শুক্রবার, ১৮ জানুয়ারী ২০১৯ খ্রীষ্টাব্দ | ৫ মাঘ ১৪২৫ বঙ্গাব্দ
সর্বশেষ সংবাদ
জিয়াউর রহমানের জন্মবার্ষিকী উপলক্ষে কর্মসূচি ঘোষণা  » «   সীমান্তের খালে মিয়ানমারের সেতু, বন্যার আশঙ্কা বাংলাদেশে  » «   দ্বিতীয় কৃত্রিম উপগ্রহ পাঠাবে বাংলাদেশ: শাবিতে পরিকল্পনামন্ত্রী  » «   আতিয়া মহল মামলা: ৫ দিনের রিমান্ডে ৩ আসামি  » «   শেখ হাসিনা হত্যাচেষ্টা মামলা: হাইকোর্টে আপিল শুনানি শুরু  » «   টিআইবির রিপোর্টে সরকার ও ইসির আঁতে ঘা লেগেছে: বিএনপি  » «   মাফিয়াদের স্বর্গরাজ্যে দশ বাংলাদেশির অনন্য সাহসিকতার নজির  » «   ১৪ দলের শরিকদের বিরোধী দলে থাকাই ভালো: ওবায়দুল কাদের  » «   সন্ত্রাস-মাদক-জঙ্গিবাদের মতো দুর্নীতির বিরুদ্ধেও ‘জিরো টলারেন্স’ : প্রধানমন্ত্রী  » «   সংসদ সদস্যদের শপথের বৈধতা নিয়ে রিট খারিজ  » «   কৃত্রিম কিডনি তৈরি করলেন বাঙালি বিজ্ঞানী  » «   ব্রেক্সিট ইস্যু: অনাস্থা ভোটে টিকে গেলেন তেরেসা মে  » «   টিআইবির প্রতিবেদন গ্রহণযোগ্য নয়, পুরোপুরি প্রত্যাখ্যান করি: সিইসি  » «   জনপ্রশাসন মন্ত্রণালয়ে অফিস করছেন শেখ হাসিনা  » «   সংসদ কার্যকর রাখতেই বিরোধী দলে জাপা : জিএম কাদের  » «  

মুজাহিদের ফাঁসির আদেশ আপিল বিভাগে বহাল



5470_0নিউজ ডেস্ক :: একাত্তরের মানবতাবিরোধী অপরাধের জামায়াতের সেক্রেটারি জেনারেল আলী আহসান মোহাম্মাদ মুজাহিদের আপিলের চূড়ান্ত রায়ে ফাঁসির আদেশ বহাল রেখেছেন সুপ্রিম কোর্টের আপিল বিভাগ।

মঙ্গলবার সকালে প্রধান বিচারপতি এসকে সিনহার নেতৃত্বে আপিল বিভাগের বেঞ্চ এ রায় ঘোষণা করেন। বেঞ্চের অন্য সদস্যরা হলেন বিচারপতি নাজমুন আরা সুলতানা, বিচারপতি সৈয়দ মাহমুদ হোসেন ও বিচারপতি হাসান ফয়েজ সিদ্দিকী।

গত ২৭ মে খালাস চেয়ে করা মুজাহিদের আপিল শুনানি শেষে রায়ের এ দিন ধার্য করেছিলেন উচ্চ আদালত।

মুজাহিদ হলেন চতুর্থ ব্যক্তি, যাঁর মামলায় আনা আপিল শুনানি শেষে রায় ঘোষণার পর্যায়ে পৌঁছাল। মুজাহিদের আপিল শুনানিতে গত ২৯ এপ্রিল থেকে ১৮ মে পর্যন্ত ছয় কার্যদিবসে ট্রাইব্যুনালের রায় ও মামলা-সংক্রান্ত নথিপত্র (পেপারবুক) পাঠ শেষ করে আসামিপক্ষ। এর পর গত ২৫, ২৬ ও ২৭ মে মোট তিন কার্যদিবস আসামি ও রাষ্ট্রপক্ষে মামলায় যুক্তিতর্ক পেশ করা হয়।

আসামিপক্ষে যুক্তিতর্ক উপস্থাপন করেন জ্যেষ্ঠ আইনজীবী খন্দকার মাহবুব হোসেন ও অ্যাডভোকেট এস এম শাহজাহান এবং অ্যাডভোকেট শিশির মনির। রাষ্ট্রপক্ষে অ্যাটর্নি জেনারেল মাহবুবে আলম যুক্তিতর্ক উপস্থাপন করেন। এ ছাড়া ২৫ পৃষ্ঠার লিখিত যুক্তিও আদালতে দাখিল করেন অ্যাটর্নি জেনারেল।

এর আগে বুদ্ধিজীবীহত্যাসহ মানবতাবিরোধী পাঁচটি অভিযোগ প্রমাণিত হওয়ায় ২০১৪ সালের ১৭ জুলাই ফাঁসির আদেশ দেন ট্রাইব্যুনাল-২। পরে এ আদেশ থেকে খালাস চেয়ে ২০১৪ সালের ১১ই আগস্ট উচ্চ আদালতে আপিল করেন জামায়াতের এই নেতা। এ আপিলের ওপর উভয়পক্ষের ৯ কার্যদিবসের শুনানি শেষে, ১৬ ই জুন রায়ের এ দিন ধার্য করেন প্রধান বিচারপতির আদালত।

২০১০ সালের ২৯ শে জুন জামায়াতের এই সেক্রেটারিকে গ্রেফতার করা হয়। বর্তমানে মৃত্যুদণ্ড প্রাপ্ত আসামিদের কনডেম সেলে রয়েছেন তিনি। মুজাহিদের আপিল নিষ্পত্তির মধ্য দিয়ে জামায়াতের চতুর্থ কোন শীর্ষ নেতার আপিল নিষ্পত্তি হতে যাচ্ছে।

সংবাদটি সম্পর্কে আপনার বস্তুনিষ্ট মতামত প্রকাশ করুন

টি মন্তব্য

সংবাদটি শেয়ার করুন

Developed by: