বৃহস্পতিবার, ২২ অগাস্ট ২০১৯ খ্রীষ্টাব্দ | ৭ ভাদ্র ১৪২৬ বঙ্গাব্দ
সর্বশেষ সংবাদ
তিন সিটিতে বিএনপির মেয়র প্রার্থী যারা  » «   ইতিহাসের পুনরাবৃত্তি: চিদম্বরমের সময় অমিত, অমিতের সময় চিদম্বরম গ্রেপ্তার  » «   অক্টোবর থেকে মোবাইল অ্যাপে মিলবে বিমানের টিকিট  » «   আগামীকাল জুমার নামাজের পর গণবিক্ষোভের ডাক কাশ্মীরিদের  » «   হবিগঞ্জে ডাক্তার পরিচয় দিয়ে নবজাতক চুরি, নারী আটক  » «   কলকাতায় সড়ক দুর্ঘটনায় ২ বাংলাদেশির মৃত্যু, চাঞ্চল্যকর তথ্য প্রকাশ  » «   ভীতি কাটাতে চা বিস্কুট খেতে খেতে ভাইভা দেবেন বিসিএস পরীক্ষার্থীরা  » «   তৃতীয় ড্রিমলাইনার ‘গাঙচিল’ উদ্বোধন করলেন প্রধানমন্ত্রী  » «   রাস্তার পাশে চা বানাচ্ছেন মমতা! ভিডিও ভাইরাল  » «   ঋণের টাকায় ভারত থেকে অস্ত্র কিনবে বাংলাদেশ  » «   কানাইঘাটে মৃত্যুর পাঁচ মাস পর কবর থেকে লাশ উত্তোলন  » «   কাশ্মীরে ফের যুদ্ধবিরতি লঙ্ঘন, গুলি চালিয়েছে পাকিস্তান  » «   রোহিঙ্গা প্রত্যাবাসন শুরু হতে পারে আজ  » «   পুলিশের ছেলে বিশ্বের এক নম্বর ডন  » «   জাহালম কাণ্ড: ১১ তদন্ত কর্মকর্তাদের বিরুদ্ধে দুদকের মামলা  » «  

রাজনীতিতে দম্পতিস্ত্রী যুব মহিলা লীগ, স্বামী আওয়ামী লীগে



নিউজ ডেস্ক::প্রায় এক বছর ধরে সুখের সাগরে ভাসছেন আওয়ামী লীগ নেতা দেলোয়ার হোসেন। গত বছরের অক্টোবরে দলের জাতীয় সম্মেলনের পর তিনি পেয়েছেন বন ও পরিবেশ বিষয়ক সম্পাদকের পদ। বিয়ে করেছেন প্রায় মাস তিনেক আগে।

তার স্ত্রী শারমিন সুলতানা লিলি পেয়েছেন দলের সহযোগী সংগঠন যুব মহিলা লীগের গুরুত্বপূর্ণ দায়িত্ব। যুব মহিলা লীগের সদ্য ঘোষিত কমিটিতে লিলিকে সাংগঠনিক সম্পাদকের দায়িত্ব দেয়া হয়েছে। লিলি-দেলোয়ারে মিল আরেক জায়গায়।

ছাত্রলীগ থেকেই দুজনের রাজনৈতিক ক্যারিয়ার শুরু হয়। চলতি বছরের ২২ এপ্রিল তারা বিবাহ বন্ধনে আবদ্ধ হন। চারদলীয় জোট সরকারের আমলে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় ছাত্রলীগের সভাপতি ছিলেন দেলোয়ার। পরে আসেন মূল দলে। লিলিরও রাজনৈতিক জীবন শুরু ছাত্রলীগ দিয়ে।

চারদলীয় জোট সরকারের আমলে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের যে কমিটির সভাপতি ছিলেন দেলোয়ার, সেই কমিটিতে ছিলেন তিনিও। তখন রোকেয়া হল শাখার সভাপতির দায়িত্ব পালন করেন। পরে ছাত্রলীগের বদিউজ্জামান সোহাগ ও সিদ্দিকী নাজমুল আলমের কমিটির যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক ছিলেন তিনি।

ছাত্রজীবন শেষে ছাত্রলীগ ছেড়ে যুবলীগে যোগ দেন লিলি। ছাত্র সংগঠনের মতই যুব সংগঠনেও দক্ষতার পরিচয় দেন তিনি। দায়িত্ব পান সহ সম্পাদকের। এরপর সংগঠনটির নতুন সম্মেলনে তাকে সাংগঠনিক সম্পাদকের দায়িত্ব দেয়া হয়।

জানা গেছে, শারমিন সুলতানা লিলি বিএনপি জোট সরকার বিরোধী আন্দোলনে রাজপথে সক্রিয় ছিলেন। এছাড়াও একএগারো সরকার বিরোধী আন্দোলনেও সক্রিয় ভূমিকা পালন করেন। আওয়ামী লীগ সভাপতি শেখ হাসিনা মুক্তির আন্দোলেন তিনি সামনের সারিতে ছিলেন। ২০১৫ সালে ছাত্রলীগের সম্মেলনের পর তিনি দায়িত্ব ছাড়েন।

এ বিষয়ে জানতে চাইলে শারমিন সুলতানা লিলি বলেন, আমি রাজনৈতিক কর্মী। আন্দোলন সংগ্রামে রাজপথে ছিলাম। একজন রাজনৈতিক কর্মীকে জননেত্রী শেখ হাসিনা মূল্যায়ন করেছেন। এজন্য আমি তার প্রতি কৃতজ্ঞ।’

দেলোয়ার হোসেন বলেন, আমরা দুইজনই রাজনৈতিক কর্মী। মাঠে ময়দানে দলের জন্য কাজ করেছি। এখানে পারিবারিক বিবেচনায় নয়, রাজনৈতিক বিবেচনায় দুইজনকে দলীয় পদ দেয়া হয়েছে।

রাজনীতিতে দম্পতি শুধু তারাই নন। আওয়ামী লীগেই আছে অসীম কুমার উকিল ও যুব মহিলী লীগের সাধারণ সম্পাদক অপু উকিল। বিএনপিতেও আছেন মির্জা আব্বাস ও আফরোজা আব্বাস জুটি। আছেন খায়রুল কবির খোকন ও শিরিন সুলতানা। আরও আছেন হারুনুর রশিদ ও সৈয়দা আসিফা আশরাফী পাপিয়া।

সংবাদটি সম্পর্কে আপনার বস্তুনিষ্ট মতামত প্রকাশ করুন

টি মন্তব্য

সংবাদটি শেয়ার করুন

Developed by: