বৃহস্পতিবার, ২০ সেপ্টেম্বর ২০১৮ খ্রীষ্টাব্দ | ৫ আশ্বিন ১৪২৫ বঙ্গাব্দ
সর্বশেষ সংবাদ
পুতিন আমাকে হত্যার চেষ্টা করেছে : রাশিয়ান মডেল  » «   বঙ্গোপসাগরে নিম্নচাপ: ৩ নম্বর সতর্ক সংকেত  » «   ফের গ্রেপ্তার নাজিব রাজাক; দায়ের হবে ২১ মামলা  » «   প্রাথমিকে শিক্ষক নিয়োগ আবেদনেই প্রতিষ্ঠানের ৪০ কোটিরও বেশি আয় !  » «   ইউএনওদের জন্য উচ্চমূল্যে ১০০ জিপ গাড়ি, আপত্তি অর্থ মন্ত্রণালয়ের  » «   ডিজিটাল হলো জাতীয় পরিচয়পত্রের সেবা ব্যবস্থাপনা  » «   লন্ডনে মুসলিমদের ওপর গাড়ি হামলা, আহত ৩  » «   সরকারি চাকরিজীবীদের ৫% সুদে গৃহঋণের আবেদন অক্টোবরে  » «   ভারতে তিন তালাককে শাস্তিযোগ্য অপরাধ ঘোষণা  » «   স্কুলছাত্রীকে পিটিয়ে অজ্ঞান করলেন শিক্ষক  » «   বোমা দিচ্ছে যুক্তরাষ্ট্র, আর ইয়েমেনে সেই বোমা ফেলছে সৌদি  » «   রাখঢাক রাখছেন না পর্নো তারকা ডানিয়েল স্টর্মি  » «   কাবা শরীফের ভেতরে প্রবেশের সুযোগ পেলেন ইমরান  » «   মিয়ানমারে নিলামে উঠছে সুচির ভাস্কর্য  » «   এক দিনেই মিলবে পাসপোর্ট  » «  

শীতার্তদের সেবায় যা বলেছেন রাসুলুল্লাহ্ (সাঃ)



ইসলাম ডেস্ক::চলমান তীব্র শীতে দিশেহারা হয়ে পড়েছে দেশের দারিদ্র ছিন্নমুল সহ সাধারণ মানুষ। শৈত্যপ্রবাহের চাপে সর্বনিম্ন তাপমাত্রা রেকর্ড করেছে এবারের শীত। তীব্র শীতের প্রভাবে মানবেতর জীবন-যাপন করছে দারিদ্র জনগোষ্ঠীর শিশু ও বৃদ্ধরা। তাই শীতার্তদের পাশে দাড়ানো ধর্ম-বর্ণ দলমত-নির্বিশেষে সবার অপরিহার্য কর্তব্য হয়ে দেখা দিয়েছে।

ইসলাম শান্তির ধর্ম। দারিদ্রদের সহায়তার বিষয়ে সাধারণ ভাবেই ইসলামে রয়েছে সুষ্পষ্ট নির্দেশনা। এবিষয়ে হাদীসে এসেছে, হযরত আবূ হুরায়রা রা. হতে বর্ণিত, তিনি বলেন, রাসূলুল্লাহ সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লাম বলেন, কেয়ামত দিবসে নিশ্চয় মহান আল্লাহ বলবেন, হে আদম সন্তান, আমি অসুস্থ হয়েছিলাম, কিন্তু তুমি আমার শুশ্রূষা করো নি। বান্দা বলবে, হে আমার প্রতিপালক। আপনি তো বিশ্বপালনকর্তা কিভাবে আমি আপনার শুশ্রূষা করব? তিনি বলবেন, তুমি কি জানতে না যে, আমার অমুক বান্দা অসুস্থ হয়েছিল, অথচ তাকে তুমি দেখতে যাও নি। তুমি কি জান না, যদি তুমি তার শুশ্রূষা করতে তবে তুমি তার কাছেই আমাকে পেতে। হে আদম সন্তান, আমি তোমার কাছে আহার চেয়েছিলাম, কিন্তু তুমি আমাকে আহার করাও নি। বান্দা বলবে, হে আমার রব, তুমি হলে বিশ্ব পালনকর্তা, তোমাকে আমি কীভাবে আহার করাব ? তিনি বলবেন, তুমি কি জান না যে, আমার অমুক বান্দা তোমার কাছে খাদ্য চেয়েছিল, কিন্তু তাকে তুমি খাদ্য দাও নি। তুমি কি জান না যে, তুমি যদি তাকে আহার করাতে তবে আজ তা প্রাপ্ত হতে? হে আদম সন্তান, তোমার কাছে আমি পানীয় চেয়েছিলাম, অথচ তুমি আমাকে পানীয় দাও নি। বান্দা বলবে, হে আমার প্রভু, তুমি তো রাব্বুল আলামীন তোমাকে আমি কীভাবে পান করাব? তিনি বলবেন, তোমার কাছে আমার অমুক বান্দা পানি চেয়েছিল কিন্তু তাকে তুমি পান করাও নি। তাকে যদি পান করাতে তবে নিশ্চয় আজ তা প্রাপ্ত হতে। (সহীহ মুসলিম : ৬৭২১; সহীহ ইবন হিব্বান: ৭৩৬)

যে ব্যক্তি মানবসেবার এ কাজ করবে তার জন্য নবী করিম (সা.) পরকালীন পুরস্কারপ্রাপ্তির কথা ঘোষণা করেছেন, ‘এক মুসলমান অন্য মুসলমানকে কাপড় দান করলে মহান আল্লাহ তাকে জান্নাতের পোশাক দান করবেন। ক্ষুধার্ত অবস্থায় খাদ্য দান করলে আল্লাহ তাকে জান্নাতের সুস্বাদু ফল দান করবেন। কোনো মুসলমানকে তৃষ্ণার্ত অবস্থায় পানি পান করালে আল্লাহ তাকে জান্নাতের সিলমোহরকৃত পাত্র থেকে পবিত্র পানি পান করাবেন।’ (সুনানে আবু দাউদ)

হজরত আবদুল্লাহ ইবনে আমর (রা.) থেকে বর্ণিত, তিনি বলেন, রাসূল সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম বলেছেন, ‘যারা দয়া করে থাকে (সৃষ্টির প্রতি) পরম দয়ালু আল্লাহও তাদের প্রতি দয়া করে থাকেন।’ (সুতরাং) তোমরা জগৎবাসীদের প্রতি দয়া প্রদর্শন করো, তাহলে আকাশের মালিক মহান আল্লাহও তোমাদের প্রতি দয়া করবেন।’ (সুনানে আবু দাউদ ও সুনানে তিরমিজি)

তাই আসুন আমরা দলমত নির্বিশেষে শীতার্তদের পাশে দাড়িয়ে মাহান মালিকের সন্তুষ্টি অর্জনের মধ্যদিয়ে দুই জাহানের অশেষ কামিয়াবি হাসিল করি। আল্লাহ পাক রব্বুল আলামিন আমাদের কে শীতার্তদের পাশে দাড়ানোর তাওফিক দান করুন। আমিন।

সংবাদটি সম্পর্কে আপনার বস্তুনিষ্ট মতামত প্রকাশ করুন

টি মন্তব্য

সংবাদটি শেয়ার করুন

Developed by: