শুক্রবার, ২০ জুলাই ২০১৮ খ্রীষ্টাব্দ | ৫ শ্রাবণ ১৪২৫ বঙ্গাব্দ
সর্বশেষ সংবাদ
নির্বাচনের আগে বিএনপির তিন শর্ত!  » «   রাজধানীতে মোটরসাইকেলের ধাক্কায় স্বামী নিহত, স্ত্রী আহত  » «   ৬ বছর ধরে শিক্ষক শূন্য ৯টি বিভাগ, জনবল সংকটে বন্ধ হওযার পথে কলেজ  » «   মাদকবিরোধী অভিযানপুলিশের সঙ্গে ‘বন্দুকযুদ্ধে’ নিহত ১  » «   প্রধানমন্ত্রীকে সংবর্ধনাশনিবার বন্ধ থাকবে রাজধানীর যেসব সড়ক  » «   কারাগারে গরমে অসুস্থ ১১ কয়েদি, একজনের অবস্থা আশঙ্কাজনক  » «   আলোচিত সেই পর্নস্টার স্টর্মি ড্যানিয়েলস গ্রেফতার  » «   রাজনগরে প্রচণ্ড গরমে ব্যবসায়ীর মৃত্যু  » «   বাংলাদেশ ব্যাংকের স্বর্ণের ভল্টে ঢোকেন যারা  » «   সাংবাদিকদের ওবায়দুল কাদের‘বিএনপির রাজনীতিতে ভাটা চলছে, জোয়ার কবে ফিরবে তা কেউ জানে না’  » «   টাইগাদের দারুন জয়  » «   যে কারণে তাপমাত্র বেড়েছে, দু-একদিনের মধ্যে বৃষ্টির সম্ভাবনা  » «   যেসব কারণে ফল খারাপ  » «   মেয়ের সাথে প্রথমবার অমিতাভ বচ্চন  » «   সরকারি এডওয়ার্ড কলেজে শহীদদের স্মরণে বৃক্ষ রোপন কর্মসূচি পালন  » «  

হল গেটেই ছাত্রীদের উত্ত্যক্ত করে প্রহরী!



নিউজ ডেস্ক::টিউশনের কারণে রাতে হলে ফিরতে দেরি হলে প্রহরীরা উল্টাপাল্টা কথা বলেন। দেরিতে আসায় হল সুপারও ‘বাজে’ মন্তব্য করেন। আর হল প্রভোস্টকে বিষয়টি জানালে তিনি উল্টো চটে যান।- এভাবেই যুগান্তরকে রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ের (রাবি) বঙ্গমাতা শেখ ফজিলাতুন্নেছা হলের পরিস্থিতির কথা জানালেন পদার্থবিজ্ঞান বিভাগের এক ছাত্রী।

আরেক ছাত্রী বলেন, ‘আমি প্রতিদিন সকালে হাঁটতে বের হতাম। ওই সময় আশপাশে কেউ না থাকায় গেটে দায়িত্বরত প্রহরী মোস্তাক আমাকে নানাভাবে উত্ত্যক্ত করত।’

‘পোশাক নিয়ে একদিন প্রহরী খুবই বাজে মন্তব্য করলে বাধ্য হয়ে আমি সকালে বের হওয়াই বন্ধ করে দিই’ বলে উল্লেখ করেন ওই ছাত্রী।

দিন দিন পরিস্থিতির অবনতি হওয়ায় রোববার ফুঁসে ওঠেন বঙ্গমাতা হলের আবাসিক ছাত্রীরা।

এ দিন বিকালে তারা হল প্রশাসন ও কর্মচারীদের অসদাচরণ ও অশালীন মন্তব্যের প্রতিবাদে বিক্ষোভ করেন।

পরে রাতে হল প্রভোস্ট অধ্যাপক ফাহিমা খাতুনের কাছে চার দফা দাবিসহ লিখিত অভিযোগ জমা দেয়া হয়। এতে প্রায় ৩০০ আবাসিক ছাত্রীর স্বাক্ষর রয়েছে।

লিখিত অভিযোগ পাওয়ার পর তা সমাধানে সাত দিন সময় চেয়ে ছাত্রীদের শান্ত করেন প্রভোস্ট।

লিখিত অভিযোগে বলা হয়েছে, হলের ফটকে দায়িত্বরত প্রহরী ও হলসুপার তাদের সঙ্গে কয়েক দিন ধরে খুব খারাপ আচরণ করছে।

হলের ফটকে কর্তব্যরত প্রহরী মোস্তাক ছাত্রীদের উত্ত্যক্ত করেন। তিনি ছাত্রীদের পোশাক নিয়ে অশালীন মন্তব্য করেছেন।

সন্ধ্যায় কোনো ছাত্রীর হলে ফিরতে দেরি হলে হলসুপার মোহসিনা ছাত্রীদের বকাঝকার একপর্যায়ে অশালীন মন্তব্য করেন। ছাত্রীরা বিষয়টির প্রতিবাদ করলে মোহসিনা তাদের হল থেকে বের করে দেয়ার হুমকিও দেন।

এদিকে অভিযোগের বিষয়ে হলসুপার মোহসিনা পারভীন বলেন, ‘হল থেকে যেভাবে নির্দেশনা দেয়া হয়, আমি সেই নির্দেশনা অনুযায়ী কাজ করি। কেউ দেরিতে এলে খাতায় স্বাক্ষর করে হলে ঢুকতে দেয়া হয়। কাউকে হয়রানি করা হয় না।’

তবে প্রহরী মোস্তাক বিষয়টি নিয়ে কোনো মন্তব্য করতে রাজি হননি।

হল প্রাধ্যক্ষ অধ্যাপক ফাহিমা খাতুন বলেন, ‘আমি ছাত্রীদের সঙ্গে কথা বলেছি। তাদের অভিযোগ শুনেছি। হলটি নতুন। তাই কিছু সীমাবদ্ধতাও রয়েছে। তবু প্রশাসনের সঙ্গে কথা বলে সমস্যাগুলো সমাধানে দ্রুত ব্যবস্থা নেয়া হবে।’ সূত্র: যুগান্তর।

সংবাদটি সম্পর্কে আপনার বস্তুনিষ্ট মতামত প্রকাশ করুন

টি মন্তব্য

সংবাদটি শেয়ার করুন

Developed by: