বুধবার, ১৬ জানুয়ারী ২০১৯ খ্রীষ্টাব্দ | ৩ মাঘ ১৪২৫ বঙ্গাব্দ
সর্বশেষ সংবাদ
পদ্মা নদীর ওপারেই বঙ্গবন্ধু আন্তর্জাতিক বিমানবন্দর হবে  » «   স্যাটেলাইটে ধরা পড়ল সুন্দরবনের ৪০ একর বন উধাও!  » «   রহস্য খোলাসা করলেন সৌদি থেকে পালিয়ে আসা সেই তরুণী  » «   সংরক্ষিত আসনে মনোনয়ন ফরম কিনলেন তৃতীয় লিঙ্গের ৮ জন  » «   শাস্তির বদলে পদোন্নতি! লেক দূষণ রোধের ৫০ কোটি টাকা নয়ছয়  » «   ব্রিটিশ পার্লামেন্টে ব্রেক্সিট চুক্তি প্রত্যাখ্যান  » «   প্রধানমন্ত্রীর সই জাল করে টাকা আত্মসাৎ!  » «   আন্তর্জাতিক ক্বিরাত সম্মেলন শুরু ৮ ফেব্রুয়ারি  » «   এমপিদের শপথ গ্রহণের বৈধতা চ্যালেঞ্জ করে রিটের শুনানি বুধবার  » «   গায়েবি মামলা বলতে কিছু নেই : স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী  » «   মেধাবীরা আত্মহত্যা করে আর মেধাহীনরা জাতির ভবিষ্যৎ নির্ধারণ করে  » «   ৫০ আসনের ৪৭টিতে অনিয়ম: টিআইবি  » «   টিলাগড় ইকোপার্ক: বাঘ-সিংহ নিয়ে কেবলই আশ্বাস!  » «   কোটা সংস্কার আন্দোলনের চার মামলায় প্রতিবেদন ১৪ ফেব্রুয়ারি  » «   প্রশ্নফাঁস ও কোচিং বাণিজ্য বন্ধসহ ৫ নির্দেশনা দিলেন শিক্ষামন্ত্রী  » «  

সবজির বাজারে আগুন



নিউজ ডেস্ক::রাজধানীর সবজি বাজারে ব্যাপক দাম বৃদ্ধি পেয়েছে। সম্প্রতিক সময়ের টানা বৃষ্টির অজুহাতে এই বাড়িয়েছে পাইকারী বিক্রেতারা। পর্যাপ্ত সরবরাহ থাকলেও ৩৫ থেকে ৪০ টাকার নিচে পাওয়া যাচ্ছে না কোন সবজি। তবে আলুর দাম একটু কম রয়েছে।

রাজধানীর বিভিন্ন বাজার ঘুরে দেখা গেছে, বেগুন প্রতি কেজি ৬০ টাকা, ছোট বেগুন প্রতি কেজি ৪০ টাকা ও কালো বেগুন ৫০ থেকে ৫৫ টাকা, করলা প্রতি কেজি বিক্রি হচ্ছে ৬০ টাকা, পটল বিক্রি হচ্ছে ৫০ টাকা, শিম ৫০ থেকে ৫৫ টাকা, ধুন্দল বিক্রি হচ্ছে ৬০ টাকা, বরবটি বিক্রি ৬০ টাকা, ঢেঁড়স বিক্রি হচ্ছে ৪০ টাকা, মূলা ৪০ থেকে ৫০ টাকা, মিষ্টি আলু ৪০ টাকা, কাঁচা কলা প্রতি হালি ছিল ২৫ টাকা, পেঁপে ৫০ টাকা কেজি দরে বিক্রি হচ্ছে। বাজারে মান ভেদে আলু বিক্রি হচ্ছে ১৬ টাকা থেকে ২০ টাকায়। সালাদের উপকরণ শসা মান ভেদে ৩০ থেকে ৪০ টাকা, লেটুস পাতা ২৫ টাকা আটি, লেবু হালি ১২ থেকে ২০ টাকা, কাঁচা মরিচ প্রতি কেজি ৬০ টাকা দামে বিক্রি হচ্ছে।

শাকবাজারে দাম বৃদ্ধির প্রভাব পড়েনি পাট শাক প্রতি আটি বিক্রি হচ্ছে ৫ টাকায়, লালশাক প্রতি আটি ৫ থেকে ৮ টাকা, কলমি শাক ৫ টাকা আটি, পুঁইশাক আটি ২০ টাকা এবং লাউ শাক আটি ২০ টাকায় বিক্রি হচ্ছে। এদিকে বাজারে তেমন পরিবর্তন আসেনি মাংসের দামে। প্রতি কেজি গরুর মাংস এখনও ৪৫০ টাকা থেকে মানভেদে ৫২০ টাকায় পর্যন্ত বিক্রি হচ্ছে। এছাড়া খাশির মাংস ৭৫০ থেকে ৮০০ টাকা এবং ফার্মের মুরগি ১৫০ থেকে ১৫৫ টাকা কেজি, ব্রয়লার প্রতি কেজি ১৮০ টাকা ও পাকিস্তানি কর্ক প্রতি হালি ৮০০ থেকে ১২ শত টাকায় বিক্রি হচ্ছে।

এদিকে বাজারে প্রতি কেজি তেলাপোয়া, পাঙ্গাস বা সিলভারের মত মাছ ১২০ টাকা থেকে ১৫০ টাকা দরে কেজি। আর দেশি কই, বোয়াল, কাজলী বা টেংরা কিনতে হলে গুনতে হবে ৪০০ টাকা থেকে ৫৫০ টাকা, বড়-মাঝারি রুই, কাতল বা মৃগেল ২২০ টাকা থেকে ৩২০ টাকা পর্যন্ত দামে বিক্রি হচ্ছে। এছাড়া বাজারে ৬০০ থেকে ৭০০ গ্রাম ওজনের ইলিশের হালি আড়াই হাজার থেকে তিন হাজার টাকা।

সংবাদটি সম্পর্কে আপনার বস্তুনিষ্ট মতামত প্রকাশ করুন

টি মন্তব্য

সংবাদটি শেয়ার করুন

Developed by: