্মদ। এ সময় কাশির জন্য নবাব আলী নবীন ল্যাবরোটরির মেরী গোল্ড নামক ইউনানী সিরাপ খায়। যেটি গত ২ মাস আগে কাশির জন্য নিয়ে এসে রেখেছিলেন। এ সময় নুর মহাম্মদ, নবাব আলী এবং নবাব আলীর মেয়ে শামীমা একই ঔষুধ খায়। এরপরে রবিবার রাত সাড়ে ১০টার দিকে শামীমা অসুস্থ হয়ে পড়লে তাকে ভেড়ামারা উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে যাওয়া হয়।

ভেড়ামারা উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের আবাসিক মেডিকেল অফিসার ডা. মিজানুর রহমান জানান, হাসপাতালে নিয়ে আসার পূর্বেই মেয়েটি মারা যায়। মেরী গোল্ড নামক ইউনানী সিরাপ খেয়েছিলো সে। এদিকে ঐ একই ঔষুধ খেয়ে মধ্যরাতে নুর মহাম্মদ অসুস্থ হয়ে পড়েন। কুষ্টিয়া জেনারেল হাসপাতালে নেয়ার পথে তিনিও মারা যান। এদিকে মধ্যরাতে অসুস্থ হয়ে হয়ে পড়ে শামিমার পিতা নবাব আলী। তাকে দ্রুত ভেড়ামারা উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করা হয়। পরে সেখান থেকে কুষ্টিয়া জেনারেল হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। তার অবস্থাও আশঙ্কাজনক বলে জানা গেছে।

মিরপুর থানার ওসি আবুল কালাম ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে জানান, পুলিশ নিহতদের লাশ উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য মর্গে পাঠানো হয়েছে। এ ঘটনায় ওই এলাকার পল্লী চিকিৎসক রাজিবকে আটক করা হয়েছে।

সংবাদটি সম্পর্কে আপনার বস্তুনিষ্ট মতামত প্রকাশ করুন

টি মন্তব্য

সংবাদটি শেয়ার করুন

Developed by: