সোমবার, ২১ অক্টোবর ২০১৯ খ্রীষ্টাব্দ | ৬ কার্তিক ১৪২৬ বঙ্গাব্দ
সর্বশেষ সংবাদ
গাদ্দাফিকে হত্যায় ফ্রান্সের হাত থাকার ঘটনা ফাঁস!  » «   গণমাধ্যমের স্বাধীনতায় হস্তক্ষেপের বিরুদ্ধে অস্ট্রেলিয়া অভিনব প্রতিবাদ  » «   আইনজীবীর সহকারী হত্যা : ১২ জনের মৃত্যুদণ্ড  » «   শয়তানের সঙ্গে ঘনিষ্ঠ সম্পর্ক সৌদি যুবরাজের!  » «   মন্দিরের নিরাপত্তায় মাদ্রাসা ছাত্ররা  » «   ভোলার সংঘর্ষের ঘটনায় পুলিশের মামলা, আসামি ৫ হাজার  » «   সৌদিতে নিহত ১১ বাংলাদেশির মধ্যে ৯ জনের পরিচয় প্রকাশ  » «   টনক নড়াতে টনিক  » «   শিক্ষামন্ত্রীর যেসব যুক্তি খণ্ডন করতে পারেননি ননএমপিও শিক্ষক নেতারা  » «   প্রথমবার মহাকাশে হাঁটলেন যে দুই নারী  » «   যে কোনো মুহূর্তে গ্রেপ্তার হচ্ছেন যুবলীগের বহিস্কৃত চেয়ারম্যান  » «   ‘জনগণ ভোট দিতে পারেনি’ বক্তব্যের ব্যাখ্যা দিলেন মেনন  » «   ঐক্যফ্রন্টে মেনন?  » «   পরীক্ষা জালিয়াতি: এমপি বুবলীকে প্রধানমন্ত্রীর তলব  » «   মধুর ক্যান্টিনে ছাত্রদলের ওপর ছাত্রলীগের হামলা, আহত ৫  » «  

মুক্তিপণের টাকা না পেয়ে শিশুকে গলাটিপে হত্যা



মুক্তিপণের টাকা না পেয়ে শিশুকে গলাটিপে হত্যা

নারায়ণগঞ্জের রূপগঞ্জে মুক্তিপণের ৫০ হাজার টাকা না পেয়ে অপহরণকারীরা তাজুল ইসলাম (৭) নামে এক স্কুলছাত্রকে গলাটিপে হত্যা করেছে। এ ঘটনার সঙ্গে জড়িত সুজন নামে এক অপহরণকারীকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ।

মঙ্গলবার রাত সাড়ে ১১টার দিকে উপজেলার গোলাকান্দাইল এলাকার বিল থেকে ওই স্কুলছাত্রের ক্ষতবিক্ষত মরদেহ উদ্ধার করে পুলিশ।

নিহত তাজুল ইসলাম ময়মনসিংহ জেলার ইশ্বরগঞ্জ থানার বিরকাঠালিয়া এলাকার রাজমিস্ত্রী আব্দুল আউয়াল মিয়ার ছেলে। আব্দুল আউয়াল পরিবার নিয়ে উপজেলার ভুলতা টেলাপাড়া এলাকার মোশারফ মিয়ার বাড়িতে বসবাস করেন।

গ্রেফতার সুজন কিশোরগঞ্জ জেলার করিমগঞ্জ থানার মাতারপুর এলাকার আব্দুল হকের ছেলে। তিনি উপজেলার পুরান বাজার এলাকায় বসবাস করেন।

ভুলতা পুলিশ ফাঁড়ির উপ-পরিদর্শক (এসআই) ফাইজুর রহমান জানান, সুজন নিহত স্কুলছাত্র তাজুল ইসলামের বড় ভাই মাজহারুল ইসলামের সঙ্গে স্থানীয় একটি কাপড়ের ছাপা কারখানায় কাজ করতো। সেই সুবাদে সুজন প্রায় সময়ই মাজহারুল ইসলামের বাড়িতে আসা-যাওয়া করে পরিবারের সদস্যদের সঙ্গে সু-সম্পর্ক গড়ে তোলে। এছাড়া প্রায় সময়ই খেলা-ধুলার জন্য তাজুল ইসলামকে মোবাইল দিতো।

গত শুক্রবার সকাল সাড়ে ৯টার দিকে মোবাইল ফোনের প্রলোভন দেখিয়ে সুজনসহ একদল অপহরণকারী স্কুলছাত্র তাজুল ইসলামকে অপহরণ করে নিয়ে যায়। পরে তাজুল ইসলামের বাবার কাছে ৫০ হাজার টাকা মুক্তিপণ দাবি করে। মুক্তিপণের টাকা পরিশোধ না করা হলে তাজুল ইসলামকে হত্যা করা হবে বলে হুমকি প্রদান করা হয়।

গত রোববার রাতে দাবিকৃত মুক্তিপণের ৫ হাজার টাকাও পরিশোধ করা হয়। মুক্তিপণের বাকি ৪৫ হাজার টাকা না দেয়ায় তাজুল ইসলামকে হত্যা করা হয়।

এদিকে, অপহরণের বিষয়টি থানা পুলিশকে অবহিত করা হলে, জেলা গোয়েন্দা পুলিশসহ থানা পুলিশ গোপন সংবাদের ভিত্তিতে সুজনকে কিশোরগঞ্জের করিমগঞ্জ এলাকা থেকে গ্রেফতার করে। পরে সুজনের তথ্য অনুযায়ী উপজেলার গোলাকান্দাইল এলাকার বিল থেকে তাজুল ইসলামের মরদেহ উদ্ধার করে।

প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে গ্রেফতার সুজন অপহরণের পর গলাটিপে হত্যাকাণ্ডের ঘটনা ঘটিয়েছে বলে স্বীকার করেছেন।

 

সংবাদটি সম্পর্কে আপনার বস্তুনিষ্ট মতামত প্রকাশ করুন

টি মন্তব্য

সংবাদটি শেয়ার করুন

Developed by: