বৃহস্পতিবার, ২০ সেপ্টেম্বর ২০১৮ খ্রীষ্টাব্দ | ৫ আশ্বিন ১৪২৫ বঙ্গাব্দ
সর্বশেষ সংবাদ
বিএনপি নেতাদের ওপর ক্ষুব্ধ তারেক রহমান!  » «   পায়রা বন্দরের নিরাপত্তায় পুলিশের বিশেষ আয়োজন  » «   সরকারের চাপের মুখে দেশত্যাগ করতে হয়েছে: এসকে সিনহা  » «   পুতিন আমাকে হত্যার চেষ্টা করেছে : রাশিয়ান মডেল  » «   বঙ্গোপসাগরে নিম্নচাপ: ৩ নম্বর সতর্ক সংকেত  » «   ফের গ্রেপ্তার নাজিব রাজাক; দায়ের হবে ২১ মামলা  » «   প্রাথমিকে শিক্ষক নিয়োগ আবেদনেই প্রতিষ্ঠানের ৪০ কোটিরও বেশি আয় !  » «   ইউএনওদের জন্য উচ্চমূল্যে ১০০ জিপ গাড়ি, আপত্তি অর্থ মন্ত্রণালয়ের  » «   ডিজিটাল হলো জাতীয় পরিচয়পত্রের সেবা ব্যবস্থাপনা  » «   লন্ডনে মুসলিমদের ওপর গাড়ি হামলা, আহত ৩  » «   সরকারি চাকরিজীবীদের ৫% সুদে গৃহঋণের আবেদন অক্টোবরে  » «   ভারতে তিন তালাককে শাস্তিযোগ্য অপরাধ ঘোষণা  » «   স্কুলছাত্রীকে পিটিয়ে অজ্ঞান করলেন শিক্ষক  » «   বোমা দিচ্ছে যুক্তরাষ্ট্র, আর ইয়েমেনে সেই বোমা ফেলছে সৌদি  » «   রাখঢাক রাখছেন না পর্নো তারকা ডানিয়েল স্টর্মি  » «  

শিক্ষক নিয়োগে চতুর্থ ধাপের পরীক্ষা ১ জুন



শিক্ষাঙ্গন ডেস্ক ::প্রাথমিকে চলমান সহকারী শিক্ষক নিয়োগের চতুর্থ ধাপের লিখিত পরীক্ষা অনুষ্ঠিত হবে ১ জুন। সকাল ১০টায় পরীক্ষা শুরু হবে। শেষ হবে ১১টা ২০ মিনিটে। এ ধাপে ১৪ জেলায় পরীক্ষা হবে।

গত ১৫ মে প্রাথমিক শিক্ষা অধিদফতর থেকে দেয়া বিজ্ঞপ্তিতে এ তথ্য জানানো হয়েছে। নিয়োগ বিধিমালা অনুযায়ী, পার্বত্য অঞ্চলের বাকি তিন জেলায় কোটাভিত্তিক স্থানীয়ভাবে নিয়োগ দেয়া হবে।

১ জুন যে ১৪ জেলায় পরীক্ষা হবে:

গাজীপুর, নরসিংদী, নেত্রকোনা, কিশোরগঞ্জ, ঢাকা, ময়মনসিংহ, ব্রাক্ষণবাড়িয়া, চাঁদপুর, কুমিল্লা, চট্টগ্রাম, সাতক্ষীরা, যশোর, কুড়িগ্রাম ও নীলফামারী।

এদিকে তৃতীয় ধাপের পরীক্ষা আগামী ২৬ মে অনুষ্ঠিত হবে। এ ধাপে ১৫ জেলায় পরীক্ষা হবে।

জেলাগুলো হলো: জামালপুর, টাঙাইল, ঝিনাইদহ, খুলনা, নাটোর, নওগাঁ, পাবনা, রাজশাহী, সিরাজগঞ্জ, বগুড়া, সিলেট, গাইবান্ধা, দিনাজপুর, রংপুর ও বরিশাল।

দেশের বিভিন্ন সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে শূন্য আসনে রাজস্ব খাতভুক্ত ‘সহকারী শিক্ষক নিয়োগ-২০১৪’ পরীক্ষার মাধ্যমে ১০ হাজার সহকারী শিক্ষক নেয়া হবে। তার বিপরীতে সারাদেশ থেকে প্রায় ছয় লাখ আবেদন জমা পড়েছে।

তৃতীয় ও চতুর্থ ধাপের লিখিত পরীক্ষায় ব্যবহৃত ওএমআর শিট পূরণের নির্দেশনাবলি ও পরীক্ষা-সংক্রান্ত তথ্য www.dpe.gov.bd এই ওয়েবসাইটে পাওয়া যাবে।

উল্লেখ্য, সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে ২০১৪ সালের ৯ ডিসেম্বর থেকে নিয়োগে আবেদন শুরু হয়। চলে ২০১৫ সালের ১২ জানুয়ারি পর্যন্ত। সেখানে ১০ হাজার আসনে প্রায় ১২ লাখ আবেদন জমা পড়ে। পরে মামলা জটিলতায় এ নিয়োগ প্রক্রিয়া স্থগিত হয়ে যায়। চলতি বছরের মার্চে আবারও নিয়োগ কার্যক্রম শুরু হয়।

সংবাদটি সম্পর্কে আপনার বস্তুনিষ্ট মতামত প্রকাশ করুন

টি মন্তব্য

সংবাদটি শেয়ার করুন

Developed by: