শনিবার, ৩০ মে ২০২০ খ্রীষ্টাব্দ | ১৬ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৭ বঙ্গাব্দ
Sex Cams
সর্বশেষ সংবাদ
পানিতে দাঁড়িয়েই কয়রাবাসীর ঈদের নামাজ  » «   ২৪ ঘণ্টায় করোনা শনাক্তের রেকর্ড, মৃত্যু ৫০০ ছাড়ালো  » «   ফিনল্যান্ডে ভিন্ন আবহে ঈদ উদযাপন  » «   উপকূলে আমফানের আঘাত  » «   করোনা চিকিৎসায় ইতিবাচক ফলাফল দেখতে পেয়েছে বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা  » «   করোনার টিকা আবিষ্কারের দাবি ইতালির বিজ্ঞানীদের  » «   জেলে করোনা আতঙ্কে প্রিন্সেস বাসমাহ  » «   ঘুষের প্রশ্ন কিভাবে আসে, বললেন ওষুধ প্রশাসনের ডিজি  » «   কিশোরগঞ্জে এবার করোনায় সুস্থ হলেন চিকিৎসক  » «   স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয় অজ্ঞতাবশত ভুল বলিয়াছে: ডা. জাফরুল্লাহ  » «   বিশ্বে করোনায় আক্রান্তের সংখ্যা ৩০ লাখ ছাড়িয়েছে  » «   ফ্রান্সে টানা চতুর্থদিন মৃত্যুর রেকর্ড, ৪ হাজার ছাড়াল প্রাণহানি  » «   সিঙ্গাপুরে আরও ১০ বাংলাদেশি করোনায় আক্রান্ত  » «   মিশিগানের হাসপাতালে আর রোগী রাখার জায়গা নেই  » «   ৩ হাসপাতাল ঘুরে চিকিৎসা না পেয়ে স্কুলছাত্রের মৃত্যু  » «  

সিঙ্গাপুরে চলচ্চিত্র উৎসবের উদ্বোধন



darponসৌম্য বন্দ্যোপাধ্যায়, সিঙ্গাপুর: ধুমধামের সঙ্গে উদ্বোধন হলো দর্পণ আন্তর্জাতিক বাংলা চলচ্চিত্র উৎসব। গত বৃহস্পতিবার সন্ধ্যায় গ্র্যান্ড কপথোর্ন ওয়াটারফ্রন্ট হোটেলে বাংলাদেশ, ভারত ও সিঙ্গাপুরের শিল্পী সমাবেশে প্রদীপ জ্বালিয়ে উৎসবের উদ্বোধন করেন সিঙ্গাপুরে নিযুক্ত বাংলাদেশের হাইকমিশনার মাহবুব উজ জামান ও ভারতের ডেপুটি হাইকমিশনার পারমিতা ত্রিপাঠি। উৎসব চলবে ২ নভেম্বর পর্যন্ত।
নাম যদিও ‘বাংলা ফিল্ম ফেস্টিভ্যাল’, দর্পণ কিন্তু শুধু বাংলা ছবিতেই নিজেকে গুটিয়ে রাখেনি। বাংলাদেশ ও ভারতের বাংলা সিনেমার পাশাপাশি এই উৎসবে ভোজপুরি, মারাঠি, তামিল ও হিন্দি সিনেমাও স্থান পেয়েছে। উদ্বোধনে এই উৎসবের চেয়ারপারসন শ্রেয়শী সেন বলেন, ‘দর্পণ চলচ্চিত্র উৎসব এবার তৃতীয় বছরে পা দিল। আগামী দিনে এই উৎসবকে প্রতিযোগিতমূলক করে তোলাই হবে আমাদের লক্ষ্য।’ সিঙ্গাপুর ফিল্ম সোসাইটির চেয়ারম্যান কেনেথ ট্যান জানান, ‘দর্পণ যেভাবে এগোচ্ছে, তাতে আগামী দিনে সিঙ্গাপুর বিশ্ব চলচ্চিত্র উৎসবের অন্যতম ঠিকানা হয়ে উঠবে।’ ট্যানের কথার রেশ টেনেই এই উৎসবের ব্র্যান্ড অ্যাম্বাসেডর অভিনেতা প্রসেনজিৎ চট্টোপাধ্যায়  বলেন, ‘বাংলার গণ্ডি পেরিয়ে দর্পণ ইতিমধ্যে বাংলাদেশ ও ভারতের অন্য প্রান্তের সিনেমাকে সিঙ্গাপুরে টেনে এনেছে। মাত্র তিন বছরে এটা বিরাট সাফল্য। শুধু তাই নয়, এ বছরেই যুক্ত হয়েছে শর্ট ফিল্ম বিভাগ। দারুণ সব কাজ হচ্ছে। মানুষ আগামী দিনে হাতের তালুতে মুঠোফোনে সিনেমা দেখবে। শর্ট ফিল্ম সেই দিনই এগিয়ে আনছে।’
বাংলাদেশ থেকে এবার এসেছে দুটি ছবি। বৃহন্নলা ও সংগ্রাম। উৎসবে যোগ দিতে সিঙ্গাপুরে এসেছেন অভিনেতা ফেরদৌস ও অভিনেত্রী দিলরুবা ইয়াসমিন রুহি। এসেছেন দুই পরিচালক মুরাদ পারভেজ ও মনসুর আলী। ফেরদৌস আগের বছরও সিঙ্গাপুরে এসেছিলেন। দর্পণের অগ্রগতি তাঁকে অবাক করেছে। তিনি জানান, ‘এত কম সময়ে এই অগ্রগতি বিস্ময়ের। আরও অবাক লাগে, যখন শুনি এই বন্দর শহরে বাণিজ্যিকভাবে বাংলা সিনেমা চালানো হচ্ছে। দর্পণের জন্যই তা সম্ভব।’ বৃহন্নলার পরিচালক মুরাদ পারভেজ জানান, ‘সিনেমা এমন একটা মাধ্যম, যার মধ্য দিয়ে অনেক কিছুরই আদান-প্রদান হয়। হানাহানি ও বিদ্বেষের বদলে সুচিন্তা ও ভাবনার বিকাশই ঘটাতে চেয়েছি বৃহন্নলায়।’
নাচে, গানে জমজমাট উদ্বোধন অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন অভিনেতা রাহুল বোস, যীশু সেনগুপ্ত, আশিস বিদ্যার্থী, অঙ্কিতা চক্রবর্তী, পরিচালক অরিন্দম শীল, রবি যাধব, অনিকেত চট্টোপাধ্যায়রা। উৎসবের শুরু সুমন মুখোপাধ্যায় পরিচালিত রাহুল বোস, কঙ্কনা সেন শর্মা, স্বস্তিকা মুখোপাধ্যায় অভিনীত শেষের কবিতা দিয়ে। শেষ ছবি কৌশিক গঙ্গোপাধ্যায়ের অপুর পাঁচালি।

সংবাদটি শেয়ার করুন

Developed by: