মঙ্গলবার, ১৯ ফেব্রুয়ারী ২০১৯ খ্রীষ্টাব্দ | ৭ ফাল্গুন ১৪২৫ বঙ্গাব্দ
সর্বশেষ সংবাদ
উপজেলা নির্বাচনের তৃতীয় ধাপ থেকে ইভিএম: ইসি সচিব  » «   হজ পালনে নিষেধাজ্ঞা প্রত্যাহারের দাবি হিজড়াদের  » «   সব বাধা উপেক্ষা করে গণশুনানি করবে জাতীয় ঐক্যফ্রন্ট  » «   অভিজিৎ হত্যা: অব্যাহতি পাচ্ছেন সাতজন, আসামি ছয়  » «   অনুমোদিত ৩টি ব্যাংক সম্পর্কে তেমন কিছু জানেন না অর্থমন্ত্রী  » «   ডাস্টবিনে নেমে ১৫০০ শিক্ষার্থীকে বাঁচানোর আহ্বান  » «   একাদশ সংসদের এমপিদের বৈধতা নিয়ে রিট খারিজ  » «   শামীমাকে যা বুঝিয়ে সিরিয়ায় নিয়ে গিয়েছিল আইএস  » «   নিজেই গাড়ি চালিয়ে যুবরাজকে বাসভবনে নিয়ে গেলেন ইমরান খান  » «   আরব আমিরাত ও বাংলাদেশর মধ্যে ৪টি সমঝোতা স্মারক সই  » «   সংঘর্ষ চলছে, পুলওয়ামা হামলার মূল হোতা নিহত  » «   এক দিন বাড়ল দ্বিতীয় পর্বের ইজতেমা, আখেরি মোনাজাত মঙ্গলবার  » «   শুধুমাত্র আইন দিয়ে দুর্নীতি দমন করা যায় না: আইনমন্ত্রী  » «   জামায়াতের সবারই রাজ্জাকের মতো ভুল ভাঙা উচিত: ফরীদ উদ্দীন মাসঊদ  » «   সন্ত্রাসী হামলার নিন্দা জা‌নি‌য়ে মোদিকে শেখ হাসিনার বার্তা  » «  

মৌসুমী হামিদের প্রথম প্রেম



4বিনোদন ডেস্ক: আমি তখন খুলনা আজম খান কমার্স কলেজে পড়ি। ছেলেটির সঙ্গে একই ব্যাচে কোচিংয়ে পড়তাম। ছেলেটির নাম না বলি। টানা চার বছর আমাদের প্রেম ছিল।
কোচিংয়ে পড়ার সময় প্রথম প্রথম আমাদের দুজনের মধ্যে চরম শত্রুতা ছিল। কথা বলা তো দূরের কথা, সামনা সামনি পড়ে গেলে দুজনই উল্টো দিকে হাঁটা দিতাম। এভাবে চলতে চলতে তিন বছরের মাথায় শত্রুতা থেকে দুজনের বন্ধুত্ব হয়ে গেল। আমরা একে অপরকে ‘তুই’ সম্বোধন করতাম। আমরা দুজনই নিজেদের ব্যক্তিগত সব বিষয়ই একে অপরের সঙ্গে শেয়ার করতাম। কীভাবে জানি, একসময় প্রেম হয়ে গেল।
মফস্বল শহর। সব সময় আমরা একসঙ্গে ঘুরতে পারতাম না। দু-তিন মাস পরপর আমরা একসঙ্গে বের হতাম। রিকশায় চুপি চুপি সারা শহর ঘুরে বেড়াতাম। ঠিক চার বছরের মাথায় আমাদের প্রেম ভেঙে যায়। কিন্তু বন্ধুত্ব নষ্ট হয়নি। ছেলেটি এখন এমবিএ পড়ছে। এখনো খুলনায় গেলে দেখা হয়, আড্ডা হয়।

সংবাদটি সম্পর্কে আপনার বস্তুনিষ্ট মতামত প্রকাশ করুন

টি মন্তব্য

সংবাদটি শেয়ার করুন

Developed by: