সোমবার, ১৪ অক্টোবর ২০১৯ খ্রীষ্টাব্দ | ২৯ আশ্বিন ১৪২৬ বঙ্গাব্দ
সর্বশেষ সংবাদ
অর্থনীতিতে নোবেল পেলেন যারা  » «   যুবলীগের পদ বেচে ঢাকায় ৪৬ ফ্ল্যাট-দোকানের মালিক ‘ক্যাশিয়ার আনিস’  » «   বরফ গলছে সৌদি-ইরানের, নেপথ্যে ইমরান খান  » «   ক্যাসিনো পঞ্চপাণ্ডবের রইল বাকি ১  » «   পুলিশের ওপর হামলা: দুই ‘জঙ্গি’ আটক  » «   সিলেট-জকিগঞ্জ সড়কে চালকদের প্রতিযোগিতায় যাত্রীবাহী বাস খাদে, আহত ৭  » «   ইনস্টাগ্রামে ট্রাম্প-ওবামাকে পেছনে ফেললেন মোদি!  » «   একটি মোবাইল চার্জারের দাম ২২ হাজার টাকা  » «   বেতন বৈষম্য: কর্মবিরতিতে সাড়ে ৩ লাখ শিক্ষক  » «   আবরার হত্যা: শেষ চার ঘণ্টার নৃশংসতার চিত্র  » «   সংবিধান পড়ে শোনালেন আমান, পুলিশ বলল ‘গো ব্যাক’  » «   বুয়েটে ভর্তি পরীক্ষা শুরু  » «   আবরার হত্যায় এবার মুজাহিদের স্বীকারোক্তি  » «   তিন সপ্তাহ ধরে কার্যালয়ে যান না যুবলীগ চেয়ারম্যান  » «   নোবেল পুরস্কার র‌্যাব-পুলিশের হাতে নয় : রিজভী  » «  

সবই আছে নেই শুধু ভোটার



নিউজ ডেস্ক:: কেন্দ্রের বাইরে ভোটারদের নিরাপত্তায় মোতায়েন করা আছে পুলিশ। আছে আনসার ও নিরাপত্তার দায়িত্বে আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর অন্য সদস্যরাও। ভেতরে আছেন প্রিজাইডিং অফিসার, সহকারী প্রিজাইডিং অফিসার এবং পোলিং এজেন্টরাও। এক কথায় ভোটের জন্য যা যা প্রয়োজন তার কোনো কিছুরই কমতি নেই। কিন্তু যাদের জন্য এতো আয়োজন, সেই ভোটারদের দেখা নেই। প্রায় প্রতিটি কেন্দ্রেই দেখা গেছে এমন চিত্র।

রংপুর-৩ (সদর) আসনের উপ-নির্বাচনে এমন চিত্র দেখা যায়। শনিবার সকায় নয়টায় ভোটগ্রহণ শুরু হয়। ভোট শুরুর তিন ঘণ্টা পেরিয়ে গেলেও বেলা ১২টা পর্যন্তও ভোটারদের উপস্থিতি খুব একটা চোখে পড়েনি। দুই একজন ভোটারকে মাঝেমাঝে কেন্দ্রে প্রবেশ করতে দেখা যায়। ভোটার না আসায় নির্বাচন সংশ্লিষ্টরা অনেকটা অলস সময় পার করছেন। তারা গালগল্প করেই অনেকটা সময় পার করছেন। তবে বেলা বাড়ার সঙ্গে সঙ্গে ভোটার উপস্থিতি বাড়বে বলে আশা করছেন নির্বাচন কমিশনের কর্মকর্তারা।

সকাল নয়টায় প্রতিটি কেন্দ্রে ইলেক্ট্রনিক্স ভোটিং মেশিন (ইভিএম)’র মাধ্যমে এ ভোট গ্রহণ শুরু হয়েছে। বিকাল পাঁচটা পর্যন্ত বিরতিহীনভাবে চলবে ভোটগ্রহণ। জাতীয় পার্টির প্রতিষ্ঠাতা চেয়ারম্যান ও সাবেক রাষ্ট্রপতি হুসেইন মুহাম্মদ এরশাদের মৃত্যুতে গত ১৬ জুলাই আসনটি শূন্য ঘোষণা করে নির্বাচন কমিশন। এরপর আসনটিতে আজ ভোটগ্রহণ করা হচ্ছে।

রংপুরের রাধা বল্লব বালিকা উচ্চ বিদ্যালয় ভোট কেন্দ্র গিয়ে দেখা যায়, ভোটের দায়িত্বে থাকা কর্মকর্তা ও আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর সদস্যরা বসে বসে গল্প করে সময় পার করছেন। ভোটারদের উপস্থিতি নেই। তিন ঘণ্টায় মাত্র কয়েকজন ভোটার তাদের ভোট প্রদান করেছে। ভোট কেন্দ্রের বাহিরেও লোকজন নেই। পাশে আরও দুইটি ভোট কেন্দ্রের একই অবস্থা।

সরকারি দল আওয়ামী লীগ প্রার্থী দেয়নি। আর বিএনপি ও জাতীয় পার্টির প্রার্থী স্থানীয় নয়। সেই কারণে ভোট নিয়ে সাধারণ মানুষের তেমন আগ্রহ নেই বলে বেশ কয়েকজন ভোটার জানান।

রংপুর-৩ আসনের সংসদ সদস্য হতে যারা প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছেন তারা হলেন জাতীয় পার্টি থেকে এরশাদপুত্র সাদ এরশাদ (লাঙ্গল) প্রতীক, বিএনপি’র প্রার্থী রিটা রহমান (ধানের শীষ) প্রতীক, স্বতন্ত্র প্রার্থী এরশাদের ভাতিজা হোসেন মকবুল শাহরিয়ার আসিফ (মোটরগাড়ি) প্রতীক, এনপিপি’র শফিউল আলম (আম) প্রতীক, গণফ্রটর কাজী মা. শহীদুল্লাহ (মাছ) প্রতীক এবং খেলাফত মজলিসের তৌহিদুর রহমান মণ্ডল (দেয়াল ঘড়ি) প্রতীক।

সংবাদটি সম্পর্কে আপনার বস্তুনিষ্ট মতামত প্রকাশ করুন

টি মন্তব্য

সংবাদটি শেয়ার করুন

Developed by: