মঙ্গলবার, ১৯ সেপ্টেম্বর ২০১৭ খ্রীষ্টাব্দ | ৪ আশ্বিন ১৪২৪ বঙ্গাব্দ
সর্বশেষ সংবাদ
পর্নোগ্রাফির মামলা নিয়ে ভাবছেন না কুসুম শিকদার  » «   ডেঙ্গু জ্বরে আক্রান্ত আশরাফুল  » «   ভুয়া মুক্তিযোদ্ধা সন্তান পরিচয় দিয়ে পুলিশ কনস্টেবল পদে চাকুরী  » «   মানববন্ধনে রিজভীচাল নেই: সরকারি গোডাউনে ইঁদুর খেলা করছে  » «   নতুন বিয়ে নিয়ে মুখ খুললেন ময়ূরী  » «   ‘যৌন নিপীড়ন বন্ধে বাংলাদেশ জিরো টলারেন্স নীতি নিয়েছে’  » «   মৌলভীবাজারে অং সান সুচির কুশপুত্তলিকা দাহ  » «   ইংলিশ মিডিয়ামে পড়ুয়াদের অভিভাবকের নাম অন্তর্ভুক্তি চেয়ে রিট  » «   পদ্মায় নিখোঁজ কনস্টেবলের মরদেহ ২৪ ঘন্টায় উদ্ধার হয়নি  » «   রাজধানীর পানিতে ঝুঁকিপূর্ণ জীবন  » «   উপজেলা পর্যায়ে চালু হচ্ছে ওএমএস  » «   ‘মধ্যরাতে আমাকে ঘিরে ধরে মাতালেরা, এরপর শুরু করে…’  » «   ভদ্র চালকদের জন্য পুরস্কার  » «   শাহজালালে সিগারেটসহ ৬ ভারতীয় নাগরিক আটক  » «   ৮ সন্তানকে আনতে পেরেছি আরেকজন জেলে  » «  

স্বামী ও ৪ সন্তানের তথ্য ফাঁসনতুন বরকে নিয়ে উধাও মালেশিয়ান সেই ৪ সন্তানের মা



সজল আহমেদ,সখীপুর থেকে:প্রেমের টানে বাংলাদেশে আসা মালেশিয়ান তরুণী জুলিজা বিনতে কামিসের (৩২) পূর্বের স্বামী ও ৪ সন্তানের খবর প্রকাশ হওয়ায় নতুন স্বামী মনিরুল ইসলামকে নিয়ে আত্মগোপনে রয়েছেন তাঁরা।

শনিবার (২৬ আগস্ট) দুপুরে মনিরুলের বাড়ি সখীপুর পৌরসভার ২ নম্বর ওয়ার্ডে ও মামার বাড়ি পৌরসভার ৯ নম্বর ওয়ার্ডের বাসায় খোঁজ নিতে গেলে তারা সকাল থেকে ওই মালেশিয়ান তরুণী ও মনিরুলকে পাওয়া যাচ্ছেনা বলে জানান। পরে মনিরুলের মোবাইল ফোনের নম্বরে বার বার ফোন করেও ফোনটি বন্ধ পাওয়া যায়।

এবিষয়ে মনিরুলের বাবা ঈমান আলী বলেন, মনিরুল বউমাকে নিয়ে সকাল থেকে কোথায় আছে বলতে পারিনা। তাদের মোবাইল ফোন বন্ধ রয়েছে।

মনিরুলের মামা সিরাজুল ইসলাম বলেন, মনিরুল তার বউকে নিয়ে সকালে বাসা থেকে ঢাকা যাওয়ার উদ্দেশ্যে বের হয়। তার পর থেকে তাদের মোবাইল ফোন বন্ধ রয়েছে।

এ ব্যাপারে সখীপুর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মাকছুদুল আলম বলেন, এ বিষয়টি আমার জানা নেই।

উল্লেখ্য, ‘প্রেমের টানে মালয়েশিয়ান তরুণী বাংলাদেশে’ এই শিরোনামে শুক্রবার (২৬ আগস্ট) একটি সংবাদ প্রকাশ করে। এরপর মালয়েশিয়া থেকে অফিসে ফোন করে জুলিজাকে নিজের স্ত্রী দাবি করে তার আগের ৪ সন্তানের ছবিসহ বিস্তারিত তথ্য পাঠান মো: আজগর আলী। পরে ‍‍‌‘মালয়েশিয়া থেকে আসা তরুণী ৪ সন্তানের মা’ শিরোনাম আরও একটি সংবাদ প্রকাশ করে।

জুলিজার আগের স্বামী মো: আজগর আলী জানান, জুলিজার সাথে আমার ৫০ হাজার টাকা দেন মোহরে বিয়ে হয়। সে আসার সময় প্রায় ২ লক্ষ টাকা (বাংলাদেশ) নিয়ে আসেন। গত ৪ দিন আগে আমি ব্যবসায়িক কারণে বাসার বাহিরে থাকলে জুলিজা বাংলাদেশে চলে আসে। জুলিজার সর্বশেষ সন্তানের বয়স ১ বছর। এদিকে জুলিজার বাবা-মা বাংলাদেশে আসার প্রস্তুতি নিচ্ছেন বলে জানা গেছে।

মো: আজগর আলীর বাড়ি রাজধানীর ঝিগাতলায়। ১৯৯৬ সালে জীবিকা নির্বাহের জন্য মালয়েশিয়ায় পারি জমান তিনি। সেখানে পরিচয় হয় জুলিজার সাথে। এরপর তারা ধর্মীয় রীতিমত বিবাহ বন্ধনে আবদ্ধ হন। তাদের সেই সংসারে ৪ টি ফুটফুটে সন্তান আসে। সেই সন্তান এবং স্বামীকে ফেলেই বাংলাদেশে চলে আসেন লিজা।

জুলিজা শুক্রবার (২৫ আগস্ট) ঢাকা হযরত শাহজালাল আন্তজার্তিক বিমান বন্দরে এসে নামেন। সেখান থেকে তার প্রেমিক মনিরুল ইসলামের সঙ্গে ছুটে যান টাঙ্গাইলের সখীপুরে। শুক্রবার সন্ধায় আনুষ্ঠানিকভাবে তাদের বিয়ে দেয় মনিরুলের পরিবার।

এদিকে জুলিজার পরিবার দাবি জানিয়ে বলেন, মনিরুল ইসলাম মালেশিয়ায় গিয়ে জুলিজাকে বাংলাদেশে নিয়ে আসেন। মালেশিয়ান বাংলাদেশী এমব্যাসি সূত্রের বরাত দিয়ে তারা এ দাবি জানান।

মনিরুলের পরিবার সূত্রে জানা যায়, ছয় মাস আগে মালয়েশিয়ান যুবতী জুলিজা বিনতে কামিসের সঙ্গে ফেসবুকে সম্পর্ক হয় মনিরুলের। মনিরুল সখীপুরের সরকারি মুজিব কলেজের মানবিক বিভাগের দ্বিতীয় বর্ষের শিক্ষার্থী। এক পর্যায়ে তাদের মধ্যে প্রেমের সম্পর্ক গড়ে ওঠে। আর সেই প্রেমের টানেই মালয়েশিয়া শহরের বিশিষ্ট ব্যবসায়ী জুলিজা বিনতে কাসিম মনিরুলকে বিয়ে করার প্রস্তাব দেন।

নতুন বিয়ের পর জুলিজা বলেন, এদেশের প্রকৃতি ও মানুষকে তার খুব ভালো লেগেছে। খাবার খেতে তার কিছুটা সমস্যা হলেও শ্বশুর বাড়ির লোকজনের আন্তরিকতায় সে মুগ্ধ। সে আরও জানায়, দেশে ফিরে গিয়ে বিয়ের বিষয়টি তার পরিবারকে জানাবেন এবং মনিরুলকে মালয়েশিয়া নিয়ে যাবেন।

মনিরুল জানায়, ‘আমি জুলিজাকে পেয়ে খুবই আনন্দিত। বিশ্বাস করতে পারেনি জুলিজা তার ভালোবাসার টানে বাংলাদেশে আসবে। মনিরুলের মা মনোয়ারা বেগম জানায়, বিদেশী মেয়েকে ছেলের বউ হিসেবে পেয়ে আমি খুশি।’ বিডি২৪লাইভ

সংবাদটি সম্পর্কে আপনার বস্তুনিষ্ট মতামত প্রকাশ করুন

টি মন্তব্য

সংবাদটি শেয়ার করুন

Developed by: