শনিবার, ২৪ অগাস্ট ২০১৯ খ্রীষ্টাব্দ | ৯ ভাদ্র ১৪২৬ বঙ্গাব্দ
সর্বশেষ সংবাদ
তিন সিটিতে বিএনপির মেয়র প্রার্থী যারা  » «   ইতিহাসের পুনরাবৃত্তি: চিদম্বরমের সময় অমিত, অমিতের সময় চিদম্বরম গ্রেপ্তার  » «   অক্টোবর থেকে মোবাইল অ্যাপে মিলবে বিমানের টিকিট  » «   আগামীকাল জুমার নামাজের পর গণবিক্ষোভের ডাক কাশ্মীরিদের  » «   হবিগঞ্জে ডাক্তার পরিচয় দিয়ে নবজাতক চুরি, নারী আটক  » «   কলকাতায় সড়ক দুর্ঘটনায় ২ বাংলাদেশির মৃত্যু, চাঞ্চল্যকর তথ্য প্রকাশ  » «   ভীতি কাটাতে চা বিস্কুট খেতে খেতে ভাইভা দেবেন বিসিএস পরীক্ষার্থীরা  » «   তৃতীয় ড্রিমলাইনার ‘গাঙচিল’ উদ্বোধন করলেন প্রধানমন্ত্রী  » «   রাস্তার পাশে চা বানাচ্ছেন মমতা! ভিডিও ভাইরাল  » «   ঋণের টাকায় ভারত থেকে অস্ত্র কিনবে বাংলাদেশ  » «   কানাইঘাটে মৃত্যুর পাঁচ মাস পর কবর থেকে লাশ উত্তোলন  » «   কাশ্মীরে ফের যুদ্ধবিরতি লঙ্ঘন, গুলি চালিয়েছে পাকিস্তান  » «   রোহিঙ্গা প্রত্যাবাসন শুরু হতে পারে আজ  » «   পুলিশের ছেলে বিশ্বের এক নম্বর ডন  » «   জাহালম কাণ্ড: ১১ তদন্ত কর্মকর্তাদের বিরুদ্ধে দুদকের মামলা  » «  

স্ত্রীকে খুন করতে ছুটি চেয়ে রাষ্ট্রপতি ও প্রধানমন্ত্রীকে চিঠি!



আন্তর্জাতিক ডেস্ক:: স্ত্রীকে ‘খুন’ করতে অফিস থেকে ছুটি চেয়ে রাষ্ট্রপতি ও প্রধানমন্ত্রীকে চিঠি দিয়েছেন ভারতের এক ব্যাংক কর্মকর্তা।বিহার রাজ্যের বক্সার জেলায় দক্ষিণ বিহার গ্রামীণ ব্যাংকের বকসড়া শাখার ম্যানেজার মুন্না প্রসাদের এই আবেদন নিয়ে রীতিমতো হইচই পড়ে গেছে। অবশেষে অফিস কর্তৃপক্ষ তাকে ছুটি দিয়েছে।

আনন্দবাজার পত্রিকা বলছে, কাজের চাপে ছুটি পেতেন না তিনি। বাড়িতে কিডনির অসুখে আক্রান্ত স্ত্রীকে দেখার কেউ নেই। বাধ্য হয়েই স্ত্রীকে ‘খুন করার’ অনুমতি চেয়ে চিঠি লিখলেন। ‘দাহ-সংস্কার’ শেষ করে ফের কাজে যোগ দেবেন বলেও জানালেন তিনি। চিঠির কপি পাঠালেন দেশের রাষ্ট্রপতি এবং প্রধানমন্ত্রীকে। তৎক্ষণাৎ মঞ্জুর ছুটি।

মুন্না প্রসাদ জানিয়েছেন, এর আগে বার বার ব্যাংকের প্রধান কার্যালয়ে ছুটির জন্য আবেদন করেছেন তিনি। স্ত্রীর অবস্থা দিনের পর দিন খারাপ হলেও চিকিৎসার জন্য তাকে ছুটি দেওয়া হচ্ছিল না। এমনকি প্রতিদিন ব্যাঙ্কে হাজির হতে নির্দেশ দেওয়া হচ্ছিল। তাতেই মানসিকভাবে অবসাদগ্রস্থ হয়ে পড়েন তিনি।

শেষ পর্যন্ত গত ১৯ জানুয়ারির আবেদনপত্রে স্ত্রীকে খুন করে দাহ-সংস্কারের জন্যে দুইদিনের ছুটির আবেদন করেন। চিঠি পাওয়ার সঙ্গে সঙ্গে ছুটি মঞ্জুর করে কর্তৃপক্ষ। এরপরই ছুটিতে গিয়েছেন মুন্না প্রসাদ। শিগগিরই কাজে যোগ দেবেন বলেও জানিয়েছেন তিনি।

তবে মুন্না প্রসাদের আবেদনের জেরে ব্যাংক জুড়ে হই হই শুরু হয়েছে। দ্রুত ছুটি মঞ্জুর করে মুন্না প্রসাদকে বাড়ি পাঠিয়েছে কর্তৃপক্ষ। মুন্না প্রসাদের আবেদনে চাপের মুখে ব্যাংকর্তারা। যদিও তাদের বক্তব্য, চাপ তৈরি করে ছুটি নিতে চেয়েছেন ম্যানেজার।

মুন্নার অভিযোগও মানতে চাননি ব্যাংকের সংশ্লিষ্ট জোনাল ম্যানেজার যোগেন্দ্রনাথ সিংহ। তিনি বলেন, মুন্না প্রসাদ যখনই ছুটির আবেদন করেছেন তা মঞ্জুর করা হয়েছে। এবারেও তাই হয়েছে। তবে চিঠিতে তিনি এমন কেন লিখলেন তা জানি না। পারিবারিক পরিস্থিতির কথা উল্লেখ করে তিনি যদি ট্রান্সফার চান তাহলে তা বিচার করা হবে।’

ব্যাংকের এক সূত্র স্বীকার করেছে, এমনিতেই কর্মী সংখ্যা কম। তার ওপরে ধান কেনার মৌসুম চাপ থাকে। সে কারণে কয়েক মাস ধরেই ব্যাংকে অলিখিত ছুটি না নেওয়ার নিয়ম চালু করা হয়েছিল। তার জেরে সবচেয়ে বেশি সমস্যায় পড়ছিলেন শাখার কর্মীরা। আর তাতেই ক্ষুব্ধ হয়ে এমন কাণ্ড ঘটিয়েছেন মুন্না।

সংবাদটি সম্পর্কে আপনার বস্তুনিষ্ট মতামত প্রকাশ করুন

টি মন্তব্য

সংবাদটি শেয়ার করুন

Developed by: