সোমবার, ২৪ সেপ্টেম্বর ২০১৮ খ্রীষ্টাব্দ | ৯ আশ্বিন ১৪২৫ বঙ্গাব্দ
সর্বশেষ সংবাদ
মুসলিম বিশ্ব বিপজ্জনক চ্যালেঞ্জর মুখে: সৌদি বাদশাহকে এরদোয়ানের হুঁশিয়ারি  » «   ‘জগাখিচুড়ি মার্কা ঐক্য টিকবে না’–কাদের  » «   ইমরানের এক টুইটেই দরজা বন্ধ!  » «   কুচকাওয়াজে হামলার প্রতিশোধে ইরানকে সহযোগিতা করবে রাশিয়া  » «   ডিজিটাল নিরাপত্তা আইন: ৩ উৎকণ্ঠা ৩ দাবি  » «   টেস্টে উত্তীর্ণ না হলে মূল পরীক্ষায় বসার সুযোগ নেই  » «   সরকার উৎখাতে দুর্নীতিবাজরা জোট বেঁধেছে: প্রধানমন্ত্রী  » «   জাতীয় নির্বাচন শান্তিপূর্ণ না হওয়ার কারণ দেখছি না: বনমন্ত্রী  » «   যুক্তরাষ্ট্রে পৌঁছেছেন প্রধানমন্ত্রী  » «   মালদ্বীপের প্রেসিডেন্ট নির্বাচনে বিরোধীদলের বিজয় দাবি  » «   দেশের তিন শিশুর একটি খর্বকায়  » «   লন্ডনে প্রধানমন্ত্রীর হো‌টে‌লের সাম‌নে বৃষ্টি উপেক্ষা করে বিএন‌পির বিক্ষোভ  » «   বিশ্বের চতুর্থ ভয়ঙ্করতম সংগঠন মাওবাদী!  » «   ফেঁসে যাচ্ছেন যুক্তরাষ্ট্রে গ্রিন কার্ড আবেদনকারীরা  » «   শাবিপ্রবিতে ছাত্রী হলের পানিতে মিলছে কেঁচো-জোঁক!  » «  

রুয়েটে শিক্ষার্থীদের অবস্থান ধর্মঘট



পরবর্তী বর্ষে উত্তীর্ণ হওয়ার ক্ষেত্রে বাধ্যতামূলক ন্যূনতম ক্রেডিট অর্জনের পদ্ধতি বাতিলের দাবিতে অবস্থান ধর্মঘট কর্মসূচি পালন করছে রাজশাহী প্রকৌশল ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের (রুয়েট) শিক্ষার্থীরা। শনিবার সকাল ৮টা থেকে বিশ্ববিদ্যালয়ের শহীদ মিনারের সামনে এ কর্মসূচি শুরু হয়েছে।

এর আগে ২০১৫ সালের ১১ আগস্ট ২০১৩-১৪ শিক্ষাবর্ষের শিক্ষার্থীরা একই দাবিতে প্রশাসন ভবনের সামনে আন্দোলন করে।

সরেজমিনে দেখা যায়, রুয়েটের ২০১৩-১৪, ২০১৪-১৫, ২০১৫-১৬ শিক্ষাবর্ষের শিক্ষার্থীরা বিশ্ববিদ্যালয়ের শহীদ মিনারের সামনে ন্যূনতম ৩৩ ক্রেডিট অর্জনের সিস্টেম বাতিলের দাবিতে অবস্থান নিয়েছে।

শিক্ষার্থীদের অভিযোগ, এক বর্ষ থেকে আরেক বর্ষে উত্তীর্ণ হতে তাদেরকে ৪০ ক্রেডিটের মধ্যে ন্যূনতম  ৩৩ ক্রেডিট অর্জন করার নিয়ম করা হয়েছে। এর আগে কেউ এই ক্রেডিট অর্জন করতে না পারলেও পরবর্তী বর্ষে উত্তীর্ণ হতে পারতো। পরবর্তীতে পরীক্ষা দিয়ে ক্রেডিট পূরণের সুযোগ ছিল। কিন্তু ২০১৩-১৪ শিক্ষাবর্ষ থেকে এ পদ্ধতি তুলে নেয়া হয়েছে। এখন কোনো শিক্ষার্থী যদি ন্যূনতম ক্রেডিট অর্জন করতে না পারে তবে  সে পরবর্তী বর্ষে উত্তীর্ণ হতে পারবে না। তাকে আগের বর্ষে থেকে পুনরায় পরীক্ষা দিয়ে ন্যূনতম ক্রেডিট অর্জন করতে হবে।

বাধ্যতামূলক ন্যূনতম ৩৩ ক্রেডিট অর্জনের নিয়ম বাতিলের দাবি পূরণ না হওয়া পর্যন্ত আন্দোলন চালিয়ে যাওয়ার ঘোষণা দিয়েছে শিক্ষার্থীরা।

এর আগে গত ২২ জানুয়ারি শিক্ষার্থীরা এই ক্রেডিট নিয়ম বাতিলের দাবিতে বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য বরাবর স্মারকলিপি দেয়।  এতে শিক্ষার্থীরা তিন দফা দাবি উত্থাপন করে। দাবিগুলো হলো-  পরবর্তী সিদ্ধান্তে আসা পর্যন্ত ইতিমধ্যে নোটিশকৃত সকল ব্যাকলগ পরীক্ষা স্থগিত করতে হবে, ৩৩ ক্রেডিট সিস্টেম বাতিল করতে হবে এবং শিক্ষার্থীদের স্বাধীনভাবে মত প্রকাশের স্বাধীনতা থাকতে হবে।

এ বিষয়ে রুয়েটের উপাচার্য অধ্যাপক রফিকুল আলম বেগ জাগো নিউজকে বলেন, অ্যাকাডেমিক কাউন্সিলের সিদ্ধান্তক্রমে পরবর্তী বর্ষে উত্তীর্ণ হওয়ার জন্য শিক্ষার্র্থীদের ন্যূনতম ৩৩ ক্রেডিট প্রাপ্তি বাধ্যতামূলক করা হয়েছে। কেউ দুই সেমিস্টারে ন্যূনতম ক্রেডিট অর্জন করতে ব্যার্থ হলে ব্যাকলগ পরীক্ষার মাধ্যমে এই ক্রেডিট অজর্ন করতে পারে। সেখানেও সে ন্যূনতম  ক্রেডিট পূরণ করতে ব্যার্থ হলে তাকে আগের বর্ষেই থাকতে হবে।

তাদের এ দাবি অযৌক্তিক উল্লেখ উপাচার্য বলেন, শিক্ষার্থীরা চায় তারা ফেল করেও পরবর্তী বর্ষে উত্তীর্ণ হতে। কিন্তু তা তো হওয়ার কথা না।

উপাচার্য শিক্ষার্থীদের বিরুদ্ধে অভিযোগ করে বলেন, তারা অযথা ক্লাস-পরীক্ষায় অংশ নেবে না। আর পরবর্তী বর্ষে ওঠার জন্য আন্দোলন করবে তা তো হতে পারে না।।

 

সংবাদটি সম্পর্কে আপনার বস্তুনিষ্ট মতামত প্রকাশ করুন

টি মন্তব্য

সংবাদটি শেয়ার করুন

Developed by: