বুধবার, ১৮ জুলাই ২০১৮ খ্রীষ্টাব্দ | ৩ শ্রাবণ ১৪২৫ বঙ্গাব্দ
সর্বশেষ সংবাদ
২৭ জুলাই খালেদার মুক্তি দাবিতে জাতিসংঘের সামনে বিক্ষোভ  » «   মৌসুমি বায়ু দুর্বল, বর্ষার বর্ষণ নেই  » «   সিলেটে দুর্ঘটনায় কলেজ ছাত্রের মৃত্যু  » «   হরিণাকুণ্ডুতে র‌্যাবের সাথে ‘বন্দুকযুদ্ধে’ ডাকাত সদস্য নিহত  » «   পুলিশের সোর্স মামুন মাদক ব্যবসায়ীর স্ত্রীকে নিয়ে উধাও  » «   ধর্ষণে অন্তঃসত্ত্বা কিশোরি, সালিসে জরিমানার টাকা ভাগাভাগি!  » «   আইনমন্ত্রীর বাসায় প্রধানমন্ত্রী  » «   ‘এদেরকে নিয়েই মান্না সাহেব দুর্নীতির বিরুদ্ধে যুদ্ধ করিবেন’  » «   রাশিয়ায় বিশ্বকাপ দেখতে গিয়ে পুলিশের জালে বাংলাদেশী যুবক  » «   বিদেশ ও জেল থেকে আন্ডারওয়ার্ল্ড নিয়ন্ত্রণ করছে শীর্ষ সন্ত্রাসীরা  » «   বাংলাদেশে যুক্তরাষ্ট্রের নতুন রাষ্ট্রদূত মনোনীত রবার্ট মিলার  » «   বেবী নাজনীন অসুস্থ, হাসপাতালে ভর্তি  » «   কোটা আন্দোলন: ছাত্রলীগের হুমকিতে ক্যাম্পাস ছাড়া চবি শিক্ষক  » «   ভেবেই ক্লাব বদল করেছেন রোনালদো  » «   ভারতে নিষিদ্ধ, অন্য দেশে পুরস্কৃত যেসব ছবি  » «  

সিরিয়ায় হামলার পরিণতি ভোগ করতে হবে: আমেরিকায় নিযুক্ত রুশ রাষ্ট্রদূত



আন্তর্জাতিক ডেস্ক::আমেরিকায় নিযুক্ত রাশিয়ার রাষ্ট্রদূত আনাতোলি অ্যান্তানভ হুঁশিয়ারি উচ্চারণ করে বলেছেন, সিরিয়ায় সমন্বিত হামলার জন্য আমেরিকা ও তার মিত্রদের পরিণতি ভোগ করতে হবে। এ খবর দিয়েছে পার্সটুডে।

তিনি গতকাল (শুক্রবার) রাতে এক বিবৃতিতে বলেছেন, সিরিয়ায় হামলার জন্য রাশিয়া হুমকি অনুভব করছে এবং মস্কো মনে করে সিরিয়ায় যে রাসায়নিক হামলার কথা বলে সামরিক আগ্রাসন চালানোর সিদ্ধান্ত নেয়া হয়েছে তা ছিল সাজানো নাটক। তিনি জোর দিয়ে বলেন, “পূর্ব-পরিকল্পিত চিত্রের বাস্তবায়ন করা হয়েছে এবং আমরা এতে হুমকি অনুভব করছি। আমরা সতর্ক করছি যে, এ ধরনের হামলার জন্য পরিণতি ভোগ করতে হবে।” অ্যান্তানভ বলেন, “এ হামলার সমস্ত দায়-দায়িত্ব নিতে হবে ওয়াশিংটন, লন্ডন ও প্যারিসকে।”

রাশিয়ার বার বার হুঁশিয়ারি সত্ত্বেও মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প সিরিয়ায় সামরিক হামলা চালানোর নির্দেশ দিয়েছেন। হামলার আগে সিরিয়ায় মোতায়েন রুশ বাহিনীকে কোনো রকমের আগাম খবর দেয়া হয় নি।

প্রেসিডেন্ট ট্রাম্প দাবি করছেন, সিরিয়া যাতে রাসায়নিক অস্ত্রের উৎপাদন, বিস্তার ও ব্যবহার করতে না পারে সেজন্য এই হামলা। এ বক্তব্যের জবাবে রুশ রাষ্ট্রদূত অ্যান্তানভ বলেন, আমেরিকা হচ্ছে রাসায়নিক অস্ত্রের সবচেয়ে বড় মজুদকারী দেশ এবং অন্যকে দোষারোপ করার নৈতিক কোনো অধিকার তার নেই।

রাসায়নিক হামলার ঘটনা খতিয়ে দেখার জন্য সিরিয়ায় যখন আন্তর্জাতিক তদন্ত দল পৌঁছেছে তার কিছুক্ষণ পরই এ হামলা হলো। এর অর্থ হলো আমেরিকা, ব্রিটেন ও ফ্রান্স রাসায়নিক হামলার অভিযোগ করছে কিন্তু আন্তর্জাতিক তদন্তের কোনো গুরুত্ব দিচ্ছে না।

সংবাদটি সম্পর্কে আপনার বস্তুনিষ্ট মতামত প্রকাশ করুন

টি মন্তব্য

সংবাদটি শেয়ার করুন

Developed by: