রবিবার, ১৬ জুন ২০১৯ খ্রীষ্টাব্দ | ২ আষাঢ় ১৪২৬ বঙ্গাব্দ
সর্বশেষ সংবাদ
বিকল্প কর্মসংস্থানের ব্যবস্থা না থাকায় ভালো নেই সুনামগঞ্জের হাওরাঞ্চলের মানুষ  » «   সীমান্তে বাংলাদেশি হত্যা ‘অনাকাঙ্ক্ষিত মৃত্যু’: বিএসএফ মহাপরিচালক  » «   সর্বোচ্চ চেষ্টা’ করেও ওসি মোয়াজ্জেমকে ধরতে পারছে না পুলিশ  » «   পৃথিবীর ইতিহাসে সর্বোচ্চ তাপমাত্রার রেকর্ড কুয়েতে  » «   রোহিঙ্গা সংকট সমাধান না হলে অস্থিতিশীল হবে এশিয়া: রাষ্ট্রপতি  » «   অবশেষে ইমরান-মোদির সৌজন্য সাক্ষাৎ  » «   এমপিও পাবেন মাদরাসার সাড়ে ২১ হাজার শিক্ষক  » «   বাজেট সমালোচকদের যে গল্প শোনালেন প্রধানমন্ত্রী  » «   সুনামগঞ্জে পরিবহন সেক্টরে নৈরাজ্য ঠেকাতে প্রতিবাদ  » «   পশ্চিমবঙ্গে থাকতে হলে বাংলায় কথা বলতে হবে: মমতা  » «   ইকোসকে বিপুল ভোটে জয় পেল বাংলাদেশ  » «   মোবাইলে ১০০ টাকার কথা বললে ২৭ টাকা কেটে নেবে সরকার  » «   সাক্ষ্য দিতে চাওয়ায় প্রাণটাই কেড়ে নিল আসামিরা  » «   পশ্চিমবঙ্গকে বাংলাদেশ নয়; গুজরাট বানানো ভাল : দিলীপ ঘোষ  » «   বাজেটের প্রভাব: দাম বাড়বে যেসব জিনিসের  » «  

শাহজালাল বিমানবন্দরে ইমিগ্রেশন কার্যক্রম বন্ধ



নিউজ ডেস্ক::হযরত শাহজালাল আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরের ১ নং টার্মিনালের ইমিগ্রেশন বিভাগের দোতলায় অগ্নিকাণ্ড ঘটেছে। রবিবার (১৫ জুলাই) সন্ধ্যায় সেখানে আগুন ধরে যায়। খবর পেয়ে ঘটনাস্থলে গেছে ফায়ার সার্ভিসের সাতটি ইউনিট। দমকল কর্মীরা এখন আগুন নিয়ন্ত্রণে আনতে কাজ করছেন। বিমানবন্দরে ইমিগ্রেশন কার্যক্রম বন্ধ রয়েছে।

বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন, ফায়ার সার্ভিস ও সিভিল ডিফেন্সের নিয়ন্ত্রণ কক্ষের ডিউটি অফিসার আতাউর রহমান। তিনি জানান, ঘটনাস্থলে আগুন নিয়ন্ত্রণে কাজ করছে ফায়ার সার্ভিসের ৭টি ইউনিট।

তবে ঠিক কি কারণে এ অগ্নিকাণ্ডের ঘটনা ঘটেছে তা তাৎক্ষণাত নিশ্চিত হওয়া যায়নি। এছাড়া হতাহতের কোনো সম্ভাবনা রয়েছে কিনা তাও জানা যায়নি।

অগ্নিকাণ্ডের ঘটনায় হজ যাত্রীসহ সিডিউল ফ্লাইটের বিপুল সংখ্যক যাত্রীদের মধ্যে আতঙ্ক ছড়িয়ে পড়ে।

উল্লেখ্য, এর আগে, গত বছর হযরত শাহজালাল বিমানবন্দরে মূল ভবনে অগ্নিকাণ্ডের ঘটনা ঘটে।

তখন বিমানবন্দরে আগুন লাগার খবরে মূল ভবনের সব কার্যক্রম বন্ধ হয়ে যায়। জানা যায়, বিমানবন্দরের মূল ভবনের তিনতলায় এয়ার ইন্ডিয়ার অফিসে বৈদ্যুতিক শটসার্কিটের মাধ্যমে আগুনের সূত্রপাত হয়। মুহূর্তের মধ্যে আগুন পাশের আরও দু’টি অফিস কক্ষে ছড়িয়ে পড়ে।

কর্তব্যরত কর্মকর্তারা অগ্নিনির্বাপণ গ্যাস দিয়ে আগুন নিয়ন্ত্রণে আনতে ব্যর্থ হয়। এরপর ছুটে আসে বিমানবন্দরের নিজস্ব ফায়ার ইউনিট। তার সঙ্গে যোগ দেয় ফায়ার সার্ভিসের ১০টি ইউনিট।

এ সময় দুপুর দেড়টার পর থেকে বিকেল চারটা পর্যন্ত সকল ধরনের ফ্লাইট ওঠানামা বন্ধ করে দেওয়া হয়। পরে বিকাল চারটার দিকে বিমানবন্দরে সকল কার্যক্রম আনুষ্ঠানিকভাবে শুরু হয়।

সংবাদটি সম্পর্কে আপনার বস্তুনিষ্ট মতামত প্রকাশ করুন

টি মন্তব্য

সংবাদটি শেয়ার করুন

Developed by: