রবিবার, ২৪ মার্চ ২০১৯ খ্রীষ্টাব্দ | ১০ চৈত্র ১৪২৫ বঙ্গাব্দ
সর্বশেষ সংবাদ
একাত্তরের গণহত্যা আন্তর্জাতিক ফোরামগুলোতে তুলবে জাতিসংঘ  » «   এ বছর থেকেই তৃতীয় শ্রেণি পর্যন্ত থাকছে না পরীক্ষা  » «   মসজিদে হামলা: ৮ দিনেও জ্ঞান ফেরেনি চার বছর বয়সী আলিনের  » «   মালিতে ১৩৪ মুসলিম আদিবাসীকে গুলি করে হত্যা  » «   ইভিএমএ ভোট দেই এক জায়গায়,আরেক জায়গায়  » «   ভোটকেন্দ্র দখল নিয়ে দু’পক্ষের গোলাগুলি, গুলিবিদ্ধ পুলিশ সদস্য  » «   আড়াই ঘণ্টায় ভোট পড়েছে ৩টি!  » «   ব্রেক্সিট ঠেকাতে ফের গণভোট ও মে’র পদত্যাগ দাবিতে উত্তাল ব্রিটেন  » «   যুক্তরাষ্ট্র সীমান্তে চরম হেনস্থার শিকার ৯ বছরের বালিকা  » «   রাতেই ব্যালটে সিল মারায় নির্বাচন স্থগিত  » «   বাসচাপায় সিকৃবি ছাত্র হত্যা, চালক-হেলপার গ্রেফতার  » «   উপজেলা পরিষদ নির্বাচনে তৃতীয় ধাপের ভোটগ্রহণ চলছে  » «   লাগামহীনভাবে বাড়ছে দ্রব্যমূল্য: রমজানপূর্ব মজুদদারিতে কারসাজি  » «   সন্ত্রাস ও হিংসা মোকাবেলায় একসঙ্গে কাজ করতে পাকিস্তানকে আহ্বান মোদির  » «   সংসদে লুকিয়ে চকলেট খেয়ে ক্ষমা চাইলেন ট্রুডো!  » «  

‘লজ্জা-শরমের মাথা খেয়ে বলে দিলাম’



বিনোদন ডেস্ক::মডেল ও অভিনেত্রী ফারিয়া শাহরিন। সম্প্রতি মালেশিয়া থেকে দেশে ফিরে একটি বিভ্রান্তিমূলক মন্তব্য করে শোবিজ জগতে বিতর্কের সৃষ্টি করেন। মালেশিয়া প্রবাসী ফারিয়া গত সফরে মাত্র একটি নাটক করেই আবার মালেশিয়ায় উড়াল দেন। পড়ালেখার কাজে বর্তমানে সেখানেই রয়েছেন।

এরই মধ্যে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুকে নিজের একটি অনুভূতির কথা জানালেন ফারিয়া শাহরিন। অনেক বেশি প্রত্যাশা থাকা সত্বেও পুরস্কার না পাওয়ার কষ্টময় অনুভূতি কেমন, সেটাই যেন বললেন তিনি।

ফেসবুক স্ট্যাটাসে ফারিয়া লিখেছেন, একটা দুঃখের কথা শেয়ার করি। অনেক আগে থেকে করবো করবো করেও করিনাই। আজ লজ্জা-শরমের মাথা খেয়ে বলে দিলাম। আমি যখন বাংলালিংক কাস্টমার কেয়ার (কথা দিলাম) বিজ্ঞাপনটা করলাম, যেটার জন্য আমাকে মানুষ চিনে। সেই বছর আমি মানুষের প্রতিক্রিয়া আর উৎসাহ দেখে ধরেই নিয়েছিলাম ‘মেরিল প্রথম আলো পুরস্কার’-এ বেস্ট মডেল এইবার তো আমি হবোই।

তিনি লিখেছেন, আমি খুব এক্সাইটেড ছিলাম, কারণ মেরিল প্রথম আলো পুরস্কার আমার মনে হয় সঠিক বিচার-বিশ্লেষণ করে। যা একদমই পক্ষপাতমূলক না। কিন্তু হলো না। ‘বেস্ট মডেল’-এর পুরস্কার দেয়াই বন্ধ হয়ে গেলো তখন থেকে। আর আমার স্বপ্ন স্বপ্নই রয়ে গেলো।

স্ট্যাটাসে ফারিয়া আরো বলেন, আর তো পূরণ হওয়ার কোনো সম্ভাবনাই মনে হয় নেই। কিন্তু যারা এই পুরস্কার জেতেন, তাদের ভাগ্য দেখে খুব হিংসা হয়। কিন্তু ভালোও লাগে যে, তারা তাদের কষ্টের পুরস্কারটা পেলো। দেখি বাচ্চা-কাচ্চা হলে ওরা যদি পায় আর কি তাও শান্তি লাগবে। হে হে …তবে আমি খুব খুশি মেহজাবিন ও অপূর্ব ভাই অ্যাওয়ার্ড পেয়েছে তাই। কারণ তারাই শতভাগ যোগ্য ছিলো। এজন্যই এই অ্যাওয়ার্ডটা এতো ভালো লাগে।

উল্লেখ্য, ২০০৭ সালে ‘লাক্স-চ্যানেল আই সুপারস্টার’ প্রতিযোগিতায় প্রথম রানারআপ হন ফারিয়া শাহরিন। এরপর নাটক আর বিজ্ঞাপনচিত্রে কাজ করেন। অভিনয় করেছেন চলচ্চিত্রেও। তবে তাঁর সমসাময়িকদের তুলনায় ফারিয়ার কাজের সংখ্যা একেবারেই কম।

সংবাদটি সম্পর্কে আপনার বস্তুনিষ্ট মতামত প্রকাশ করুন

টি মন্তব্য

সংবাদটি শেয়ার করুন

Developed by: