বৃহস্পতিবার, ২০ সেপ্টেম্বর ২০১৮ খ্রীষ্টাব্দ | ৫ আশ্বিন ১৪২৫ বঙ্গাব্দ
সর্বশেষ সংবাদ
বিএনপি নেতাদের ওপর ক্ষুব্ধ তারেক রহমান!  » «   পায়রা বন্দরের নিরাপত্তায় পুলিশের বিশেষ আয়োজন  » «   সরকারের চাপের মুখে দেশত্যাগ করতে হয়েছে: এসকে সিনহা  » «   পুতিন আমাকে হত্যার চেষ্টা করেছে : রাশিয়ান মডেল  » «   বঙ্গোপসাগরে নিম্নচাপ: ৩ নম্বর সতর্ক সংকেত  » «   ফের গ্রেপ্তার নাজিব রাজাক; দায়ের হবে ২১ মামলা  » «   প্রাথমিকে শিক্ষক নিয়োগ আবেদনেই প্রতিষ্ঠানের ৪০ কোটিরও বেশি আয় !  » «   ইউএনওদের জন্য উচ্চমূল্যে ১০০ জিপ গাড়ি, আপত্তি অর্থ মন্ত্রণালয়ের  » «   ডিজিটাল হলো জাতীয় পরিচয়পত্রের সেবা ব্যবস্থাপনা  » «   লন্ডনে মুসলিমদের ওপর গাড়ি হামলা, আহত ৩  » «   সরকারি চাকরিজীবীদের ৫% সুদে গৃহঋণের আবেদন অক্টোবরে  » «   ভারতে তিন তালাককে শাস্তিযোগ্য অপরাধ ঘোষণা  » «   স্কুলছাত্রীকে পিটিয়ে অজ্ঞান করলেন শিক্ষক  » «   বোমা দিচ্ছে যুক্তরাষ্ট্র, আর ইয়েমেনে সেই বোমা ফেলছে সৌদি  » «   রাখঢাক রাখছেন না পর্নো তারকা ডানিয়েল স্টর্মি  » «  

‘সংবিধান তো কোরআন না, যে পরিবর্তন করা যাবে না’



নিউজ ডেস্ক::২০১৮ সালের শেষ সময়ে যে নির্বাচন হবে তার প্রক্রিয়া সংবিধানে লেখা আছে। সংবিধান তো আল্লাহর কোরআন না যে সেটা পরিবর্তন করা যাবে না। সেটাকে অবশ্যই পরিবর্তন ও পরিবর্ধন করা যাবে বলে মন্তব্য করেন টক শো’তে আসা অতিথি।

মঙ্গলবার (১৫ জানুয়ারি) বেসরকারি টেলিভিশন নিউজ টুয়েন্টিফোর ‘জনতন্ত্র গণতন্ত্র’ টক শো’তে আমন্ত্রিত অতিথি বিএনপির চেয়ারপারসনের উপদেষ্টা জয়নুল আবেদীন ফারুক এ কথা বলেন। টক শো’র আলোচনার বিষয় ছিলো ‘নির্বাচনী পদ্ধতি এবং রাজনীতি’। এ টক শো’তে অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন আওয়ামী লীগের সভাপতিমণ্ডলীর সদস্য নূহ-উল-আলম লেলিন। আরও উপস্থিত ছিলেন, বিএনপির চেয়ারপারসনের উপদেষ্টা জয়নুল আবেদীন ফারুক, পূর্বপশ্চিমবিডির ডট নিউজের প্রধান সম্পাদক পীর হাবিবুর রহমান, একাত্তর টিভির পরিচালক (বার্তা) সৈয়দ ইসতিয়াক রেজা। উপস্থাপনায় ছিলেন সামিয়া রহমান।

বিএনপির চেয়ারপারসের উপদেষ্টা জয়নুল আবেদীন ফারুক বলেন, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা সরকারের ৪র্থ বছরের প্রতিষ্ঠাবার্ষিকীতে জাতির উদ্দেশ্যে যে বক্তব্য দিয়েছেন এটা একক ধারা। শুধু উন্নয়নের কথাই বলেছেন। কিন্তু উন্নয়নের সাথে অন্য যেগুলো আছে যা আমরা বিরোধী দল কিংবা মিডিয়া বলে তা তার ভাষায় আসেনি। এই কারণে নির্বাচন নিয়ে যে কথাগুলো বলেছে এটা আমার মনোভূত হয় নাই। তিনি সরকার প্রধান হিসেবে নয়। আওয়ামী লীগের সভাপতি হিসেবে একটা গ্রহণযোগ্য নির্বাচনের জন্য, বাংলাদেশের সকল দলের অংশগ্রহণের জন্য তিনি আরও স্পষ্ট ভাষায় বলতে পারতেন, কিন্তু তা করেন নি।

তিনি বলেন, ‘অতীত ভুলে যাই। কখন ফোন করেছি, কে ফোন ধরে নাই, কোন আলোচনা বন্ধ হয়ে যাবে। অতীত ভুলেই গেলাম। ২০১৮ সালের শেষ সময়ে যে নির্বাচনটা হবে এই নির্বাচনের প্রক্রিয়া সংবিধানে লেখা আছে। সেটা থাকবে। তবে সংবিধান তো আল্লাহর কোরআন না যে সেটাকে পরিবর্তন ও পরিবর্ধন করা যাবে না। সেই কারণে ওনার (প্রধানমন্ত্রী) কাছ থেকে জাতি যেটা আশা করেছিলো, সেটা পেয়েছে বলে আমি মনে করি না। রাজনীতিতে নির্বাচন নিয়ে প্রতিটি দলেরই নানান কৌশল রয়েছে। সেই কৌশলটা তো আমি এখানে প্রকাশ করতে পারবো না। কিন্তু আমরা একটা কৌশলে আছি।’

আওয়ামী লীগ নেতা নূহ-উল-আলম লেনিন বলেন, আমি মনে করি ২০১৪ সালের পুনরাবৃত্তি আর হবে না। ২০১৪ সালের নির্বাচন নিয়ে প্রশ্ন তোলা যাবে না কারণ এটা সাংবিধানিক ভাবে সঠিক। এবারের নির্বাচন সকল দলের অংশগ্রহণে অবাধ ও নিরপেক্ষ হবে।

একাত্তর টিভির পরিচালক (বার্তা) সৈয়দ ইসতিয়াক রেজা বলেন, বর্তমান পরিস্থিতি দেখে মনে হচ্ছে যে, আওয়ামী লীগ নির্বাচনে না গেলেও বিএনপি নির্বাচনে যাবে। নির্বাচন কালীন সরকারের রুপ রেখা এখনও প্রধানমন্ত্রীর কাছ থেকে এখনো পাইনি। সংবিধানেও সেই ভাবে নেই। বিএনপি সহায়ক সরকারের কথা অনেকদিন ধরে বলছে কিন্তু সেটার রুপরেখা এখনো স্পষ্ট করছে না।

সংবাদটি সম্পর্কে আপনার বস্তুনিষ্ট মতামত প্রকাশ করুন

টি মন্তব্য

সংবাদটি শেয়ার করুন

Developed by: