শুক্রবার, ১৮ জানুয়ারী ২০১৯ খ্রীষ্টাব্দ | ৫ মাঘ ১৪২৫ বঙ্গাব্দ
সর্বশেষ সংবাদ
জিয়াউর রহমানের জন্মবার্ষিকী উপলক্ষে কর্মসূচি ঘোষণা  » «   সীমান্তের খালে মিয়ানমারের সেতু, বন্যার আশঙ্কা বাংলাদেশে  » «   দ্বিতীয় কৃত্রিম উপগ্রহ পাঠাবে বাংলাদেশ: শাবিতে পরিকল্পনামন্ত্রী  » «   আতিয়া মহল মামলা: ৫ দিনের রিমান্ডে ৩ আসামি  » «   শেখ হাসিনা হত্যাচেষ্টা মামলা: হাইকোর্টে আপিল শুনানি শুরু  » «   টিআইবির রিপোর্টে সরকার ও ইসির আঁতে ঘা লেগেছে: বিএনপি  » «   মাফিয়াদের স্বর্গরাজ্যে দশ বাংলাদেশির অনন্য সাহসিকতার নজির  » «   ১৪ দলের শরিকদের বিরোধী দলে থাকাই ভালো: ওবায়দুল কাদের  » «   সন্ত্রাস-মাদক-জঙ্গিবাদের মতো দুর্নীতির বিরুদ্ধেও ‘জিরো টলারেন্স’ : প্রধানমন্ত্রী  » «   সংসদ সদস্যদের শপথের বৈধতা নিয়ে রিট খারিজ  » «   কৃত্রিম কিডনি তৈরি করলেন বাঙালি বিজ্ঞানী  » «   ব্রেক্সিট ইস্যু: অনাস্থা ভোটে টিকে গেলেন তেরেসা মে  » «   টিআইবির প্রতিবেদন গ্রহণযোগ্য নয়, পুরোপুরি প্রত্যাখ্যান করি: সিইসি  » «   জনপ্রশাসন মন্ত্রণালয়ে অফিস করছেন শেখ হাসিনা  » «   সংসদ কার্যকর রাখতেই বিরোধী দলে জাপা : জিএম কাদের  » «  

লবণ খেতে গিয়ে প্লাস্টিক খাচ্ছেন না তো?



লাইফ স্টাইল ডেস্ক:: সারা পৃথিবীর ৯০ শতাংশ টেবিল সল্টেই থাকতে পারে মাইক্রোপ্লাস্টিক,জানা গেছে এক গবেষণায়।গবেষণাটি প্রকাশিত হয় এনভায়রনমেন্টাল সায়েন্স অ্যান্ড টেকনোলজি জার্নালে।একজন প্রাপ্তবয়স্ক মানুষ বছরে গড়ে ২০০০টি মাইক্রোপ্লাস্টিক খেয়ে থাকতে পারেন শুধু লবণের কারণেই।

প্লাস্টিকের এসব টুকরো ৫ মিলিমিটারের চেয়েও ছোট,অনেকটা তিলের বীজের মতো।প্লাস্টিকের বড় টুকরো ভেঙ্গে এসব মাইক্রোপ্লাস্টিক তৈরি হয়।শুধু লবণ নয়,প্রসাধনী,ক্লিনার এমনকি টুথপেস্টেও রয়েছে এসব প্লাস্টিক।বাথরুমের পানির সাথে এসব মাইক্রোপ্লাস্টিক সাগরে যায় এবং একটা সময়ে লবণের সাথে আপনার প্লেটে চলে আসে।

লবণে কী পরিমাণে মাইক্রোপ্লাস্টিক থাকে তা জানার জন্য দক্ষিণ কোরিয়ার গবেষকরা গ্রিনপিস ইস্ট এশিয়ার সাথে সংঘবদ্ধ হন। ইউরোপ, আফ্রিকা, এশিয়া, উত্তর ও দক্ষিণ আমেরিকা মহাদেশের ২১টি দেশের ৩৯টি ব্র্যান্ডের লবণ নিয়ে তারা গবেশনা করেন। একেক ব্র্যান্ডে প্লাস্টিকের পরিমাণ একেক রকম দেখা যায়। ব্র্যান্ডের নাম যদিও তারা প্রকাশ করেননি, তবে জানিয়েছেন যে এশিয়ার ব্র্যান্ডের লবণে প্লাস্টিকের পরিমাণ সবচেয়ে বেশি, বিশেষ করে ইন্দোনেশিয়ায়।

সাগরের পানি থেকে তৈরি লবণে বেশি প্লাস্টিক থাকে। অন্যদিকে বিভিন্ন লেকের পানি ও খনিজ লবণেও প্লাস্টিক থাকে, তবে এত বেশি নয়। শুধুমাত্র তাইওয়ান, চীন, ও ফ্রান্সের তিনটি ব্র্যান্ডের লবণে কোনো প্লাস্টিক ছিল না।

গবেষকদের মতে,কোনো একটি এলাকায় প্লাস্টিক কত বেশি ব্যবহার হচ্ছে তার ওপর নির্ভর করে ওই এলাকায় তৈরি লবণে প্লাস্টিকের পরিমাণ বেশি হয়। লবণে প্লাস্টিক কমাতে প্লাস্টিকের ব্যবহার কমানো এবং প্লাস্টিক বর্জ্যের সঠিক ব্যবস্থাপনার বিকল্প নেই।

সুত্র: আইএফএলসায়েন্স

সংবাদটি সম্পর্কে আপনার বস্তুনিষ্ট মতামত প্রকাশ করুন

টি মন্তব্য

সংবাদটি শেয়ার করুন

Developed by: