শনিবার, ১৯ জানুয়ারী ২০১৯ খ্রীষ্টাব্দ | ৬ মাঘ ১৪২৫ বঙ্গাব্দ
সর্বশেষ সংবাদ
সৌদি নারীদের বিয়ে করতে পারবে বাংলাদেশিরা, মিলবে ভাতা  » «   এমপি কয়েসের হাত ধরে বিএনপির হাবিব এখন আওয়ামী লীগে  » «   জিয়াউর রহমানের ৮৩তম জন্মবার্ষিকী আজ  » «   রোহিঙ্গাদের দেখতে আজ বাংলাদেশে আসছেন জাতিসংঘের দূত  » «   ‘দম বন্ধ হয়ে আসছে, আমাকে ছেড়ে দিন’  » «   দুই যুগে কতটা সফল ঢাকা আন্তর্জাতিক বাণিজ্য মেলা?  » «   কলম্বিয়ায় পুলিশ একাডেমিতে গাড়িবোমা বিস্ফোরণ, নিহত ১০  » «   সোহরাওয়ার্দীতে আজ আওয়ামী লীগের বিজয় সমাবেশ  » «   জিয়াউর রহমানের জন্মবার্ষিকী উপলক্ষে কর্মসূচি ঘোষণা  » «   সীমান্তের খালে মিয়ানমারের সেতু, বন্যার আশঙ্কা বাংলাদেশে  » «   দ্বিতীয় কৃত্রিম উপগ্রহ পাঠাবে বাংলাদেশ: শাবিতে পরিকল্পনামন্ত্রী  » «   আতিয়া মহল মামলা: ৫ দিনের রিমান্ডে ৩ আসামি  » «   শেখ হাসিনা হত্যাচেষ্টা মামলা: হাইকোর্টে আপিল শুনানি শুরু  » «   টিআইবির রিপোর্টে সরকার ও ইসির আঁতে ঘা লেগেছে: বিএনপি  » «   মাফিয়াদের স্বর্গরাজ্যে দশ বাংলাদেশির অনন্য সাহসিকতার নজির  » «  

রোহিঙ্গা প্রত্যাবাসনের নিরাপত্তা যাচাইয়ে আসছেন জাতিসংঘের দূত



নিউজ ডেস্ক:: আসন্ন রোহিঙ্গা প্রত্যাবাসন কতটা নিরাপদ তা খতিয়ে দেখতে ঢাকায় আসছেন জাতিসংঘের মিয়ানমার বিষয়ক বিশেষ দূত ক্রিস্টিন সরনার বার্গনার। রোহিঙ্গা ইস্যুতে বুধবার (৭ নভেম্বর) রাতে ঢাকায় আসছেন তিনি।

সুইডিশ কূটনীতিক বার্গনার বাংলাদেশ সফরে কক্সবাজারের একাধিক শিবির পরিদর্শন করবেন।এছাড়া সরকারের সংশ্লিষ্টদের সঙ্গে রোহিঙ্গা পরিস্থিতি নিয়ে আলাপ করবেন তিনি।

কূটনৈতিক সূত্র জানিয়েছে, বার্গনার ৭ থেকে ১১ নভেম্বর পর্যন্ত বাংলাদেশ সফর করবেন।এ সময় তিনি কক্সবাজারের একাধিক রোহিঙ্গা শিবির পরিদর্শন করবেন।এছাড়া রোহিঙ্গা ইস্যুতে সরকারের সংশ্লিষ্ট নীতি নির্ধারণী পর্যায়ে আলোচনা করার চেষ্টা চালাবেন।

এদিকে, বাংলাদেশ-মিয়ানমার দুই দেশের জয়েন্ট ওয়ার্কিং গ্রুপ গত ৩০ অক্টোবর এক বৈঠক শেষে মধ্য নভেম্বর থেকে রোহিঙ্গা প্রত্যাবাসন শুরুর সিদ্ধান্ত নিয়েছে।প্রত্যাবাসন নিয়ে দুই দেশের নেয়া এই সিদ্ধান্তের প্রতি জাতিসংঘসহ আন্তর্জাতিক একাধিক সংস্থা ও রাষ্ট্র সমর্থন জানায়নি।

সূত্র বলেছে, যাদের নাম প্রত্যাবাসনের জন্য দেয়া হয়েছে তাদের সঙ্গেও কথা বলবে বার্গনার।রোহিঙ্গা প্রত্যাবাসনের পুরো বিষয় মূল্যায়ন করে তিনি জাতিসংঘসহ সংশ্লিষ্টদের তা জানাবেন।

এদিকে, জাতিসংঘের মানবাধিকার বিশেষজ্ঞ ইয়াহি লি স্থানীয় সময় মঙ্গলবার (৬ নভেম্বর) জেনেভায় এক বিবৃতিতে বলেন, ‘রোহিঙ্গা প্রত্যাবাসনের জন্য মিয়ানমারে কোনো ধরনের অনুকূল পরিবেশের সৃষ্টি হয়েছে, এমন কোনো আলামত চোখে পড়ছে না।

তিনি বলেন,‘ফিরে যাওয়া রোহিঙ্গাদের নিরাপত্তার বিষয় এখনো নিশ্চিত করতে পারেনি মিয়ানমার সরকার।আমার কাছে তথ্য আছে যে, প্রত্যাবাসনের জন্য নাম দেওয়া রোহিঙ্গারা আতঙ্কে রয়েছে।’

লি আরও বলেন,‘যারা মিয়ানমার ফিরে যাবেন তাদের জন্য কয়েকটা অবকাঠামো নির্মাণ করা হয়েছে। কিন্তু এতেই কী রোহিঙ্গা জনগোষ্ঠীর অধিকার প্রতিষ্ঠিত হয়? নিরাপদে বসবাস, পূর্ণ নাগরিক মর্যাদা, চলাফেরার স্বাধীনতা, কাজ করার স্বাধীনতা এবং স্বাস্থ্য ও শিক্ষা সেবার নিশ্চিত না হওয়া পর্যন্ত প্রত্যাবাসন ঝুঁকিপূর্ণ।’

সংবাদটি সম্পর্কে আপনার বস্তুনিষ্ট মতামত প্রকাশ করুন

টি মন্তব্য

সংবাদটি শেয়ার করুন

Developed by: