বুধবার, ১৬ জানুয়ারী ২০১৯ খ্রীষ্টাব্দ | ৩ মাঘ ১৪২৫ বঙ্গাব্দ
সর্বশেষ সংবাদ
পদ্মা নদীর ওপারেই বঙ্গবন্ধু আন্তর্জাতিক বিমানবন্দর হবে  » «   স্যাটেলাইটে ধরা পড়ল সুন্দরবনের ৪০ একর বন উধাও!  » «   রহস্য খোলাসা করলেন সৌদি থেকে পালিয়ে আসা সেই তরুণী  » «   সংরক্ষিত আসনে মনোনয়ন ফরম কিনলেন তৃতীয় লিঙ্গের ৮ জন  » «   শাস্তির বদলে পদোন্নতি! লেক দূষণ রোধের ৫০ কোটি টাকা নয়ছয়  » «   ব্রিটিশ পার্লামেন্টে ব্রেক্সিট চুক্তি প্রত্যাখ্যান  » «   প্রধানমন্ত্রীর সই জাল করে টাকা আত্মসাৎ!  » «   আন্তর্জাতিক ক্বিরাত সম্মেলন শুরু ৮ ফেব্রুয়ারি  » «   এমপিদের শপথ গ্রহণের বৈধতা চ্যালেঞ্জ করে রিটের শুনানি বুধবার  » «   গায়েবি মামলা বলতে কিছু নেই : স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী  » «   মেধাবীরা আত্মহত্যা করে আর মেধাহীনরা জাতির ভবিষ্যৎ নির্ধারণ করে  » «   ৫০ আসনের ৪৭টিতে অনিয়ম: টিআইবি  » «   টিলাগড় ইকোপার্ক: বাঘ-সিংহ নিয়ে কেবলই আশ্বাস!  » «   কোটা সংস্কার আন্দোলনের চার মামলায় প্রতিবেদন ১৪ ফেব্রুয়ারি  » «   প্রশ্নফাঁস ও কোচিং বাণিজ্য বন্ধসহ ৫ নির্দেশনা দিলেন শিক্ষামন্ত্রী  » «  

মৌলভীবাজারে চিরকুট লিখে যুবতীর আত্মহত্যা



নিউজ ডেস্ক:: মৌলভীবাজার সদর উপজেলার নাজিরাবাদ ইউনিয়নের আগনসী গ্রামে তানিয়া আক্তার রেলেনা(২০) নামে এক যুবতী গলায় ওড়না দিয়ে ফাঁস লাগিয়ে আত্মহত্যা করেছে। নিহত যুবতীর পাশে একটি চিরকুট পায় তার পরিবারের লোকজন। মৃত যুবতী আগনসী গ্রামের মৃত আহাদ মিয়ার মেয়ে। গত ১৩ নভেম্বর মঙ্গলবার সকালে নিজ ঘরের তীরের সাথে ওড়না পেঁছানো ঝুলন্ত অবস্থায় দেখতে পায় তানিয়াকে স্থানীয়রা। তাকে তারা মৌলভীবাজার ২৫০ শয্যা হাসপাতালে নিয়ে আসেন, হাসপাতালের কর্তব্যরত ডাক্তার তাকে মৃত বলে ঘোষনা দেন।

সদর থানার পুলিশ খবর পেয়ে লাশ উদ্ধার করে সদর হাসপাতাল মর্গে পাঠিয়েছেন। মৃত তানিয়ার পরিবারের লোকজন পুলিশের কাছে একটি চিরকুট দেয়। তাহাদের কথা, এই চিরকুট মৃত তানিয়ার হাতের লিখা। তাতে লিখা ছিল- “বাভুল আমার জীবন নষ্ট করে দিছে আর কেউ নেই মোবাইলে রেকট আছে দেক” মৌলভীবাজার মডেল থানার ওসি সুহেল আহমদ জানান মৃতের সাথে সুইসাইড লিষ্ট উদ্ধার করা হয়েছে। এই চিরকুট মৃত তানিয়ার হাতের লিখা কি না তা খতিয়ে দেখা হবে। এ ঘটনায় আত্মহত্যার প্ররোচনার দায়ে নিয়মিত মামলা দায়ের হবে।

যুবতী তানিয়ার এ মৃত্যু আমাদের, অনেক কিছুর দিকেই ইশারা দেয়। প্রথমতঃ আমাদের পুরনো ধ্যান ধারনার সমাজের বিষয়ে এ চিরকুট এক বলিষ্ট প্রতিবাদ। কোন খোঁজ খবর না নিয়েই সম্পূর্ণ অনুমান থেকে বলা যায় যে, অল্প শিক্ষিত তানিয়া কোন এক বাভুলের সাথে সখ্যতায় জড়িয়ে পড়ে। যা, তানিয়ার এ বয়সে খুবই স্বাভাবিক একটি বিষয়। কিন্তু এই জড়িয়ে পড়াকে আমাদের অন্ধ বধির ধর্মান্ধ সমাজ ব্যবস্থা কোন ভাবেই মেনে নেয় না।

দ্বিতীয়তঃ হয়তো বাভুল তানিয়ার সাথে মিথ্যে ভালবাসার খেলা খেলেছে। শেষমেষ তানিয়াকে ধোকা দিয়েছে। ফলে এক পর্যায়ে তানিয়া সমাজের ভয়ে আত্মহত্যার এ পথ নিতে বাধ্য হয়েছে।এটি সম্পূর্নটাই আমাদের অনুমান।আজ যদি আমাদের সমাজ তানিয়া-বাভুলের এ সম্পর্ককে সহজভাবে নিত এবং সংঘটিত কোন অনৈতিকার সুবিচারের দায়ীত্ব সরকার নিত, তা’হলে কি তানিয়া মৃত্যুর পথ বেচে নিতো? নিশ্চয়ই না।

আমরা আশা করবো দ্বায়ীত্বপ্রাপ্ত ও সংশ্লিষ্ট মানুষজন এ অপ্রিয় অবাঞ্চিত মৃত্যু ঘটনার জট খুলতে সক্ষম হবেন এবং কি কারণে তানিয়া মৃত্যুকে বেচে নিলো মূল সে ঘটনা জনসমক্ষে নিয়ে আসবেন।

সংবাদটি সম্পর্কে আপনার বস্তুনিষ্ট মতামত প্রকাশ করুন

টি মন্তব্য

সংবাদটি শেয়ার করুন

Developed by: