শুক্রবার, ২২ মার্চ ২০১৯ খ্রীষ্টাব্দ | ৮ চৈত্র ১৪২৫ বঙ্গাব্দ
সর্বশেষ সংবাদ
সিলেটে নির্মাণ হতে যাচ্ছে স্মৃতিসৌধ,পররাষ্ট্রমন্ত্রীর ডিও লেটার  » «   সুখী দেশের তালিকায় বাংলাদেশের ১০ ধাপ অবনতি  » «   জাফর ইকবালকে হত্যাচেষ্টা মামলায় সাক্ষ্যগ্রহণ শুরু  » «   আইডিয়া’র ২৫ বছর পূর্তি উৎসবে র‍্যালি, আলোচনাসভা ও সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান  » «   উন্নয়ন করতে গিয়ে জীবন ও জীবিকার যেন ক্ষতি না হয় : প্রধানমন্ত্রী  » «   আজ দিন রাত সমান, আকাশে থাকবে সুপারমুন  » «   সহকর্মীর হাতে খুন হলেন তিন ভারতীয় সেনা  » «   মসজিদে হামলাধারী ব্রেন্টন আইএস থেকে ভিন্ন কিছু নয়: এরদোগান  » «   সিলেটে মেশিনে আদায় হবে যানবাহনের মামলার জরিমানা  » «   গ্যাসের দাম ১৩২% বৃদ্ধির প্রস্তাব হাস্যকর  » «   মেয়রের আশ্বাসে ২৮ মার্চ পর্যন্ত আন্দোলন স্থগিত  » «   দরিদ্র বলে এদেশে কিছু থাকবে না : প্রধানমন্ত্রী  » «   এক সপ্তাহের মধ্যে আবরারের পরিবারকে ১০ লাখ টাকা ক্ষতিপূরণ দেওয়ার নির্দেশ  » «   গুলিবিদ্ধ বাংলাদেশি ওমরের মুখে মসজিদে হামলার লোমহর্ষক বর্ননা…  » «   আজ প্রয়াত রাষ্ট্রপতি জিল্লুর রহমানের মৃত্যুবার্ষিকী,আ. লীগের শ্রদ্ধা  » «  

হলফনামার তথ্য: বছরে ৩০ লাখ টাকার রেমিট্যান্স পান স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী



নিউজ ডেস্ক:: বছরে প্রায় ৩০ লাখ টাকার রেমিট্যান্স পান স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খান কামাল। একাদশ সংসদ নির্বাচনে ঢাকা-১২ আসন থেকে নির্বাচিত এই সাংসদের পেশা রাজনীতি ও সমাজসেবা বলে তিনি হলফনামায় উল্লেখ করেছেন।

কোটি টাকার ওপরে সম্পদের মালিক এই রাজনীতিক বাড়ি ভাড়া থেকে বছরে আয় করেন তিন লাখ ৬০ হাজার টাকা। ব্যবসা থেকে নিজের কোনো আয় না থাকলেও তার স্ত্রীর আয় ৪৯ লাখ ২২ হাজার ৪৮২ টাকা।

হলফনামা অনুযায়ী মন্ত্রী হিসেবে বেতন ভাতা খাতে তার নিজের আয় রয়েছে ২৩ লাখ ২৭ হাজার ৫৮০ টাকা এবং চাকরি থেকে তার স্ত্রীর আয় এক লাখ ৮০ হাজার টাকা। শেয়ার, সঞ্চয়পত্র ও ব্যাংক আমানতে নিজের আয় সাত লাখ ৬১ হাজার ৫৬১ টাকা এবং স্ত্রীর এক লাখ ৬৩ হাজার ১৪ টাকা।

এছাড়া মুক্তিযোদ্ধা ভাতা ও ফরেন রেমিট্যান্স খাতে তার নিজের আয় ৩০ লাখ ৩০ হাজার টাকা এবং স্ত্রীর আয় আট লাখ ২০ হাজার টাকা। স্থানীয় সূত্রে জানা গেছে, অস্ট্রেলিয়া প্রবাসী একমাত্র ছেলের কাছ থেকে তিনি এই রেমিট্যান্স পান।

স্বরাষ্ট্রমন্ত্রীর স্থাবর সম্পদের মধ্যে কৃষি জমির পরিমাণ ৪৭১ দশমিক ৫ শতাংশ যার অর্জনকালীন মূল্য ৫৫ লাখ ৯৫ হাজার ৮৫০ টাকা। অকৃষি জমি নিজ নামে সাড়ে ১৮ কাঠা মূল্য ৫৮ লাখ ৫০ হাজার টাকা; স্ত্রীর নামে ১৩৪ অযুতাংশ, যার মূল্য ৩১ লাখ ৬২ হাজার ৫০০ টাকা। এ ছাড়া নিজ নামে বাড়ি বা অ্যাপার্টমেন্টের মূল্য ১২ লাখ ৯৭ হাজার ৭০০ টাকা।

অস্থাবর সম্পদের মধ্যে তার হাতে নগদ টাকা রয়েছে দুই লাখ ৭০ হাজার ৬৮৫ টাকা; স্ত্রীর হাতে ৩৯ লাখ ৩৬ হাজার ৩৪৬ টাকা। ব্যাংকে জমাকৃত অর্থের পরিমাণ এক কোটি ৪৪ লাখ ৫৩ হাজার ১৬২ টাকা; স্ত্রীর নামে ১২ লাখ ৬৫ হাজার ১৭৮ টাকা। বন্ড, ঋণপত্র বা শেয়ার রয়েছে নিজের ২৩ লাখ ৯৭ হাজার ৭০০ টাকার; স্ত্রীর ২৩ লাখ ১৯ হাজার ৭০০ টাকার।

সঞ্চয়পত্র বা স্থায়ী আমানতে বিনিয়োগ এক কোটি ৫৬ লাখ ৮০ হাজার ২৩৫ টাকা; স্ত্রীর নামে ৩০ লাখ ৮২ হাজার ৮২৬ টাকা। এমপি কোটায় দুটি গাড়ির মূল্য দেখিয়েছেন, ৪১ লাখ ৭৮ হাজার ৮০৫ টাকা এবং ৭৩ লাখ টাকা। স্বর্ণ নিজের ১০ ভরি ও স্ত্রীর ২০ ভরি। এ ছাড়া দুই লাখ টাকার আসবাবপত্র ও ইলেক্ট্রনিক্স সামগ্রী রয়েছে।

সংবাদটি সম্পর্কে আপনার বস্তুনিষ্ট মতামত প্রকাশ করুন

টি মন্তব্য

সংবাদটি শেয়ার করুন

Developed by: