শনিবার, ২৬ মে ২০১৮ খ্রীষ্টাব্দ | ১২ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৫ বঙ্গাব্দ
সর্বশেষ সংবাদ
মিয়ানমারের ওপর অবরোধ আরোপের সুপারিশ কানাডিয়ান দূতের  » «   সালমান খানের সঙ্গে শাকিব খানের তুলনা করলেন পায়েল  » «   বিশ্বকাপ মিশনে নামার আগে মক্কায় পগবা  » «   সিটি নির্বাচনের প্রচারে এমপিরা কি অংশ নিতে পারবেন?  » «   তালিকা অনুযায়ী সবাইকে ধরা হবে: স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী  » «   আমজাদ হোসেনের জার্মানি পতাকা এবার সাড়ে পাঁচ কিলোমিটার  » «   ভক্তদের প্রশ্নের জবাব দিয়ে কক্সবাজার ছাড়লেন প্রিয়াঙ্কা  » «   জাপানে বন্ধুর ক্লাবই নতুন ঠিকানা ইনিয়েস্তার  » «   মুক্তামনির মৃত্যুতে প্রধানমন্ত্রীর শোক  » «   ‘ভারত থেকে এক বালতি পানিও আনতে পারেননি প্রধানমন্ত্রী’-রিজভী  » «   চৌদ্দগ্রামে ‘বন্দুকযুদ্ধে’ মাদক বিক্রেতা নিহত  » «   জবিতে কোটা সংস্কার আন্দোলন নেতার ওপর হামলা  » «   নারীর মন-শরীর নিয়ন্ত্রণ করে পুরুষ আধিপত্য চায়: বিদ্যা  » «   আখাউড়ায় হচ্ছে ইন্টিগ্রেটেড চেকপোস্ট  » «   ২১ ঘণ্টা রোজা রাখছেন ৪ দেশের ধর্মপ্রাণ মুসলমান!  » «  

শিক্ষক নিয়োগে চতুর্থ ধাপের পরীক্ষা ১ জুন



শিক্ষাঙ্গন ডেস্ক ::প্রাথমিকে চলমান সহকারী শিক্ষক নিয়োগের চতুর্থ ধাপের লিখিত পরীক্ষা অনুষ্ঠিত হবে ১ জুন। সকাল ১০টায় পরীক্ষা শুরু হবে। শেষ হবে ১১টা ২০ মিনিটে। এ ধাপে ১৪ জেলায় পরীক্ষা হবে।

গত ১৫ মে প্রাথমিক শিক্ষা অধিদফতর থেকে দেয়া বিজ্ঞপ্তিতে এ তথ্য জানানো হয়েছে। নিয়োগ বিধিমালা অনুযায়ী, পার্বত্য অঞ্চলের বাকি তিন জেলায় কোটাভিত্তিক স্থানীয়ভাবে নিয়োগ দেয়া হবে।

১ জুন যে ১৪ জেলায় পরীক্ষা হবে:

গাজীপুর, নরসিংদী, নেত্রকোনা, কিশোরগঞ্জ, ঢাকা, ময়মনসিংহ, ব্রাক্ষণবাড়িয়া, চাঁদপুর, কুমিল্লা, চট্টগ্রাম, সাতক্ষীরা, যশোর, কুড়িগ্রাম ও নীলফামারী।

এদিকে তৃতীয় ধাপের পরীক্ষা আগামী ২৬ মে অনুষ্ঠিত হবে। এ ধাপে ১৫ জেলায় পরীক্ষা হবে।

জেলাগুলো হলো: জামালপুর, টাঙাইল, ঝিনাইদহ, খুলনা, নাটোর, নওগাঁ, পাবনা, রাজশাহী, সিরাজগঞ্জ, বগুড়া, সিলেট, গাইবান্ধা, দিনাজপুর, রংপুর ও বরিশাল।

দেশের বিভিন্ন সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে শূন্য আসনে রাজস্ব খাতভুক্ত ‘সহকারী শিক্ষক নিয়োগ-২০১৪’ পরীক্ষার মাধ্যমে ১০ হাজার সহকারী শিক্ষক নেয়া হবে। তার বিপরীতে সারাদেশ থেকে প্রায় ছয় লাখ আবেদন জমা পড়েছে।

তৃতীয় ও চতুর্থ ধাপের লিখিত পরীক্ষায় ব্যবহৃত ওএমআর শিট পূরণের নির্দেশনাবলি ও পরীক্ষা-সংক্রান্ত তথ্য www.dpe.gov.bd এই ওয়েবসাইটে পাওয়া যাবে।

উল্লেখ্য, সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে ২০১৪ সালের ৯ ডিসেম্বর থেকে নিয়োগে আবেদন শুরু হয়। চলে ২০১৫ সালের ১২ জানুয়ারি পর্যন্ত। সেখানে ১০ হাজার আসনে প্রায় ১২ লাখ আবেদন জমা পড়ে। পরে মামলা জটিলতায় এ নিয়োগ প্রক্রিয়া স্থগিত হয়ে যায়। চলতি বছরের মার্চে আবারও নিয়োগ কার্যক্রম শুরু হয়।

সংবাদটি সম্পর্কে আপনার বস্তুনিষ্ট মতামত প্রকাশ করুন

টি মন্তব্য

সংবাদটি শেয়ার করুন

Developed by: