শনিবার, ১৯ জানুয়ারী ২০১৯ খ্রীষ্টাব্দ | ৬ মাঘ ১৪২৫ বঙ্গাব্দ
সর্বশেষ সংবাদ
দেশীয় কোম্পানির ক্যাপসুলে চলতি মাসেই ভিটামিন ‘এ’ ক্যাম্পেইন!  » «   মঞ্চে প্রধানমন্ত্রী, নাচ-গান-স্লোগানে মুখরিত বিজয় উৎসব  » «   ধনী বৃদ্ধির হারে বাংলাদেশ বিশ্বের তৃতীয় দেশ  » «   ভোটাধিকার হাইজ্যাক করেছে আওয়ামী লীগ : ড. কামাল  » «   রাজনৈতিক দলগুলোকে সংলাপে বসার আহ্বান জাতিসংঘের  » «   আওয়ামী লীগের বিজয় উৎসব ঘিরে কঠোর নিরাপত্তা  » «   অ্যাসাঞ্জের গোপন বৈঠকের খোঁজ নিচ্ছে যুক্তরাষ্ট্র  » «   সৌদি নারীদের বিয়ে করতে পারবে বাংলাদেশিরা, মিলবে ভাতা  » «   এমপি কয়েসের হাত ধরে বিএনপির হাবিব এখন আওয়ামী লীগে  » «   জিয়াউর রহমানের ৮৩তম জন্মবার্ষিকী আজ  » «   রোহিঙ্গাদের দেখতে আজ বাংলাদেশে আসছেন জাতিসংঘের দূত  » «   ‘দম বন্ধ হয়ে আসছে, আমাকে ছেড়ে দিন’  » «   দুই যুগে কতটা সফল ঢাকা আন্তর্জাতিক বাণিজ্য মেলা?  » «   কলম্বিয়ায় পুলিশ একাডেমিতে গাড়িবোমা বিস্ফোরণ, নিহত ১০  » «   সোহরাওয়ার্দীতে আজ আওয়ামী লীগের বিজয় সমাবেশ  » «  

শত বছর ধরে গির্জা রক্ষণাবেক্ষণ করছে মুসলিম পরিবার!



আন্তর্জাতিক ডেস্ক:: পাকিস্তানের এক গ্রাম্য এলাকায় অবস্থিত বহু পুরনো সেন্ট ম্যাথিউস গির্জাটি গত ১০০ বছর ধরে দেখাশোনা করছেন স্থানীয় এক মুসলিম পরিবার।

গির্জাটি বর্তমানে যিনি দেখাশোনার দায়িত্বে আছেন তার নাম ওয়াহিদ মুরাদ। তিনিই একমাত্র ব্যক্তি যিনি জানেন কীভাবে ওই গির্জার ঘণ্টা বাজাতে হয়। বিবিসিকে তিনি বলেন, এই কাজ করতে কেন তিনি গর্ব বোধ করেন। তার বক্তব্য গির্জা একটা ধর্মীয় উপাসনাস্থল এবং সব উপাসনাস্থলকে তিনি শ্রদ্ধা করেন।

মুরাদ জানান, ‘যে কোন উপাসনাস্থল দেখাশোনা করা আমাদের কর্তব্য। গির্জা দেখাশোনার দায়িত্ব নিতে আমার কোন দ্বিধা-দ্বন্দ্ব নেই। আমার নানা এখানে কাজ করেছেন ৩৫ বছর, এরপর আমার আব্বা ৪৫ বছর। আর আমিও গত ১৭ বছর ধরে এই গির্জার দেখভাল করছি। আমি লজ্জা পাই না, বরং গর্ব লাগে যে আমাদের পরিবার বংশানুক্রমে গত প্রায় একশ বছর ধরে এই গির্জার দেখাশোনা করছে।’

তিনি আরো বলেন, তিনি মুসলমান। তিনি তার নিজের ধর্ম পালন করেন। কিন্তু একই সঙ্গে এই গির্জার রক্ষণাবেক্ষণের কাজও তিনি করছেন এবং একাজ তিনি চালিয়ে যেতে চান বলে জানান।নাথিয়া গালি নামে পাহাড়ি গ্রামে এই সেন্ট ম্যাথিউস গির্জাটি একশ বছর আগে বানিয়েছিল ব্রিটিশরা। ওই এলাকায় খ্রিস্টানরা এখন বাস করে না বললেই চলে।

সূত্র: বিবিসি বাংলা।

সংবাদটি সম্পর্কে আপনার বস্তুনিষ্ট মতামত প্রকাশ করুন

টি মন্তব্য

সংবাদটি শেয়ার করুন

Developed by: