বৃহস্পতিবার, ২১ নভেম্বর ২০১৯ খ্রীষ্টাব্দ | ৭ অগ্রহায়ণ ১৪২৬ বঙ্গাব্দ
সর্বশেষ সংবাদ
নতুন সড়ক পরিবহন আইন কার্যকরের ‘বিরোধিতায়’ ১১ জেলায় বাস চালানো বন্ধ  » «   নগরীতে ৪৫ টাকা কেজি দরে বিক্রি হচ্ছে পিয়াজ, ক্রেতাদের দীর্ঘ লাইন  » «   বলিভিয়ার অশান্তির নেপথ্যে ‘সাদা সোনা’, যা পরবর্তী বিশ্বের আকাঙ্ক্ষিত বস্তু  » «   আবরার হত্যা: পলাতক চারজনের বিরুদ্ধে গ্রেফতারি পরোয়ানা জারি  » «   ‘অপকর্মে’ সংকুচিত দ. কোরিয়ার শ্রমবাজার  » «   ৩০০ টাকার পিয়াজ সরকারের দিনবদলের সনদ: ডাকসু ভিপি নুর  » «   অযোধ্যা রায় পুনর্বিবেচনার আবেদন করছে মুসলিমরা  » «   ভাঙছে শরিক দল সঙ্কটে ঐক্যফ্রন্ট  » «   হলি আর্টিসান হামলা: রায় ২৭ নভেম্বর  » «   চাকা ফেটেছে নভোএয়ারের, ভাগ্যগুণে বেঁচে গেলেন ৩৩ যাত্রী  » «   হাত-পা ছাড়াই মুখে ভর করে লিখে পিইসি দিচ্ছে লিতুন  » «   প্রধানমন্ত্রীকে দেয়া বিএনপির চিঠিতে আবরার হত্যার বর্ণনা  » «   ১৫০ যাত্রী নিয়ে মাঝ আকাশে বিপাকে ভারতীয় বিমান, রক্ষা করল পাকিস্তান  » «   বিমান ছাড়াও ট্রেন, ট্রাক, বাসে করে আসছে পেঁয়াজ: সিলেটে পরিকল্পনামন্ত্রী  » «   চুক্তির তথ্য জানতে প্রধানমন্ত্রীকে চিঠি দিল বিএনপি  » «  

সন্তানদের লাশ দাফনের অধিকারের দাবিতে ফিলিস্তিনিদের বিক্ষোভ



আন্তর্জাতিক ডেস্ক:: ইসরাইলি হামলায় নিহত সন্তানদের মরাদেহ ফেরত পাওয়ার দাবিতে মানববন্ধন ও বিক্ষোভ করেছেন ফিলিস্তিনিরা।ইসরাইলি বাহিনীর হাতে নিহত ১০ ফিলিস্তিনির মরদেহ ফেরত পাওয়ার দাবিতে করা মামলা নিয়ে মঙ্গলবার ইসরাইলের সুপ্রিম কোর্টের এক অধিবেশনের আগে রামাল্লায় তারা এই বিক্ষোভ করেছেন।২০১৫ সাল থেকে এসব ফিলিস্তিনিদের হত্যার পর তাদের মরদেহ ফেরত দেয়নি ইহুদিবাদী ইসরাইল।

রামাল্লার মূলকেন্দ্র আল মানারা চত্বর থেকে নিহতদের বাবা-মা ও স্বজনরা বিক্ষোভ মিছিল শুরু করেন। এ সময়ে তাদের স্লোগান দিতে দেখা যায়-আমরা আমাদের শিশুদের ফেরত চাই, আমাদের শহীদদের স্বাধীনতা চাই।বিক্ষোভকারীদের হাতে নিহত স্বজন ও সন্তানদের ছবি সম্বলিত প্লেকার্ড ছিল।

আয়োজকদের একজন আজহার আবু শ্রুর বলেন, স্বজনদের মরদেহ ফেরত পাওয়া আমাদের অধিকার। আমাদের সন্তানদের কী হয়েছে, তা জানার অধিকার আমাদের আছে।সন্তান হারানো এক ফিলিস্তিনি মা বলেন, দখলদাররা সবসময় আমাদের অন্ধকারে রাখতে চায়। আমরা আমাদের কিশোর সন্তানদের মর্যাদার সঙ্গে কবর দিতে পারিনি কিংবা তাদের বিদায় দেয়ারও সুযোগ দেয়া হয়নি।

তিনি বলেন, এটা ভয়াবহ অপরাধ। এজন্য দখলদারদের জবাবদিহিতার আওতায় নিয়ে আসা দরকার।ফিলিস্তিনি নেতৃবৃন্দের সঙ্গে দর কষাকষির হাতিয়ার হিসেবে ব্যবহার করতে দখলদার ইসরাইল তাদের মরদেহ আটকে রেখেছে। ইসরাইল দাবি করছে, তাদের মরদেহ ফেরত দিলে দাফনের সময় সহিংসতা দেখা দিতে পারে।

আবু শ্রুর বলেন, একজন মা হিসেবে আপনি সন্তান লালন করেছেন। তাদের শিক্ষার ব্যবস্থা করেছেন। তাদের বেড়ে উঠতে দেখেছেন। কিন্তু তারা শহীদ হওয়ার পর আপনার পূর্ণ দায়িত্ব হচ্ছে মর্যাদার সঙ্গে তাদের দাফন করা।নিহত ১০জনের মধ্যে চারজনকে ইসরাইলি সেনাবাহিনীর সমাধিতে দাফন করা হয়েছে। বাকি ছয়জেনর মরদেহ তেল আবিবের আবু কাবির ইনস্টিটিউটের মর্গে রাখা হয়েছে।

সূত্র: আল জাজিরা

সংবাদটি সম্পর্কে আপনার বস্তুনিষ্ট মতামত প্রকাশ করুন

টি মন্তব্য

সংবাদটি শেয়ার করুন

Developed by: