শুক্রবার, ২৪ মে ২০১৯ খ্রীষ্টাব্দ | ১০ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৬ বঙ্গাব্দ
সর্বশেষ সংবাদ
পাবলিক পরীক্ষার সব ফি দেবে সরকার  » «   বাচ্চারা সরিয়ে নিয়ে যাচ্ছে ইভিএম, দাবি লালুপুত্রের  » «   আগামীকাল প্রাথমিকের প্রথম ধাপের শিক্ষক নিয়োগ পরীক্ষা  » «   পরাজিত হওয়া মানেই হার নয়: মমতা  » «   কুলাউড়ায় ওজন বাড়াতে চিংড়িতে বিষাক্ত জেলি!  » «   শতবর্ষী বৃদ্ধাকে ধর্ষণ: ‘আমাকে ছেড়ে দাও, আমি রোজা রাখছি’  » «   কিছুটা সময় লাগলেও ইসরাইল-আমেরিকার পতন অনিবার্য: ধর্মীয় নেতা  » «   মেয়াদোত্তীর্ণ সেমাই ও অপরিচ্ছন্ন পরিবেশে খাবার তৈরি: সিলেটে ওয়েল ফুডকে ৭০ হাজার টাকা জরিমানা  » «   একক দল হিসেবেই ম্যাজিক ফিগারে মোদির বিজেপি!  » «   পারিবারিক কলহে সৎ মাকে কুপিয়ে জখম করেছে ছেলে  » «   রাজস্ব কর্মকর্তা হিসেবে ১০ হাজার শিক্ষার্থীকে নিয়োগ দেয়া হবে: অর্থমন্ত্রী  » «   পবিত্র কোরআন কেটে ভেতরে ইয়াবা পাচার, ৩ রোহিঙ্গা আটক  » «   গ্যাস সিলিন্ডার বিস্ফোরণে একই পরিবারের চার জন নিহত  » «   খালেদার কারামুক্তি, এবারও ‘হ্যান্ডল’ করতে পারেনি বিএনপি!  » «   বালিশ মাসুদের খোলা চিঠি  » «  

যেভাবে কাটাবেন শিশুর স্মার্টফোন আসক্তি



লাইফ স্টাইল ডেস্ক:: সোশ্যাল সাইট,নানা রকম অ্যাপস আর গেইমে এখন স্মার্টফোন ভরে গেছে।আর এই কারণে বাচ্চাদের স্মার্টফোন থেকে দূরে রাখা যায় না।তারাও সমানভাবেই স্মার্টফোন নিয়ে ব্যস্ত থাকতে ভালোবাসে। বর্তমানে টিভির পরিবর্তে ইউটিউবেই কার্টুন দেখে নেয় তারা।

চিকিৎসকদের মতে,এই প্রবণতা থেকে একাধিক রোগ সৃষ্টি হতে পারে শিশু শরীরে।খেলাধুলার না করে স্মার্টফোন ব্যবহারের ফলে হঠাৎ করে মোটা হয়ে যায় বাচ্চারা।

এছাড়া চোখ শুষ্ক হয়ে যাওয়া, মাথা ব্যথা, দৃষ্টিশক্তি কমে যাওয়ার মতো সমস্যাও দেখা দিচ্ছে তাদের।এই সমস্যাগুলো থেকে মুক্তি দিতে তাই স্মার্টফোন থেকে শিশুদের দূরে রাখারই পরামর্শ দিচ্ছেন চিকিৎসকরা।

শিশুদের বই,খেলাধুলা নিয়ে ব্যস্ত রাখতে হবে তাদের।শিশুকে সারাদিনে এক-দুই ঘণ্টার বেশি স্মার্টফোন ব্যবহার করতে না দেয়াই ভাল।২০ মিনিট স্মার্টফোন ব্যবহারের পর শিশুদের ২০ সেকেন্ড চোখের পাতা খোলা ও বন্ধ করারও পরামর্শ দিচ্ছেন বিশেষজ্ঞরা।

ছোট থেকেই অনেক সময় স্মার্টফোন ব্যবহারের কারণে অন্ধত্বের মতো সমস্যাও দেখা দিতে পারে বলে বলছেন চিকিৎসকরা।তবে জোর করে নয়, শিশুকে বুঝিয়ে স্মার্টফোন ব্যবহার থেকে বিরত রাখুন। স্মার্টফোন ব্যবহার ভাল খারাপ দিক গুলো ভাল করে বুঝিয়ে বলুন তাকে।

শিশুকে একা রাখা যাবে না। সময় পেলে বিকালে তাকে নিয়ে খেলতে বের হতে হবে। এছাড়া ঘুমের উপর সবচেয়ে প্রভাব ফেলে স্মার্টফোন। তাই শোয়ার ঘরে ফোন না নিয়ে বরং ঘুমাতে যাওয়ার আগে বাচ্চার সঙ্গে গল্প করুন।

রূপকথার কাহিনি বা তার স্কুলে বন্ধুবান্ধবদের নিয়ে আলোচনা করুন। তাহলে দেখবেন আস্তে আস্তে সে স্মার্টফোনের কথা ভুলে যাবে।

সংবাদটি সম্পর্কে আপনার বস্তুনিষ্ট মতামত প্রকাশ করুন

টি মন্তব্য

সংবাদটি শেয়ার করুন

Developed by: