শুক্রবার, ১৮ জানুয়ারী ২০১৯ খ্রীষ্টাব্দ | ৫ মাঘ ১৪২৫ বঙ্গাব্দ
সর্বশেষ সংবাদ
জিয়াউর রহমানের জন্মবার্ষিকী উপলক্ষে কর্মসূচি ঘোষণা  » «   সীমান্তের খালে মিয়ানমারের সেতু, বন্যার আশঙ্কা বাংলাদেশে  » «   দ্বিতীয় কৃত্রিম উপগ্রহ পাঠাবে বাংলাদেশ: শাবিতে পরিকল্পনামন্ত্রী  » «   আতিয়া মহল মামলা: ৫ দিনের রিমান্ডে ৩ আসামি  » «   শেখ হাসিনা হত্যাচেষ্টা মামলা: হাইকোর্টে আপিল শুনানি শুরু  » «   টিআইবির রিপোর্টে সরকার ও ইসির আঁতে ঘা লেগেছে: বিএনপি  » «   মাফিয়াদের স্বর্গরাজ্যে দশ বাংলাদেশির অনন্য সাহসিকতার নজির  » «   ১৪ দলের শরিকদের বিরোধী দলে থাকাই ভালো: ওবায়দুল কাদের  » «   সন্ত্রাস-মাদক-জঙ্গিবাদের মতো দুর্নীতির বিরুদ্ধেও ‘জিরো টলারেন্স’ : প্রধানমন্ত্রী  » «   সংসদ সদস্যদের শপথের বৈধতা নিয়ে রিট খারিজ  » «   কৃত্রিম কিডনি তৈরি করলেন বাঙালি বিজ্ঞানী  » «   ব্রেক্সিট ইস্যু: অনাস্থা ভোটে টিকে গেলেন তেরেসা মে  » «   টিআইবির প্রতিবেদন গ্রহণযোগ্য নয়, পুরোপুরি প্রত্যাখ্যান করি: সিইসি  » «   জনপ্রশাসন মন্ত্রণালয়ে অফিস করছেন শেখ হাসিনা  » «   সংসদ কার্যকর রাখতেই বিরোধী দলে জাপা : জিএম কাদের  » «  

সংসদ নির্বাচনের জন্য ৭০০ কোটি টাকার বাজেট অনুমোদন



নিউজ ডেস্ক:: একাদশ সংসদ নির্বাচনের খরচ বাবদ ৭০০ কোটি টাকার একটি বাজেট অনুমোদন করা হয়েছে। সোমবার (১৫ অক্টোবর) আগারগাঁওয়ের নির্বাচন ভবনে একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনের ৩৬তম প্রস্তুতি সভায় এ বাজেট অনুমোদন করা হয়। সভা শেষে নির্বাচন কমিশন (ইসি) সচিব হেলালুদ্দীন আহমেদ সাংবাদিকদের একথা জানান।

ইসি সচিব জানান, এবার ভোট গ্রহণের জন্য ৪০ হাজার ১৯৯টি ভোট কেন্দ্র চূড়ান্ত করা হয়েছে। এছাড়া অতিরিক্ত ৫ শতাংশ কেন্দ্র প্রস্তুত রাখার সিদ্ধান্ত হয়েছে। এছাড়া আসন ভিত্তিক ভোটার তালিকা প্রস্তুত করা হয়েছে। সেগুলো সিডি আকারে প্রতিটি আসনে পাঠানো হয়েছে বলেও জানান তিনি।

অনলাইনে মনোনয়নপত্র জমা দেওয়ার বিষয়টি অর্ন্তভুক্ত করা হয়েছে উল্লেখ করে ইসি সচিব বলেন,এবারের নির্বাচনে দেশি-বিদেশ পর্যবেক্ষকদের আমন্ত্রণ জানানোর সিদ্ধান্তও নেওয়া হয়েছে।

ইসি সচিব বলেন,এবার বিশেষ প্রযুক্তি ব্যবহার করে নির্বাচন কমিশন থেকে ভোটের ফলাফল ঘোষণা করা হবে। নির্বাচনের আগে আটটি বিভাগীয় জেলা এবং পার্বত্য চট্টগ্রামের রাঙামাটিসহ মোট ১০টি জেলায় সভা করবেন প্রধান নির্বাচন কমিশনার।

নির্বাচন কমিশনার মাহবুব তালুকদারের সভা বর্জন প্রসঙ্গে ইসি সচিব বলেন,ওনি একটি বিষয় সভার এজেন্ডায় অর্ন্তভূক্ত করার দাবি জানিয়েছিলেন,কিন্তু বাকি তিন কমিশনার ও প্রধান নির্বাচন কমিশনার সে বিষয়ে একমত হননি। এ কারণে তিনি সভা বর্জন করেছেন।

মাহবুব তালুকদার তার ‘নোট অব ডিসেন্টে’ রাজনৈতিক দলগুলোর সঙ্গে সংলাপে উঠে আসা দাবি-দাওয়ার বিষয়ে আলোচনা প্রস্তাব করেছিলেন।যদি দাবি-দাওয়ার বিষয়ে আলোচনা না হয়ে তবে সংলাপ হয়েছিলো কেন এমন প্রশ্নে তিনি বলেন, রাজনৈতিক দলগুলোর সঙ্গে সংলাপে যেসব বিষয় উঠে এসেছে সেগুলো আমরা পুস্তক আকারে প্রকাশ করেছি।আমরা রাজনৈতিক দাবিগুলো দেখছি এবং সাংবিধানিকভাবে কিছু বিষয় এর মধ্যে পড়ে গেছে।

সংলাপে অধিকাংশ রাজনৈতিক দল সেনা মোতায়েন এবং ইভিএম বাতিল চেয়েছিলো এবং সরকারি দল আওয়ামী লীগ সেনা মোতায়েনের বিপক্ষে এবং ইভিএম রাখার কথা বলেছিলো,এখন নির্বাচন কমিশনও সেই সিদ্ধান্ত নিচ্ছে, তাহলে কি ইসি সরকার দলীয় সিদ্ধান্ত বাস্তবায়ন করছে,এমন প্রশ্নে ইসি সচিব কোনো উত্তর দেননি। তিনি বিষয়টি এড়িয়ে যান।

সংবাদটি সম্পর্কে আপনার বস্তুনিষ্ট মতামত প্রকাশ করুন

টি মন্তব্য

সংবাদটি শেয়ার করুন

Developed by: