রবিবার, ২১ জুলাই ২০১৯ খ্রীষ্টাব্দ | ৬ শ্রাবণ ১৪২৬ বঙ্গাব্দ
সর্বশেষ সংবাদ
চরমভাবে অবহেলিত প্রাথমিক শিক্ষা ও শিক্ষকরা  » «   এমপিও শিক্ষকদের বেতন দিচ্ছে না ব্যাংক!  » «   ইসরাইলের মরুভূমিতে ১২০০ বছরের পুরোনো মসজিদের খোঁজ  » «   জনসমাগম দেখলেই আতঙ্কে ভোগে আ’লীগ সরকার: ফখরুল  » «   ছেলেধরা সন্দেহে গণপিটুনিতে ঢাকা-নারায়ণগঞ্জে নিহত ২  » «   দুর্নীতি শব্দটি কীভাবে আসলো আই হ্যাভ নো আইডিয়া: ইকবাল মাহমুদ  » «   সেই প্রিয়া সাহাকে নিয়ে মিললো চাঞ্চল্যকর তথ্য  » «   লবণ সংকটে কোরবানির চামড়া নিয়ে উদ্বেগ  » «   দেশদ্রোহী হিসেবে প্রিয়ার বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেয়া হবে: সেতুমন্ত্রী  » «   মিন্নিকে আইনি সহায়তা দিতে ঢাকা থেকে ৪০ আইনজীবী যাচ্ছেন বরগুনায়!  » «   আলো-পানি ছাড়াই রাত কাটল আটক প্রিয়াঙ্কার  » «   মক্কা-মদিনায় ফ্রি ইন্টারনেট ও সিম পাচ্ছেন হাজিরা!  » «   পানিতে সাপের কামড়ে মৃত্যু ,পানিতেই জানাজা-দাফন  » «   নেত্রকোনায় শিশুর কাটা মাথা কাণ্ডে যা জানলো পুলিশ  » «   লন্ডনে পৌঁছেছেন প্রধানমন্ত্রী, আজ দূত সম্মেলন  » «  

সন্তানদের লাশ দাফনের অধিকারের দাবিতে ফিলিস্তিনিদের বিক্ষোভ



আন্তর্জাতিক ডেস্ক:: ইসরাইলি হামলায় নিহত সন্তানদের মরাদেহ ফেরত পাওয়ার দাবিতে মানববন্ধন ও বিক্ষোভ করেছেন ফিলিস্তিনিরা।ইসরাইলি বাহিনীর হাতে নিহত ১০ ফিলিস্তিনির মরদেহ ফেরত পাওয়ার দাবিতে করা মামলা নিয়ে মঙ্গলবার ইসরাইলের সুপ্রিম কোর্টের এক অধিবেশনের আগে রামাল্লায় তারা এই বিক্ষোভ করেছেন।২০১৫ সাল থেকে এসব ফিলিস্তিনিদের হত্যার পর তাদের মরদেহ ফেরত দেয়নি ইহুদিবাদী ইসরাইল।

রামাল্লার মূলকেন্দ্র আল মানারা চত্বর থেকে নিহতদের বাবা-মা ও স্বজনরা বিক্ষোভ মিছিল শুরু করেন। এ সময়ে তাদের স্লোগান দিতে দেখা যায়-আমরা আমাদের শিশুদের ফেরত চাই, আমাদের শহীদদের স্বাধীনতা চাই।বিক্ষোভকারীদের হাতে নিহত স্বজন ও সন্তানদের ছবি সম্বলিত প্লেকার্ড ছিল।

আয়োজকদের একজন আজহার আবু শ্রুর বলেন, স্বজনদের মরদেহ ফেরত পাওয়া আমাদের অধিকার। আমাদের সন্তানদের কী হয়েছে, তা জানার অধিকার আমাদের আছে।সন্তান হারানো এক ফিলিস্তিনি মা বলেন, দখলদাররা সবসময় আমাদের অন্ধকারে রাখতে চায়। আমরা আমাদের কিশোর সন্তানদের মর্যাদার সঙ্গে কবর দিতে পারিনি কিংবা তাদের বিদায় দেয়ারও সুযোগ দেয়া হয়নি।

তিনি বলেন, এটা ভয়াবহ অপরাধ। এজন্য দখলদারদের জবাবদিহিতার আওতায় নিয়ে আসা দরকার।ফিলিস্তিনি নেতৃবৃন্দের সঙ্গে দর কষাকষির হাতিয়ার হিসেবে ব্যবহার করতে দখলদার ইসরাইল তাদের মরদেহ আটকে রেখেছে। ইসরাইল দাবি করছে, তাদের মরদেহ ফেরত দিলে দাফনের সময় সহিংসতা দেখা দিতে পারে।

আবু শ্রুর বলেন, একজন মা হিসেবে আপনি সন্তান লালন করেছেন। তাদের শিক্ষার ব্যবস্থা করেছেন। তাদের বেড়ে উঠতে দেখেছেন। কিন্তু তারা শহীদ হওয়ার পর আপনার পূর্ণ দায়িত্ব হচ্ছে মর্যাদার সঙ্গে তাদের দাফন করা।নিহত ১০জনের মধ্যে চারজনকে ইসরাইলি সেনাবাহিনীর সমাধিতে দাফন করা হয়েছে। বাকি ছয়জেনর মরদেহ তেল আবিবের আবু কাবির ইনস্টিটিউটের মর্গে রাখা হয়েছে।

সূত্র: আল জাজিরা

সংবাদটি সম্পর্কে আপনার বস্তুনিষ্ট মতামত প্রকাশ করুন

টি মন্তব্য

সংবাদটি শেয়ার করুন

Developed by: