সোমবার, ৯ ডিসেম্বর ২০১৯ খ্রীষ্টাব্দ | ২৫ অগ্রহায়ণ ১৪২৬ বঙ্গাব্দ
সর্বশেষ সংবাদ
লন্ডনে দ্বিতীয় জনপ্রিয় ভাষা বাংলা  » «   ঘুষের টাকাসহ হাতেনাতে সাব-রেজিস্ট্রার আটক  » «   আর কোনো হায়েনার দল বাংলার বুকে চেপে বসতে পারবে না  » «   সিলেটে মুক্তিযুদ্ধের পাণ্ডুলিপি সংগ্রহ করলেন প্রবাসী কল্যাণমন্ত্রী  » «   ফের জাতীয় পার্টির ঢাকা জেলা শাখার সভাপতি সালমা ইসলাম এমপি  » «   বিয়ানীবাজারে ৯৯০ পিস ইয়াবাসহ পেশাদার মাদক ব্যবসায়ী আটক  » «   আয়কর দিবস উপলক্ষে সিলেটে বর্ণাঢ্য র‌্যালি  » «   এবার শ্রীমঙ্গলে ট্রেনের ইঞ্জিনে আগুন  » «   বেলজিয়ামে মসজিদে তালা দেওয়ায় বাংলাদেশিদের প্রতিবাদ  » «   পায়রা উড়িয়ে জাতীয় পার্টির ঢাকা জেলা শাখার সম্মেলন উদ্বোধন  » «   ভারতের অর্থনীতির দুরবস্থা, জিডিপি কমে সাড়ে ৪ শতাংশ  » «   পায়রা উড়িয়ে সম্মেলন উদ্বোধন করলেন শেখ হাসিনা  » «   লন্ডন ব্রিজে আবারও সন্ত্রাসী হামলা, নিহত ২  » «   চীন থেকে মা-বাবার জন্য পেঁয়াজ নিয়ে এলেন মেয়ে  » «   রক্তে ভাসছে ইরাক, নিহত ৮২  » «  

সন্তান জন্মদানের পর জানলেন তিনি গর্ভবতী ছিলেন!



আন্তর্জাতিক ডেস্ক:: ব্রিটিশ কিশোরী এবনি স্টিভেনসন সম্প্রতি অসুস্থ হয়ে কোমায় চলে যান। এরপর ১৮ বছর বয়সী এই কিশোরীর যখন জ্ঞান ফেরে তখন তার পাশে ফুটফুটে এক কন্যাশিশু। এই শিশু যে স্টিভেনসনের নিজেরই এটা জানার পর তিনি বিস্ময়াভিভূত হয়ে পড়েন। যুক্তরাজ্যের ম্যানচেস্টারে অবস্থিত ওল্ডহ্যাম শহরে সম্প্রতি এ ঘটন ঘটেছে।

হঠাৎ করেই প্রচণ্ড ব্যথায় অসুস্থ হয়ে পড়েন স্টিভেনসন। দ্রুত তাকে হাসপাতালে নেওয়া হয়। সেখানে তাকে জরুরি অস্ত্রোপচার করতে গিয়ে ডাক্তাররা আবিষ্কার করেন, স্টিভেনসন সন্তানসম্ভবা এবং পেটের শিশুকে বাঁচাতে হলে দ্রুত সিজার করতে হবে।

স্টিভেনসনের মা এই কথা বিশ্বাসই করতে পারছিলেন না। কারণ মেয়ের শরীরের গর্ভধারণের কোনো লক্ষণই ছিল না।কিন্তু ডাক্তাররা তাকে দেখান, হঠাৎ-হঠাৎ একটু সময়ের জন্য কিভাবে ফুলে ওঠে স্টিভেনসনের পেট। অবশেষে অস্ত্রোপচার হয়। জন্ম নেয় ফুটফুটে এক কন্যাশিশুর।

চিকিৎসকদের তখনও অবাক হওয়া বাকি। জ্ঞান ফিরে স্টিভেনসন জানান, গর্ভবতী হওয়ার বিষয়টা তিনি নিজেও জানতেন না।এমনকি গর্ভবতী নারীদের পেট যেভাবে ফুলে উঠে তার ক্ষেত্রে সেটাও ঘটেনি।অবাক করা বিষয় হলো, স্টিভেনসনের মাসিক-ও হয়েছে প্রতিমাসে, নিয়মিতভাবে। তাহলে এই শিশু জন্ম নিলো কিভাবে!

চিকিৎসকেরা জানান, এই অবস্থাটিকে চিকিৎসা বিজ্ঞানের ভাষায় বলা হয় ‘ইউটেরাস ডিডালফিস’। স্টিভেনসনের ছিল দুটো জরায়ু। সামনের জরায়ুটি থেকে প্রতিমাসে মাসিক হয়েছে। আর এর পেছনে লুকিয়ে থাকা দ্বিতীয় জরায়ুতে বেড়ে উঠেছে এই শিশু। ফলে, গর্ভাবস্থায় তার পেট-ও বড় হয়নি।

শুধু মাঝে মাঝে সকালবেলায় স্টিভেনসনের একটু দুর্বল লাগতো। এছাড়া আর কিছুই টের পাননি তিনি। তাই, সন্তানসম্ভবা হওয়ার পরেও বিষয়টি স্বয়ং গর্ভবতীই টের পাননি।স্টিভেনসন জানান, নিজের মেয়েকে এখন তিনি পৃথিবীতে সবচেয়ে বেশী ভালোবাসেন। কোনো কিছু না জেনে-বুঝেই প্রথমবারের মতো মা হওয়া এই কিশোরী তার মেয়ের নাম রেখেছেন এলোডি।

সূত্র: বিবিসি

সংবাদটি সম্পর্কে আপনার বস্তুনিষ্ট মতামত প্রকাশ করুন

টি মন্তব্য

সংবাদটি শেয়ার করুন

Developed by: