মঙ্গলবার, ১৬ অক্টোবর ২০১৮ খ্রীষ্টাব্দ | ১ কার্তিক ১৪২৫ বঙ্গাব্দ
সর্বশেষ সংবাদ
খাশোগি হত্যা বনাম সৌদি যুবরাজের কালো অধ্যায়  » «   অপারেশন ‘গর্ডিয়ান নট’ সমাপ্ত, দুই জঙ্গির মরদেহ উদ্ধার  » «   ২০ দলীয় জোট থেকে বেরিয়ে গেল ন্যাপ ও এনডিপি  » «   মতবিরোধ থাকলেও সুষ্ঠুভাবে নির্বাচন পরিচালনা সম্ভব: সিইসি  » «   সিলেটে জনসভার মধ্যেদিয়ে জাতীয় ঐক্যফ্রন্টের আনুষ্ঠানিক যাত্রা  » «   সৌদির প্রশিক্ষণ বিমান বিধ্বস্ত, সব ক্রু নিহত  » «   ডিজিটাল আইনের ৯টি ধারা সংশোধন চেয়ে আইনি নোটিশ  » «   ট্রাম্পের বিরুদ্ধে স্টর্মির মানহানি মামলা খারিজ  » «   জঙ্গি আস্তানায় অভিযান শুরু,দফায় দফায় আসছে গুলির শব্দ  » «   সাত বছরেও চালু হয়নি হাসপাতালের কার্যক্রম  » «   হযরত মুহাম্মাদ (সা:) কে নিয়ে যা বললেন মমতা ব্যানার্জী  » «   নির্বাচন কমিশন তো জাতিসংঘের নিরাপত্তা পরিষদ নয় : কাদের  » «   জিয়া চ্যারিটেবল ট্রাস্ট মামলার রায় ২৯ অক্টোবর  » «   মির্জাপুরে ট্রাক উল্টে একই পরিবারের ৩ জন নিহত  » «   আস্তানায় বেশ কয়েকজন জঙ্গি ও গোলাবারুদ রয়েছে: সিটিটিসি প্রধান  » «  

সুধীরের খেলা দেখার ব্যবস্থা করলেন পাকিস্তানের সেই ‘চাচা’



স্পোর্টস ডেস্ক:: ভারত-পাকিস্তানের মহারণের বাকি কয়েক ঘণ্টা। কিন্তু তার আগেই মাঠের বাইরে ম্যাচের বিজয় নির্ধারিত হয়ে গেল। ভারত ও পাকিস্তান দু’দলই সেখানে জয়ী। সৌজন্য ও সম্প্রীতির মোড়কে বাঁধা পড়ে গেল দুই প্রতিবেশী দেশই।

শচীন টেন্ডুলকারের অঘোষিত ‘ফ্যান নম্বর ওয়ান’ সুধীর গৌতমের কাছে টাকাই ছিল না আরব আমিরাতে গিয়ে ভারত-পাকিস্তানের ক্রিকেট ম্যাচ উপভোগ করার। তবে শেষ পর্যন্ত সুধীরকে ম্যাচ দেখতে যাওয়ার সমস্ত বন্দোবস্ত করে দিচ্ছেন পাকিস্তানের ‘চাচা’।

ওয়াসিম আকরাম থেকে সরফরাজ খানের হাত ধরে পাকিস্তান ক্রিকেট পেরিয়ে এসেছে বহু পথ। মাঠে সবুজ জার্সিতে চির পরিচিত ক্রিকেটাররা নামলেই গ্যালারিতে হিল্লোল তোলেন বশির ‘চাচা’। ‘চাচা’ই হয়ে উঠেছিলেন পাকিস্তানি সমর্থকদের মুখ, ঠিক সুধীর গৌতমের মতোই। ক্রিকেট ময়দানে তিনি পরিচিত আবার ‘চাচা চিকাগো’ নামেও।

সেই চাচা-র সৌজন্যেই এবার দুবাইয়ের বিমানে উঠলেন সুধীর। অর্থের কোনও সংস্থানই ছিল না সুধীরের কাছে। প্রায় সমস্ত আশা যখন শেষ হতে চলেছে, তখনই সুধীরকে ফোন করেন বশির চাচা। জানতে চান প্রিয় বন্ধুর অবস্থা। সুধীর নিজের আর্থিক দুরবস্থার কথা জানান পাকিস্তানি বন্ধুকে।

বন্ধুর আর্থিক অবস্থার কথা শুনে আর দেরি করেননি। সরাসরি বিমানের টিকিট আর প্রয়োজনীয় অর্থের বন্দোবস্ত করে দেন। ভারতের এক প্রচার মাধ্যমে চাচা জানান, ভালোবাসার জন্যই এমন সাহায্য। আল্লার দোয়ায় টাকা আসবে, যাবে। আমি সবকিছু শুনে সুধীরকে বললাম, টাকার সংস্থান হয়ে যাবে। তুমি শুধু এখানে এসো। আমি খুব ধনী নই। তবে আমার হৃদয় সমুদ্রের মতোই বড়। যদি সুধীরকে সাহায্য করি, তাহলে সর্বশক্তিমানই খুশি হবেন।

পরে সুধীর জানান, ভিসা’র বিষয়টি মিটিয়ে ফেলেছি। চাচা’ই আমাকে সমস্ত টিকিটের ব্যবস্থা করে দিয়েছেন। হোটেল, খাবার সমস্ত খরচ চাচাই দিচ্ছেন। জাতীয় দলকে যাতে গ্যালারি থেকে সমর্থন জানাতে পারি, তাই উনি সবকিছু করেছেন।দু’দেশের রাজনৈতিক উত্তাপ থাকতে পারে, মতানৈক্য থাকতে পারে। তবে দু’দেশের মানুষের হৃদয়ও রয়েছে। সুধীর-চাচা এপিসোডেই প্রমাণ।

সংবাদটি সম্পর্কে আপনার বস্তুনিষ্ট মতামত প্রকাশ করুন

টি মন্তব্য

সংবাদটি শেয়ার করুন

Developed by: