সোমবার, ১৮ জুন ২০১৮ খ্রীষ্টাব্দ | ৪ আষাঢ় ১৪২৫ বঙ্গাব্দ
সর্বশেষ সংবাদ
ছাত্রীর সঙ্গে শিক্ষকের কুকীর্তি ফাঁস!  » «   মায়ের পছন্দ ব্রাজিল, সমর্থক জয়ও  » «   পুলিশ কমিশনার‘ঈদগাহে ছাতা ও জায়নামাজ ছাড়া অন্য কিছু নয়’  » «   ‘আমিও প্রেগনেন্ট হয়েছি, অনেকবার অ্যাবরশনও করিয়েছি’  » «   গুগল পেজ ইরর দেখায় কেন?  » «   রাষ্ট্রপতি, প্রধানমন্ত্রী, সিইসি কে কোথায় ঈদ করছেন  » «   ইসি সচিব : তিন সিটি নির্বাচনের তফসিল ঘোষণা  » «   বিপজ্জনক রূপ নিয়েছে মনু ও ধলাই  » «   বিশ্বকাপের একদিন আগে বরখাস্ত স্পেন কোচ!  » «   ঢাকা-চট্রগ্রাম মহাসড়কে ৭ কি.মি. যানজট  » «   শারীরিক সম্পর্ক নিয়ে আলিয়ার সোজা কথা!  » «   যে কারণে ইউনাইটেড হাসপাতালে যেতে চান খালেদা  » «   খালেদা চিকিৎসা চান নাকি রাজনীতি করছেন : সেতুমন্ত্রী  » «   যানজটের কথা শুনিনি, কেউ অভিযোগও করেননি  » «   ডিএমপি কমিশনার আছাদুজ্জামান ‘বকশিসের নামে নীরব চাঁদাবাজি নেই’  » «  

রাম রহিমের ডেরার ছিল গোপন হাসপাতাল



নিউজ ডেস্ক::আগেই রকস্টার ‘বাবা’ গুরমিত রাম রহিমের ডেরায় অত্যাধুনিক হাসপাতালের খোঁজ মিলেছিল। প্রত্যাশিত ভাবে যে হাসপাতালের প্রধান রাম রহিম নিজেই। এ বার সেই হাসপাতালে দেদার গর্ভপাতের প্রমাণ মিলল। পাঞ্জাব পুলিশ এ বিষয়ে বেশ কিছু তথ্য প্রমাণ পেয়েছে। এমন খবর প্রকাশ করেছে ভারতীয় গণমাধ্যম আনন্দবাজার।

সূত্রের খবর, গর্ভপাত করানোর কাজে বিন্দুমাত্র সরকারি অনুমতির তোয়াক্কা করা হত না। তদন্তকারীদের দাবি, যে সব নারীর গর্ভপাত করানো হয়েছে, তাদের পর্যাপ্ত নথি মেলেনি হাসপাতাল থেকে।

মঙ্গলবার হরিয়ানার জনসংযোগ দফতরের ডেপুটি ডিরেক্টর সতীশ মেহেরা ডিএনএকে জানান, ডেরার হাসপাতালে বেআইনি গর্ভপাতের বিষয়টি নিয়ে আলাদা করে তদন্তের নির্দেশ দেয়া হয়েছে। পুলিশের পাশাপাশি হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে ফরেন্সিক কর্তাদের। প্রাথমিক তদন্তে পাওয়া নমুনাগুলি ফরেন্সিক পরীক্ষার জন্য পাঠানো হয়েছে বলে জানিয়েছেন অবসরপ্রাপ্ত জেলা ও দায়রা বিচারক এ কে এস পওয়ার। তাকে এই মামলায় কমিশনার হিসেবে নিযুক্ত করেছে পঞ্জাব ও হরিয়ানা হাইকোর্ট।

পাঞ্জাব ও হরিয়ানা হাইকোর্টের নির্দেশে ৭০০ একরের ডেরা চত্বরে সম্প্রতি তল্লাশি চালায় রাজ্য পুলিশ এবং সরকারি নানা বিভাগের ১০টি দল। গত রোববারই শেষ হয়েছে তিন দিনের সেই তল্লাশি অভিযান।

তাতেই জানা যায়, সাত তারা হোটেল, ‘স্কাইবার’-সহ রিসর্ট, অভিজাত রেস্তোরাঁ, সুইমিং পুল, অত্যাধুনিক হাসপাতাল, আন্তর্জাতিক মানের স্কুল, হোস্টেল, সিনেমা হল, শপিং মল, ফুড কোর্ট, জিম, স্পা, নিজস্ব কৃষিজমি, বাজার সবই রয়েছে বাবার ডেরায়। এমনকী, বিস্ফোরক তৈরির কারখানা, সুড়ঙ্গের হদিশ মেলে সেখান থেকে।

সংবাদটি সম্পর্কে আপনার বস্তুনিষ্ট মতামত প্রকাশ করুন

টি মন্তব্য

সংবাদটি শেয়ার করুন

Developed by: