মঙ্গলবার, ১৯ সেপ্টেম্বর ২০১৭ খ্রীষ্টাব্দ | ৪ আশ্বিন ১৪২৪ বঙ্গাব্দ
সর্বশেষ সংবাদ
পর্নোগ্রাফির মামলা নিয়ে ভাবছেন না কুসুম শিকদার  » «   ডেঙ্গু জ্বরে আক্রান্ত আশরাফুল  » «   ভুয়া মুক্তিযোদ্ধা সন্তান পরিচয় দিয়ে পুলিশ কনস্টেবল পদে চাকুরী  » «   মানববন্ধনে রিজভীচাল নেই: সরকারি গোডাউনে ইঁদুর খেলা করছে  » «   নতুন বিয়ে নিয়ে মুখ খুললেন ময়ূরী  » «   ‘যৌন নিপীড়ন বন্ধে বাংলাদেশ জিরো টলারেন্স নীতি নিয়েছে’  » «   মৌলভীবাজারে অং সান সুচির কুশপুত্তলিকা দাহ  » «   ইংলিশ মিডিয়ামে পড়ুয়াদের অভিভাবকের নাম অন্তর্ভুক্তি চেয়ে রিট  » «   পদ্মায় নিখোঁজ কনস্টেবলের মরদেহ ২৪ ঘন্টায় উদ্ধার হয়নি  » «   রাজধানীর পানিতে ঝুঁকিপূর্ণ জীবন  » «   উপজেলা পর্যায়ে চালু হচ্ছে ওএমএস  » «   ‘মধ্যরাতে আমাকে ঘিরে ধরে মাতালেরা, এরপর শুরু করে…’  » «   ভদ্র চালকদের জন্য পুরস্কার  » «   শাহজালালে সিগারেটসহ ৬ ভারতীয় নাগরিক আটক  » «   ৮ সন্তানকে আনতে পেরেছি আরেকজন জেলে  » «  

‘সিনিয়র সিটিজেন’ মর্যাদা পেল ষাটোর্ধ্ব বয়সের নাগরিকরা



President60ঢাকা: দেশের ষাটোর্ধ্ব বয়সের নাগরিকরা সিনিয়র সিটিজেনের মর্যাদা পেয়েছেন। এঁদেরকে সিনিয়র সিটিজেন হিসেবে ঘোষণা দিয়েছেন রাষ্ট্রপতি মো. আবদুল হামিদ। দেশের এক কোটি ৩০ লাখ প্রবীণ এ বিশেষ মর্যাদা পাচ্ছেন।

বৃহস্পতিবার রাজধানীর ওসমানী স্মৃতি মিলনায়তনে আয়োজিত এক অনুষ্ঠানে তিনি এ ঘোষণা দেন।

এ ঘোষণার ফলে দেশের ১ কোটি ৩০ লাখ সিনিয়র নাগরিক সব ধরনের পরিবহনে কম ভাড়ায় যাতায়াত, হাসপাতালে সাশ্রয়ী মূল্যে আলাদা চিকিৎসাসেবা, আলাদা বাসস্থান সুবিধাসহ বিভিন্ন সরকারি সুবিধা পাবেন। নির্বাচন কমিশন থেকে শিগগিরই বয়স্ক নাগরিকদের আলাদা পরিচয়পত্র দেওয়া হবে।
সমাজকল্যাণ মন্ত্রণালয়ের সূত্র অনুযায়ী, দেশে মৃত্যুহার কমে যাওয়ায় প্রবীণদের সংখ্যা বাড়ছে। ১৯৯০ সালে প্রবীণদের সংখ্যা ছিল ৪ দশমিক ৯৮ শতাংশ। ২০০১ সালে তা বেড়ে ৬ দশমিক ৯৮ শতাংশে দাঁড়ায়। আগামী ২০৫০ সালে প্রবীণদের সংখ্যা বেড়ে মোট জনসংখ্যার ২০ শতাংশ হবে।

এ অবস্থায় প্রবীণদের সিনিয়র সিটিজেনের স্বীকৃতি দিতে ২০১৩ সালের ১৭ নভেম্বর জাতীয় প্রবীণ নীতিমালার খসড়া অনুমোদন করে সরকার। এ লক্ষ্য বাস্তবায়নে জাতীয় অধ্যাপক ডা. এম আর খানকে সভাপতি করে ১০ সদস্যের একটি কোর কমিটি গঠন করা হয়।

সমাজকল্যাণমন্ত্রী সৈয়দ মহসিন আলীর সভাপতিত্বে এ অনুষ্ঠানে আরও উপস্থিত ছিলেন, জাতীয় অধ্যাপক এম আর খান, সমাজকল্যাণ সচিব নাছিমা বেগম, প্রবীণ হিতৈষী সংঘের মহাসচিব এ এস এম আতীকুর রহমান প্রমুখ।

 

সংবাদটি সম্পর্কে আপনার বস্তুনিষ্ট মতামত প্রকাশ করুন

টি মন্তব্য

সংবাদটি শেয়ার করুন

Developed by: