মঙ্গলবার, ১৮ সেপ্টেম্বর ২০১৮ খ্রীষ্টাব্দ | ৩ আশ্বিন ১৪২৫ বঙ্গাব্দ
সর্বশেষ সংবাদ
বুধবার সিলেটে সংস্কারকৃত শিশু আদালতের উদ্বোধন  » «   আজ হবিগঞ্জের লাখাই কৃষ্ণপুর গণহত্যা দিবস  » «   বুধবার মৌলভীবাজারে অর্ধদিবস হরতালের ডাক, প্রতিহতের ঘোষণা আ. লীগের  » «   গোলাপগঞ্জ পৌরসভা মেয়র উপ-নির্বাচন: প্রতীক বরাদ্দ আজ  » «   কারগারে মালির কাজ করছেন রাগীব আলী, ডিভিশনের আবেদন  » «   ২১ আগস্ট গ্রেনেড হামলা মামলার রায় ১০ অক্টোবর  » «   কোটা ইস্যুতে আন্দোলনকারী ও ছাত্রলীগের পাল্টাপাল্টি মিছিল  » «   আশুরা উপলক্ষে সুনির্দিষ্ট হুমকি নেই: ডিএমপি কমিশনার  » «   একনেকে অনুমোদন পেলো ইভিএম কেনা প্রকল্প  » «   জাতীয় নির্বাচনের তফসিল ঘোষণা বন্ধের নির্দেশনা চেয়ে রিট  » «   ৫৬৮ কেজির লাড্ডু দিয়ে পালিত হল মোদির জন্মদিন  » «   দেশের সব নাগরিককে অধিকার রক্ষায় সক্রিয় হতে হবে-ড. কামাল  » «   ঐতিহাসিক পিয়ংইয়ং সফরে সস্ত্রীক প্রেসিডেন্ট মুন  » «   ২০১৭-১৮ অর্থবছরে জিডিপির প্রবৃদ্ধি ৭.৮৬%  » «   মাদরাসা শিক্ষকের স্ত্রী ও ছাত্রকে গলাকেটে হত্যা  » «  

সোনাইমুড়ী অন্ধকল্যাণ সমিতি আই হসপিটাল চালু



noakhali20161106160314দীর্ঘ ৪০ বছর পর নোয়াখালীর সোনাইমুড়ী উপজেলায় নির্মিত ‘সোনাইমুড়ী অন্ধকল্যাণ সমিতি আই হসপিটাল’র আউটডোর চিকিৎসা সেবা চালু হয়েছে।

উপজেলার পাপুয়া গ্রামে নির্মিত এ হসপিটালে শনিবার সকাল ১০টায় মিলাদ ও দোয়ার মধ্যে দিয়ে চালু হয় সেবা কার্যক্রম।

এ সময় অন্যান্যদের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন, অন্ধ কল্যাণ সমিতির ভারপ্রাপ্ত সভাপতি মমিনুল ইসলাম বাকের, প্রতিষ্ঠাতা সাধারণ সম্পাদক মুক্তিযোদ্ধা গোলাম মোস্তফা ভূঁইয়া, প্রকল্প পরিচালক আবদুর রহমান, হসপিটালের পরিচালক ডা. আলতাফ হোসাইন শরীফ, সমিতির মনিন্দ্র কুমার মজুমদার, আবুল বাসার, ডা. মো. মোস্তফা, হোসেন মোল্লা, ডা. উত্তম কুমার মজুমদার প্রমুখ।

হসপিটালের পরিচালক ও কনসালটেন্ট চুক্ষ বিশেষজ্ঞ ডা. আলতাফ হোসাইন শরীফ জাগো নিউজকে বলেন, অত্যাধুনিক যন্ত্রপাতি সম্বলিত এ হাসপাতালে এখন থেকে শুক্রবার ব্যতিত সকাল ৮টা থেকে দুপুর ২টা পর্যন্ত আউটডোর (বহির্বিভাগ) চিকিৎসা সেবা দেয়া হবে। পর্যায়ক্রমে ইনডোর (আন্তঃবিভাগ) চালু করা হবে এবং সকল চোখের সকল প্রকার চিকিৎসা দেয়া হবে।

তিনি আরো বলেন, দরিদ্র রোগীদের সম্পূর্ণ বিনামূল্যে চিকিৎসা দেয়া হবে। এছাড়া মুক্তিযোদ্ধাদের ক্ষেত্রে কোনো প্রকার ফি নেয়া হবে না।

সমিতির প্রতিষ্ঠাতা সাধারণ সম্পাদক মুক্তিযোদ্ধা গোলাম মোস্তফা ভূঁইয়া বলেন, ‘সেবাই মানুষকে মহৎ করে’ স্লোগান নিয়ে ১৯৭৮ সালে কয়েকজন মহৎ মানুষের উদ্যোগে সোনাইমুড়ী অন্ধ কল্যাণ সমিতি প্রতিষ্ঠা করা হয়।

অরাজনৈতিক সংগঠন হিসেবে সোনাইমুড়ী অন্ধ কল্যাণ সমিতি সমাজের কিছু মহান মানুষের অনুদান নিয়ে পথ চলা শুরু করে। সমাজ কল্যাণ মন্ত্রণালয় ও সোনাইমুড়ী অন্ধ্য কল্যাণ সমিতির যৌথ অর্থায়নে আধুনিক চক্ষু হাসাপাতালটি নির্মাণ করা হয়েছে। এটি পুরোদমে চালু হলে (নোয়াখালী-ফেনী ও লক্ষীপুর) ও কুমিল্লার জেলার কিছু অংশ নিয়ে প্রায় ৪০ লাখ লোকের বিনামূল্যে চোখের চিকিৎসা দেয়া সম্ভব হবে।

 

সংবাদটি সম্পর্কে আপনার বস্তুনিষ্ট মতামত প্রকাশ করুন

টি মন্তব্য

সংবাদটি শেয়ার করুন

Developed by: