সোমবার, ২৪ জুন ২০১৯ খ্রীষ্টাব্দ | ১০ আষাঢ় ১৪২৬ বঙ্গাব্দ
সর্বশেষ সংবাদ
প্রথমবার সিলেট-চট্টগ্রাম-কক্সবাজার রুটে উড়বে ইউএস-বাংলা  » «   ভূমিকম্পে কেঁপে উঠলো ইন্দোনেশিয়ায়-জাপান-অস্ট্রেলিয়া  » «   ভোটকেন্দ্রেই ঘুমিয়ে পড়লেন কর্মকর্তা  » «   ‘জয় শ্রীরাম’ না বলায় পিটিয়ে মুসলিম যুবককে হত্যা  » «   নয়াপল্টনে একের পর এক ককটেল বিস্ফোরণ  » «   অফিসে বসে বসে শুধু কি চা খাইলে হবে? দেশপ্রেম থাকতে হবে: হাইকোর্ট  » «   বিকেলের মধ্যে উদ্ধার কাজ শেষ হবে: রেলসচিব  » «   বাংলাদেশের নামে সড়কের নামকরন যুক্তরাষ্ট্রে  » «   সরকারি চাকরিজীবীদের বেতন বাড়লেও দুর্নীতি কমছে না : টিআইবি  » «   দেশসেরা প্রধান শিক্ষক হবিগঞ্জের শাহনাজ কবীর  » «   বাঘের খাবারও চুরি হয় ঢাকা চিড়িয়াখানায়, ফেসবুকে ভাইরাল  » «   দুই মাস ওমরাহ ভিসা স্থগিত করল সৌদি  » «   বীমার আওতায় যেসব সুবিধা পাচ্ছে সরকারি চাকরিজীবীরা  » «   কারাগারে সুনামগঞ্জের আ. লীগ নেতা শামীম আহমদ  » «   মুক্তি পেয়ে নতুন যে বাড়িতে থাকবেন খালেদা  » «  

শিক্ষিকার বিরুদ্ধে ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনে মামলা সাংবাদিকের



নিউজ ডেস্ক:: ঝিনাইদহের শৈলকুপা পাইলট উচ্চ বালিকা বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষীকা দিলারা ইয়াসমিনের বিরুদ্ধে ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনে মামলা হয়েছে (মামলা নং৫১)। শৈলকুপা থেকে প্রকাশিত ‘সাপ্তাহীক ডাকুয়া’ পত্রিকার সম্পাদক শামিম বিন সাত্তার বাদী হয়ে রোববার মামলাটি দায়ের করেন।বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন শৈলকুপা থানার এসআই ও মামলার তদন্ত কর্মকর্তা মাহফুজুর রহমান।

মামলার বাদী শামিম বিন সাত্তার জানান, গত বছর শৈলকুপা পাইলট উচ্চ বালিকা বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক দিলারা ইয়াসমিনের দুর্নীতির খবর বিভিন্ন পত্রিকায় ও টিভি চ্যানেলে প্রচারের পর তিনি সাংবাদিকদের ওপর ক্ষুদ্ধ হয়ে স্কুলের নামে পরিচালিত ফেসবুক আইডিতে একটি মানহানীকর পোস্ট দেন। পোস্টে তিনি ঝিনাইদহের জৈষ্ঠ্য সাংবাদিক আসিফ ইকবাল কাজল, ডিবিসি চ্যানেলের ঝিনাইদহ প্রতিনিধি আব্দুর রহমান মিল্টন ও শামিম বিন সাত্তারের ছবি ব্যবহার করেন এবং কুরুচিপূর্ণ ভাষায় নানা মন্তব্য করেন। এ ঘটনায় সাংবাদিক আসিফ ইকবাল কাজল ঝিনাইদহ সদর থানায় জিডি করেন।

জিডি করার পর ফেসবুক থেকে আপত্তিকর পোস্টটি সরিয়ে ফেলেন দিলারা ইয়াসমিন। জিডির তদন্ত করতে গিয়ে প্রাথমিক ভাবে ঘটনার সত্যতা পান শৈলকুপা সার্কেলের সহকারী পুলিশ সুপার তারেক আল মেহেদী। তদন্ত রিপোর্ট জমা হওয়ার পর পুলিশ সদর দপ্তর থেকে ঝিনাইদহ পুলিশ সুপারের কাছে পাঠানো হয়। গত ২০ মার্চ পুলিশ সুপার হাসানুজ্জামানের পাঠানো পরামর্শ চিঠির আলোকে সাংবাদিক শামিম বিন সাত্তার বাদী হয়ে রোববার শৈলকুপা থানায় ডিজিটাল আইনের সংশ্লিষ্ট ধারায় মামলাটি করেন।

মামলার বিষয়ে প্রধান শিক্ষীকা দিলারা ইয়াসমিনের সঙ্গে যোগাযোগের চেষ্টা করা হলে তাকে কর্মস্থলে পাওয়া যায়নি ও ব্যবহৃত মোবাইল নাম্বারটিও বন্ধ রয়েছে।শৈলকুপা থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা কাজী আইয়ুবুর রহমান বিষয়টি নিশ্চিত করে বলেন, আমরা আসামিকে গ্রেফতারের চেষ্টা চালাচ্ছি।

সংবাদটি সম্পর্কে আপনার বস্তুনিষ্ট মতামত প্রকাশ করুন

টি মন্তব্য

সংবাদটি শেয়ার করুন

Developed by: