মঙ্গলবার, ২০ ফেব্রুয়ারী ২০১৮ খ্রীষ্টাব্দ | ৮ ফাল্গুন ১৪২৪ বঙ্গাব্দ
সর্বশেষ সংবাদ
রাতে দেশ ছাড়ছেন মাহমুদউল্লাহ-মুস্তাফিজ  » «   পারিবারিক অশান্তির মূলে পরকীয়া  » «   ‘এই সুমি সেই সুমি’  » «   সুপ্রিম কোর্টের দারস্থ প্রিয়া প্রকাশ  » «   খালেদার শহীদ মিনারে শ্রদ্ধার বিষয়ে যা বললেন আ’লীগ নেতারা  » «   পাবনায় সরকারি এডওয়ার্ড কলেজে বই পড়া ও আবৃত্তি প্রতিযোগিতা অনুষ্ঠিত  » «   পাবনা জেলা বিড়ি শিল্প মালিক সমিতির কমিটি গঠন শাহাদত সভাপতি রাসেল সম্পাদক  » «   কানাডায় বাংলাদেশি তরুণীর কৃতিত্ব  » «   মাথা না ধুলে ফরজ গোসল হবে?  » «   হোটেলে রুম ফাঁকা নেই, ফিরিয়ে দেয়া হলো মোদিকে  » «   ‘বর্তমান অবস্থায় খালেদা জিয়া নির্বাচন করতে পারবেন না’  » «   হবিগঞ্জে বিএনপির বিক্ষোভ মিছিলে পুলিশের গুলি,আহত ৩০  » «   পোশাক নিয়ে আলোচনায় সোহানা সাবা  » «   ভাষা শহীদদের শ্রদ্ধা জানাতে প্রস্তুত শহীদ মিনার  » «   চুনারুঘাটে অগ্নিকান্ডে ২টি দোকান পুড়ে ছাই  » «  

মুরগি থেকে সাবধান!



লাইফস্টাইল ডেস্ক::মুরগীর শরীরে দেয়া হচ্ছে মারাত্মক অ্যান্টি-বায়োটিক। দেশে বেশিরভাগ মুরগিকেই কোলিস্টিন নামের এক ধরনের অ্যান্টিবায়োটিক ঔষধ দেওয়া হয়৷ মুরগির স্বাস্থ্যের উন্নতির জন্য বিশেষত এই অ্যান্টোবায়োটিক দেওয়া হয়ে থাকে। তবে সমীক্ষা অনুযায়ী, এই অ্যান্টিবায়োটিক মানুষের জন্য মোটেও ভাল নয়।

The Bureau of Investigative Journalism- এর সমীক্ষা অনুযায়ী, এই কোলিস্টিন অ্যান্টিবায়োটিক মুরগিকে দেওয়া হয় নানা রোগের প্রতিষেধক হিসেবে।এমন কি মুরগির ওজন বৃদ্ধি করার জন্যও এই ওষুধ দেওয়া হয়ে থাকে।

মানব শরীরের ক্ষেত্রে এমনিতে এই অ্যান্টোবায়োটিক একদম ই ভাল না। ডাক্তাররা অ্যান্টোবায়োটিককে বলে থাকেন লাস্ট হোপ ওষুধ৷ নিউমোনিয়াতে আক্রান্ত রোগীদের চিকিৎসাতেই ব্যবহার করা হয়ে থাকে এই ওষুধ৷ যখন রোগী মৃত্যুর সঙ্গে লড়েন, সেই সময়ই ডাক্তাররা এই ওষুধ প্রয়োগ করে থাকেন।

সমীক্ষা অনুযায়ী, এই হাইডোজের ওষুধ মুরগির দেহে প্রবেশ করানোর ফলাফল মানব দেহের পক্ষে খুব খারাপ। এর ফল হিসেবে মানব শরীরের কঠিন রোগ বাসা বাঁধতে পারে। যার ফলে গোটা বিশ্বে প্রায় ৭০০,০০ জন মানুষের মৃত্যু ডেকে আনতে পারে।

সংবাদটি সম্পর্কে আপনার বস্তুনিষ্ট মতামত প্রকাশ করুন

টি মন্তব্য

সংবাদটি শেয়ার করুন

Developed by: