মঙ্গলবার, ২০ অগাস্ট ২০১৯ খ্রীষ্টাব্দ | ৫ ভাদ্র ১৪২৬ বঙ্গাব্দ
সর্বশেষ সংবাদ
শেখ হাসিনার ছাত্রলীগে জামায়াতি আঁচড়!  » «   অবশেষে ক্ষমা চাইলেন জাকির নায়েক  » «   অপরাধীদের শাস্তি দ্রুত নিশ্চিত না করায় ধর্ষণ বাড়ছে: হাইকোর্ট  » «   সিলেট-ঢাকা মহাসড়কে ‘স্পিড গান’  » «   কমলাপুর রেলওভার ব্রিজের ত্রুটির চিত্র তুলে ধরলেন ব্যারিস্টার সুমন  » «   জিন্দাবাজারে মিললো ২টি গোখরাসহ ৬ বিষধর সাপ  » «   কাশ্মীর ইস্যুতে আলোচনায় বসছেন ট্রাম্প- মোদী!  » «   মাত্র ১০০ মিটার দূরেই শত্রু  » «   অগ্নিকাণ্ডে ক্ষতিগ্রস্থদের পাশে থাকবে সরকার: কাদের  » «   থানায় ‘গণধর্ষণের’ শিকার সেই নারীর জামিন নামঞ্জুর  » «   মিন্নির স্বীকারোক্তির আগে নাকি পরে এসপির ব্রিফিং : হাইকোর্ট  » «   প্রাথমিকের শিক্ষার্থীদের দুপুরের খাবারে মন্ত্রিসভার সায়  » «   নবম ওয়েজবোর্ডের গেজেট প্রকাশ নিয়ে আপিল বিভাগের সিদ্ধান্ত মঙ্গলবার  » «   পাঁচভাই রেস্টুরেন্টে প্রবাসীর ওপর হামলা: দুই ছাত্রলীগ কর্মী গ্রেপ্তার  » «   সিলেটসহ রেলের পূর্বাঞ্চলের নিরাপত্তা নিশ্চিতে হাইকোর্টের রুল  » «  

সন্দেহের কারণেই আরাফাত সানির বিরুদ্ধে নাসরিনের মামলা



খেলাধুলা ডেস্ক::জাতীয় দলের ক্রিকেটার আরাফাত সানির ক্রিকেটার আরাফাত সানীর বিরুদ্ধে মূলত সন্দেহের কারণেই তথ্য-প্রযুক্তি আইনে মামলা করেন তার স্ত্রী নাসরিন সুলতানা।

মঙ্গলবার (২১ নভেম্বর) বাংলাদেশ সাইবার ট্রাইব্যুনালে ভারপ্রাপ্ত বিচারক আতাউর রহমানের আদালতে নাসরিন সুলতানা তার দেয়া সাক্ষ্যে এসব তথ্য জানান।

আদালতে জবানবন্দিতে নাসরিন সুলতানা বলেন, ক্রিকেটার আরাফাত সানির আমার স্বামী। আমরা স্বামী-স্ত্রী হিসেবে একসঙ্গে ঘোরাফেরা করেছি। আমার কিছু ছবি তুলে তার তা ফেসবুকে প্রচার করা হয়। এ কাজে আমি তাকে সন্দেহ করে মামলাটি করি। এরপর আসামিপক্ষের জেরায় নাসরিন সুলতানা ‘ভুল বোঝাবুঝির কারণে’ মামলা করার কথা স্বীকার করেন।

জবানবন্দিতে নাসরিন সুলতানা স্বীকার করেন, এখন আর আরাফাত সানির ওপর আমার কোন রাগ নেই। এ সময় আদালতে আরাফাত সানি উপস্থিত ছিলেন।

আদালত সূত্র জানায়, প্রায় ৭ বছর আগে পরিচয়ের সূত্র ধরে আরাফাত সানি ও নাসরিন সুলতানার ঘনিষ্ঠতা হয়। ২০১৪ সালের ৪ ডিসেম্বর অভিভাবকদের না জানিয়ে তারা বিয়ে করেন। বিয়ের ৩ বছরেও আরাফাত সানি নাসরিনকে আনুষ্ঠানিকভাবে ঘরে তুলে নেননি।

২০১৬ সালের ১২ জুন রাতে নাসরিন সুলতানা নামের একটি ভুয়া ফেসবুক আইডি থেকে আসল ফেসবুক আইডিতে ম্যাসেঞ্জারে সানি-নাসরিনের অন্তরঙ্গ কিছু ছবি পাঠানো হয়।

এ পরিপ্রেক্ষিতে চলতি বছরের ৫ জানুয়ারি তথ্য-প্রযুক্তি আইনে রাজধানীর মোহাম্মদপুর থানায় এ মামলাটি করেন নাসরিন সুলতানা।

উল্লেখ্য, তদন্ত শেষে ২২ মার্চ আরাফাত সানির বিরুদ্ধে ঢাকা মহানগর হাকিম আদালতে চার্জশিট দাখিল করে পুলিশ। পরে তা বিচারের জন্য ট্রাইব্যুনালে আসে। আরাফাত সানি দীর্ঘ ৫০ দিন কারাভোগ শেষে নাসরিনের অনাপত্তিতেই জামিন পান।

সংবাদটি সম্পর্কে আপনার বস্তুনিষ্ট মতামত প্রকাশ করুন

টি মন্তব্য

সংবাদটি শেয়ার করুন

Developed by: