সোমবার, ৯ ডিসেম্বর ২০১৯ খ্রীষ্টাব্দ | ২৫ অগ্রহায়ণ ১৪২৬ বঙ্গাব্দ
সর্বশেষ সংবাদ
লন্ডনে দ্বিতীয় জনপ্রিয় ভাষা বাংলা  » «   ঘুষের টাকাসহ হাতেনাতে সাব-রেজিস্ট্রার আটক  » «   আর কোনো হায়েনার দল বাংলার বুকে চেপে বসতে পারবে না  » «   সিলেটে মুক্তিযুদ্ধের পাণ্ডুলিপি সংগ্রহ করলেন প্রবাসী কল্যাণমন্ত্রী  » «   ফের জাতীয় পার্টির ঢাকা জেলা শাখার সভাপতি সালমা ইসলাম এমপি  » «   বিয়ানীবাজারে ৯৯০ পিস ইয়াবাসহ পেশাদার মাদক ব্যবসায়ী আটক  » «   আয়কর দিবস উপলক্ষে সিলেটে বর্ণাঢ্য র‌্যালি  » «   এবার শ্রীমঙ্গলে ট্রেনের ইঞ্জিনে আগুন  » «   বেলজিয়ামে মসজিদে তালা দেওয়ায় বাংলাদেশিদের প্রতিবাদ  » «   পায়রা উড়িয়ে জাতীয় পার্টির ঢাকা জেলা শাখার সম্মেলন উদ্বোধন  » «   ভারতের অর্থনীতির দুরবস্থা, জিডিপি কমে সাড়ে ৪ শতাংশ  » «   পায়রা উড়িয়ে সম্মেলন উদ্বোধন করলেন শেখ হাসিনা  » «   লন্ডন ব্রিজে আবারও সন্ত্রাসী হামলা, নিহত ২  » «   চীন থেকে মা-বাবার জন্য পেঁয়াজ নিয়ে এলেন মেয়ে  » «   রক্তে ভাসছে ইরাক, নিহত ৮২  » «  

শিশুর অসুখে কিছু সতর্কতা



শিশুর অসুখে কিছু সতর্কতা

ফুড পয়জনিং বা খাদ্যে বিষক্রিয়া হলো এক ধরনের স্বাস্থ্য সমস্যা। সাধারণত পচা, বাসি খাবার, অস্বাস্থ্যকর খাবার, জীবাণুযুক্ত খাবার ও পানীয়, ময়লাযুক্ত থালা বাসনে খাবার খেলে তা থেকে ফুড পয়জনিং হতে পারে। অনেকে ফুড পয়জনিং আর ডায়রিয়াকে একই মনে করেন। তবে তা ঠিক নয়।

পেট খারাপ কিংবা ডায়রিয়া হলেই তা ফুড পয়জনিং নয়। একমাত্র খাবার থেকে সংক্রমণ হলেই তাকে ফুড পয়জনিং বলে। ফুড পয়জনিং মূলত সব বয়সের মানুষেরই হতে পারে। তবে শিশুরাই এ সমস্যায় বেশি আক্রান্ত হয়। আর এটি শিশুর জন্য মারাÍক ঝুঁকির কারণও হয়ে দাঁড়াতে পারে। তাই এক্ষেত্রে মা-বাবাকে সতর্ক থাকতে হবে।

শিশুর হাতের নখ সব সময় ছোট রাখুন। এবং হাত পরিষ্কার রাখুন।

পানি থেকেই সাধারণত সংক্রামক রোগ হওয়ার আশংকা বেশি থাকে। তাই কখনোই ফুটানো পানি ছাড়া পান করানো উচিত নয়।

বাইরের কেনা খাবার থেকে ফুড পয়জনিং হওয়ার আশংকা খুব বেশি থাকে। তাই এসব খাবার থেকে যতটা সম্ভব দূরে রাখতে হবে। আর খাওয়ালেও প্যাকেটজাত খাবারে মেয়াদ আছে কিনা দেখে নিন।

রান্না এবং খাওয়ার সময় হাঁড়ি-পাতিল, থালাবাসন ভালো করে ধুয়ে নিতে হবে। একই সঙ্গে রান্না এবং খাবার পরিবেশনের সময় আপনার নিজের হাতটিও পরিষ্কার রাখুন।

ফিডার, নিপল, ফ্লাস্কের মুখে মাছি বা তেলাপোকা বসলে সেই ফ্লাক্স কিংবা ফিডারে দুধ খেলে ফুড পয়জনিং দেখা দিতে পারে।

অনেকেই নষ্ট হয়নি এমন বাসি খাবার খেতে দেন। এটা করা উচিত নয়। যতটা সম্ভব টাটকা খাবার খেতে দেয়া উচিত। ফ্রিজে রাখা কয়েকদিনের খাবার তাকে খেতে দেয়া উচিত নয়। তা নষ্ট হোক আর নাই হোক।

খাবার সব সময় ঢেকে রাখুন। তা না হলে মাছি কিংবা অন্যান্য কীটপতঙ্গ খাবারে বসে জীবাণু ছড়াতে পারে। খাবার যেন কোনোভাবেই দূষিত না হয় সেদিকে খেয়াল রাখতে হবে।

 

সংবাদটি সম্পর্কে আপনার বস্তুনিষ্ট মতামত প্রকাশ করুন

টি মন্তব্য

সংবাদটি শেয়ার করুন

Developed by: