মঙ্গলবার, ২৬ মার্চ ২০১৯ খ্রীষ্টাব্দ | ১২ চৈত্র ১৪২৫ বঙ্গাব্দ
সর্বশেষ সংবাদ
বিরোধী দলীয় উপনেতা হলেন রওশন এরশাদ  » «   সিলেট যাত্রীদের দাবি মেনে নেওয়ার আশ্বাস বিমানের  » «   ১ এপ্রিল থেকে সব কোচিং সেন্টার বন্ধ  » «   সুবর্ণচরে গণধর্ষণ: আইনজীবীর বিরুদ্ধে আদালত অবমাননার আবেদন  » «   ‘১১ বছর বয়সে বাবা আমাকে নিষিদ্ধপল্লীতে বিক্রি করে দেন’  » «   আকস্মিক ঢাকার কূটনৈতিক পাড়ায় ২৪ ঘন্টার রেড অ্যালার্ট জারি  » «   নির্বাচনে রাশিয়া-ট্রাম্প আঁতাতের প্রমাণ মেলেনি মুলারের তদন্তে  » «   ১২ ব্যক্তি ও এক প্রতিষ্ঠানকে স্বাধীনতা পদক দিলেন প্রধানমন্ত্রী  » «   এবার ক্যালিফোর্নিয়ায় মসজিদে আগুন, চিরকুট উদ্ধার  » «   ফাঁকা বাসে ভয়ঙ্কর ফাঁদ, টার্গেট কম বয়সী নারী যাত্রী  » «   রিমান্ডে বিমানবালা: যেভাবে হয় সৌদি আরব থেকে স্বর্ণ আনার চুক্তি  » «   আজ ভয়াল ২৫ মার্চ, গণহত্যার স্বীকৃতি চায় বাংলাদেশ  » «   সিলেটের আতিয়া মহলে অভিযান: দুই বছরেও আসেনি চার্জশিট  » «   বাড়ছে দূতাবাস, গুরুত্ব পাচ্ছে অর্থনৈতিক কূটনীতি  » «   একাত্তরের গণহত্যা আন্তর্জাতিক ফোরামগুলোতে তুলবে জাতিসংঘ  » «  

লবণ খেতে গিয়ে প্লাস্টিক খাচ্ছেন না তো?



লাইফ স্টাইল ডেস্ক:: সারা পৃথিবীর ৯০ শতাংশ টেবিল সল্টেই থাকতে পারে মাইক্রোপ্লাস্টিক,জানা গেছে এক গবেষণায়।গবেষণাটি প্রকাশিত হয় এনভায়রনমেন্টাল সায়েন্স অ্যান্ড টেকনোলজি জার্নালে।একজন প্রাপ্তবয়স্ক মানুষ বছরে গড়ে ২০০০টি মাইক্রোপ্লাস্টিক খেয়ে থাকতে পারেন শুধু লবণের কারণেই।

প্লাস্টিকের এসব টুকরো ৫ মিলিমিটারের চেয়েও ছোট,অনেকটা তিলের বীজের মতো।প্লাস্টিকের বড় টুকরো ভেঙ্গে এসব মাইক্রোপ্লাস্টিক তৈরি হয়।শুধু লবণ নয়,প্রসাধনী,ক্লিনার এমনকি টুথপেস্টেও রয়েছে এসব প্লাস্টিক।বাথরুমের পানির সাথে এসব মাইক্রোপ্লাস্টিক সাগরে যায় এবং একটা সময়ে লবণের সাথে আপনার প্লেটে চলে আসে।

লবণে কী পরিমাণে মাইক্রোপ্লাস্টিক থাকে তা জানার জন্য দক্ষিণ কোরিয়ার গবেষকরা গ্রিনপিস ইস্ট এশিয়ার সাথে সংঘবদ্ধ হন। ইউরোপ, আফ্রিকা, এশিয়া, উত্তর ও দক্ষিণ আমেরিকা মহাদেশের ২১টি দেশের ৩৯টি ব্র্যান্ডের লবণ নিয়ে তারা গবেশনা করেন। একেক ব্র্যান্ডে প্লাস্টিকের পরিমাণ একেক রকম দেখা যায়। ব্র্যান্ডের নাম যদিও তারা প্রকাশ করেননি, তবে জানিয়েছেন যে এশিয়ার ব্র্যান্ডের লবণে প্লাস্টিকের পরিমাণ সবচেয়ে বেশি, বিশেষ করে ইন্দোনেশিয়ায়।

সাগরের পানি থেকে তৈরি লবণে বেশি প্লাস্টিক থাকে। অন্যদিকে বিভিন্ন লেকের পানি ও খনিজ লবণেও প্লাস্টিক থাকে, তবে এত বেশি নয়। শুধুমাত্র তাইওয়ান, চীন, ও ফ্রান্সের তিনটি ব্র্যান্ডের লবণে কোনো প্লাস্টিক ছিল না।

গবেষকদের মতে,কোনো একটি এলাকায় প্লাস্টিক কত বেশি ব্যবহার হচ্ছে তার ওপর নির্ভর করে ওই এলাকায় তৈরি লবণে প্লাস্টিকের পরিমাণ বেশি হয়। লবণে প্লাস্টিক কমাতে প্লাস্টিকের ব্যবহার কমানো এবং প্লাস্টিক বর্জ্যের সঠিক ব্যবস্থাপনার বিকল্প নেই।

সুত্র: আইএফএলসায়েন্স

সংবাদটি সম্পর্কে আপনার বস্তুনিষ্ট মতামত প্রকাশ করুন

টি মন্তব্য

সংবাদটি শেয়ার করুন

Developed by: