শনিবার, ২২ জুলাই ২০১৭ খ্রীষ্টাব্দ | ৭ শ্রাবণ ১৪২৪ বঙ্গাব্দ
সর্বশেষ সংবাদ
স্বামীর জন্য নৌকায় ভোট চাইলেন শাবানা  » «   সৌদিতে ৬ মাসের উপার্জন ৪৩১ রিয়াল, তা নিয়েও নাটক!  » «   সমুদ্র বন্দরগুলোতে ৩ নম্বর সতর্ক সংকেত  » «   অভিনেতা আবদুর রাতিন আর নেই  » «   বরফের নিচে মিলল ৭৫ বছর ধরে নিখোঁজ দম্পতির মৃতদেহ  » «   নারীরা কি করব জিয়ারত করতে পারবে?  » «   চট্টগ্রামে র‌্যাবের সঙ্গে ‘বন্দুকযুদ্ধে’ নিহত ১  » «   মিথ্যা নারী নির্যাতন মামলায় পালিয়ে বেড়াচ্ছে মানবাধিকার কর্মী  » «   ধূমপান ছাড়তে ইব্রাহিমের কান্ড!  » «   ‘নির্বাচনের আগে সব দলকে এক রাস্তায় আনতে হবে’  » «   যে ১২টি তথ্য ফেসবুকে রাখলে বিপদ ঘটবে  » «   সৌদি পাঠানোর প্রলোভন দেখিয়ে তরুণীকে ধর্ষণ  » «   কুমিল্লা মেডিকেলের অব্যবস্থাপনা নিয়ে হাইকোর্টে রিট  » «   বিএনপির মনোনয়ন প্রত্যাশী খাজা নাজিবুল্লাহ্ চৌধুরীর গণসংযোগ  » «   বিচার না পেলে আত্মহত্যা করবে ধর্ষিতা কিশোরী  » «  

মেয়র মান্নানের দায়িত্ব পালনে বাধা নেই: আপিল বিভাগ



নিউজ ডেস্ক::গাজীপুর সিটি করপোরেশনের মেয়র এম এ মান্নানের বরখাস্তের আদেশ ৩ মাসের জন্য স্থগিত করে হাইকোর্টের দেওয়া আদেশ বহাল রেখেছেন আপিল বিভাগ। এই আদেশের ফলে মেয়র মান্নানের দায়িত্ব পালনে কোনো বাধা নেই বলে জানিয়েছেন আইনজীবীরা।

রবিবার (১৬ জুলাই)সকালে প্রধান বিচারপতি সুরেন্দ্র কুমার সিনহার নেতৃত্বাধীন তিন বিচারপতির আপিল বেঞ্চ এ আদেশ দেন। আদালতে মেয়র মান্নানের পক্ষে শুনানি করেন ব্যারিস্টার মাহবুব উদ্দীন খোকন। রাষ্ট্রপক্ষে ছিলেন অ্যাটর্নি জেনারেল মাহবুবে আলম।এর আগে গত ৯ জুলাই মেয়র মান্নানের বরখাস্তের আদেশ ৩ মাসের জন্য স্থগিত করেন হাইকোর্ট।এর আগে সাময়িক বরখাস্তের আদেশের বৈধতা চ্যালেঞ্জ করে হাইকোর্টে রিট করেন গাজীপুর সিটি করপোরেশনের মেয়র এম এ মান্নান।

দুর্নীতি দমন কমিশনের এক মামলায় তার বিরুদ্ধে অভিযোগপত্র আদালতে গ্রহণের পর ৬ জুলাই স্থানীয় সরকার বিভাগের এক প্রজ্ঞাপনে এম এ মান্নানকে মেয়র পদ থেকে সাময়িক বরখাস্ত করা হয়। ২০১৩ সালে প্রথমবারের মতো নির্বোচনে গাজীপুর সিটি মেয়র নির্বাচিত হন বিএনপির এই নেতা।

পরবর্তীতে নাশকতার এক মামলায় আদালতে অভিযোগপত্র গ্রহণের পর ২০১৫ সালের ১৯ আগস্ট অধ্যাপক মান্নানকে প্রথম বরখাস্ত করেছিল স্থানীয় সরকার বিভাগ। এর বিরুদ্ধে আইনি লড়াইয়ের ২৮ মাস পর মেয়র পদ ফিরে পান এম এ মান্নান কিন্তু এরপরপরই আরো একটি মামলার অভিযোগপত্র গ্রহণ করা হলে ২০১৬ সালের ১৮ এপ্রিল দ্বিতীয়বারের মতো তাকে সাময়িক বরখাস্ত করা হয়।

ওই আদেশের বিরুদ্ধেও আইনি লড়াই করেন মান্নান। গত ১৮ জুন পুনরায় পদ ফিরে পান তিনি। কিন্তু এর কয়েকদিনের মধ্যে দুর্নীতির মামলায় অভিযোগপত্র গ্রহণের পর ফের তাকে বরখাস্ত করে স্থানীয় সরকার মন্ত্রণালয়। মেয়র নির্বাচিত হওয়ার পর বিভিন্ন মামলায় বিএনপির এ নেতাকে বেশিরভাগ সময় কারাগারেই কাটাতে হয়েছে।

সংবাদটি সম্পর্কে আপনার বস্তুনিষ্ট মতামত প্রকাশ করুন

টি মন্তব্য

সংবাদটি শেয়ার করুন

Developed by: