শনিবার, ২৬ মে ২০১৮ খ্রীষ্টাব্দ | ১২ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৫ বঙ্গাব্দ
সর্বশেষ সংবাদ
মিয়ানমারের ওপর অবরোধ আরোপের সুপারিশ কানাডিয়ান দূতের  » «   সালমান খানের সঙ্গে শাকিব খানের তুলনা করলেন পায়েল  » «   বিশ্বকাপ মিশনে নামার আগে মক্কায় পগবা  » «   সিটি নির্বাচনের প্রচারে এমপিরা কি অংশ নিতে পারবেন?  » «   তালিকা অনুযায়ী সবাইকে ধরা হবে: স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী  » «   আমজাদ হোসেনের জার্মানি পতাকা এবার সাড়ে পাঁচ কিলোমিটার  » «   ভক্তদের প্রশ্নের জবাব দিয়ে কক্সবাজার ছাড়লেন প্রিয়াঙ্কা  » «   জাপানে বন্ধুর ক্লাবই নতুন ঠিকানা ইনিয়েস্তার  » «   মুক্তামনির মৃত্যুতে প্রধানমন্ত্রীর শোক  » «   ‘ভারত থেকে এক বালতি পানিও আনতে পারেননি প্রধানমন্ত্রী’-রিজভী  » «   চৌদ্দগ্রামে ‘বন্দুকযুদ্ধে’ মাদক বিক্রেতা নিহত  » «   জবিতে কোটা সংস্কার আন্দোলন নেতার ওপর হামলা  » «   নারীর মন-শরীর নিয়ন্ত্রণ করে পুরুষ আধিপত্য চায়: বিদ্যা  » «   আখাউড়ায় হচ্ছে ইন্টিগ্রেটেড চেকপোস্ট  » «   ২১ ঘণ্টা রোজা রাখছেন ৪ দেশের ধর্মপ্রাণ মুসলমান!  » «  

সেই ‘বড় আম্মা’ রিমান্ডে!



নিউজ ডেস্ক::বারবার চালান ধরলেই যার নাম আসতে থাকে। দীর্ঘ দিনের গোয়েন্দা তথ্যের ভিত্তিতে পুলিশ জানতে পারে গত রোববার বাংলাদেশ বিমানের একটি ফ্লাইটে কক্সবাজার থেকে ঢাকায় আসেন ‘বড় আম্মা’। ইয়াবার বিশাল ব্যাবসার নিয়ন্ত্রণ করে সাঙ্গপাঙ্গদের মধ্যে ‘বড় আম্মা’ নামে পরিচিতি পাওয়া টেকনাফের আয়েশা বেগমকে (৪২) বৃহস্পতিবার (১৭ মে) দুই দিনের রিমান্ডে নিয়েছে পুলিশের কাউন্টার টেররিজম অ্যান্ড ট্রান্সন্যাশনাল ক্রাইম ইউনিট।

রাজধানীর কদমতলী থানার একটি মামলায় আয়েশা এবং তার দুই সহযোগী নূরী আয়েশা এবং রিপনকেও রিমান্ডে নিয়ে জিজ্ঞাসাবাদ করছে পুলিশ।

সংশ্লিষ্ট সূত্র জানায়, জিজ্ঞাসাবাদে এরই মধ্যে আয়েশার কাছ থেকে কক্সবাজার ও ঢাকাকেন্দ্রিক মাদক ব্যবসায়ীদের ব্যাপারে বেশ কিছু তথ্য জানতে পেরেছে পুলিশ। মোহাম্মদপুরে জেনেভা ক্যাম্পের যেসব গ্রুপ তার কাছ থেকে ইয়াবা নিয়ে বিক্রি করে আসছিল, তাদের নাম-পরিচয় জানিয়েছেন তিনি। জেনেভা ক্যাম্পের বাচ্চু, সাকিল ও পচিশের ব্যাপারে তার কাছে তথ্য পাওয়া গেছে। এমনকি খুচরা মাদক ব্যবসায়ীদের একটি বিশাল তালিকাও কথিত এই বড় আম্মার কাছ থেকে পেয়েছে পুলিশ।

কাউন্টার টেররিজম বিভাগের এডিসি রহমত উল্লাহ চৌধুরী জানান, ‘বড় আম্মা’র চক্রের আরও কয়েকজনের ব্যাপারে সুনির্দিষ্ট তথ্য পাওয়া গেছে। শিগগিরই তাদেরকে গ্রেপ্তার করা হবে।

এর আগে গত রোববার বাংলাদেশ বিমানের একটি ফ্লাইটে কক্সবাজার থেকে ঢাকায় আসেন ‘বড় আম্মা’। কাশিমপুর ও কেরানীগঞ্জ কারাগারে গিয়ে স্বজন হিসেবে তার সাঙ্গপাঙ্গদের সঙ্গে দেখা করেন। তার দলের যারা এরই মধ্যে ইয়াবাসহ গ্রেপ্তার হয়ে কারাগারে আছে তাদের আর্থিক সহায়তা ও কেনাকাটা করে দিয়ে আসেন তিনি। এমনকি কারাবন্দি ইয়াবা ব্যবসায়ীদের দ্রুত জামিন করিয়ে কারাগার থেকে বের করে আনার আশ্বাসও দেন ‘বড় আম্মা’। কক্সবাজার থেকে ঢাকায় এসে ইয়াবা ব্যবসায়ীদের সহায়তা করতে গিয়ে শেষ পর্যন্ত গত বুধবার পুলিশের হাতে গ্রেপ্তার হন তিনি।

পুলিশ জানায়, ২০১১ সাল থেকে টেকনাফ ও কক্সবাজারে বসে রাজধানী সহ আশপাশের এলাকায় প্রতি মাসে লাখ লাখ ইয়াবা ট্যাবলেট সরবরাহ করে আসছিলেন তিনি।

সংবাদটি সম্পর্কে আপনার বস্তুনিষ্ট মতামত প্রকাশ করুন

টি মন্তব্য

সংবাদটি শেয়ার করুন

Developed by: