বুধবার, ১৭ জানুয়ারী ২০১৮ খ্রীষ্টাব্দ | ৪ মাঘ ১৪২৪ বঙ্গাব্দ
সর্বশেষ সংবাদ
পাবনায় সিভিল সার্জন কার্যালয়ে কমিউনিটি ক্লিনিক-এ কমর্রত কমিউনিটি হেল্থ কেয়ার প্রোভাইডারদের অবস্থান কর্মসূচী পালন  » «   আল-আকসা সংস্কারে ইসরাইলের নিষেধাজ্ঞা!  » «   ঢাবি অধিভুক্ত ৭ কলেজের মানববন্ধন ১৮ জানুয়ারি  » «   এক সপ্তাহেও সন্ধান মেলেনি নিখোঁজ পরীক্ষার্থী বাপ্পীর  » «   উজানের দেশ সমূহ হতে বাংলাদেশে মোট ৫৭ টি নদী প্রবাহিত  » «   নরসিংদীতে অটোরিকশা চালকের লাশ উদ্ধার  » «   এ দেশে কোনো দস্যুতা চলবে না : স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী  » «   স্কুল ছাত্রকে পিটিয়ে হাসপাতালে পাঠালো শিক্ষক  » «   হবিগঞ্জের স্কুল পরিদর্শনে কোরিয়ার প্রতিনিধি দল  » «   সড়কে পড়ে গিয়ে যা বললেন আইভী!  » «   বেসরকারি হাসপাতালে চলছে নৈরাজ্য!  » «   নীলফামারীতে নকল সার উদ্ধার, ২০ হাজার টাকা জরিমানা  » «   সিলেটে বোলারদের দাপট  » «   ৩ লাখ ৫৯ হাজার ২৬১ সরকারি পদ শূন্য  » «   ডাকসু নির্বাচন নিয়ে হাইকোর্টের রায় বুধবার  » «  

রমজানের কাজা রোজা যেভাবে আদায় করবেন



islambg_595152296ইসলাম ডেস্ক::অনেকেই শারিরীক অসুস্থতাসহ নানাবিধ শরয়ী কারণে রমজানের রোজা রাখতে পারেননি। এখন সময় সুযোগ ও সামর্থ্য হয়েছে ওই রোজাগুলোর কাজা আদায় করার। ফলে অনেকই জানতে চাচ্ছেন, তারা রমজানের কাজা রোজাগুলো কীভাবে আদায় করবেন।

রমজানের কাজা রোজা আদায়ের বিষয়ে সব ইমাম একমত যে, কোনো ব্যক্তি যে কয়দিনের রোজা রাখতে পারেনি সে কয়দিনের রোজা কাজা আদায় করবে। এভাবে রোজা কাজা আদায়ের বিষয়ে পবিত্র কোরআনে কারিমে ইরশাদ হয়েছে, ‘আর তোমাদের মধ্যে যে ব্যক্তি অসুস্থ থাকবে অথবা সফরে থাকবে সে অন্য দিনগুলোতে এ সংখ্যা পূর্ণ করবে।’ -সূরা আল বাকারা: ১৮৫

ইসলামি শরিয়তের বিধান হলো, কাজা রোজা আদায়ের ক্ষেত্রে লাগাতারভাবে রোজা রাখা ফরজ নয়। ইচ্ছা করলে লাগাতারভাবে রোজা রাখা যায়; আবার ইচ্ছা করলে আলাদা আলাদাভাবেও রোজা রাখা যা।

আসলে রোজা পালনকারীর সামর্থ্য ও সাধ্যানুযায়ী বিষয়টি নির্ধারিত হবে। ইচ্ছে হলে প্রতি সপ্তাহে একদিন অথবা প্রতি মাসে একদিন রোজা রাখতে পারেন। উল্লেখিত পবিত্র কোরআনের আয়াতে কাজা রোজা পালনের ক্ষেত্রে লাগাতারভাবে রোজা রাখার কোনো শর্ত করা হয়নি। বরং শুধু যে কয়দিন রোজা ভঙ্গ করা হয়েছে সে সম সংখ্যক দিন রোজা রাখা ফরজ করা হয়েছে। -আল মাজমু: ৬/১৬৭ ও আল মুগনি: ৪/৪০৮

যদি লাগাতারভাবে কেউ রোজা রাখে সেটা উত্তম। তবে রোজার কাফফারার ক্ষেত্রে ধারাবাহিকভাবে ৬০ দিন রোজা রাখতে হবে। এখানে মাঝে রোজার বিরতি দিলে পুনরায় নতুন করে দিন গণনা শুরু করতে হবে এবং ৬০টি রোজা পূর্ণ করতে হবে।

সংবাদটি সম্পর্কে আপনার বস্তুনিষ্ট মতামত প্রকাশ করুন

টি মন্তব্য

সংবাদটি শেয়ার করুন

Developed by: