শুক্রবার, ১৭ জানুয়ারী ২০২০ খ্রীষ্টাব্দ | ৪ মাঘ ১৪২৬ বঙ্গাব্দ
সর্বশেষ সংবাদ
লন্ডনে দ্বিতীয় জনপ্রিয় ভাষা বাংলা  » «   ঘুষের টাকাসহ হাতেনাতে সাব-রেজিস্ট্রার আটক  » «   আর কোনো হায়েনার দল বাংলার বুকে চেপে বসতে পারবে না  » «   সিলেটে মুক্তিযুদ্ধের পাণ্ডুলিপি সংগ্রহ করলেন প্রবাসী কল্যাণমন্ত্রী  » «   ফের জাতীয় পার্টির ঢাকা জেলা শাখার সভাপতি সালমা ইসলাম এমপি  » «   বিয়ানীবাজারে ৯৯০ পিস ইয়াবাসহ পেশাদার মাদক ব্যবসায়ী আটক  » «   আয়কর দিবস উপলক্ষে সিলেটে বর্ণাঢ্য র‌্যালি  » «   এবার শ্রীমঙ্গলে ট্রেনের ইঞ্জিনে আগুন  » «   বেলজিয়ামে মসজিদে তালা দেওয়ায় বাংলাদেশিদের প্রতিবাদ  » «   পায়রা উড়িয়ে জাতীয় পার্টির ঢাকা জেলা শাখার সম্মেলন উদ্বোধন  » «   ভারতের অর্থনীতির দুরবস্থা, জিডিপি কমে সাড়ে ৪ শতাংশ  » «   পায়রা উড়িয়ে সম্মেলন উদ্বোধন করলেন শেখ হাসিনা  » «   লন্ডন ব্রিজে আবারও সন্ত্রাসী হামলা, নিহত ২  » «   চীন থেকে মা-বাবার জন্য পেঁয়াজ নিয়ে এলেন মেয়ে  » «   রক্তে ভাসছে ইরাক, নিহত ৮২  » «  

মালয়েশিয়ায় ৫ মাসে পাঁচ হাজার বাংলাদেশি আটক



প্রবাস ডেস্ক:: মালয়েশিয়ায় অবৈধ অভিবাসীদের বিরুদ্ধে চলমান চিরুনি অভিযানে প্রতিদিনই আটক হচ্ছেন বাংলাদেশিসহ বিভিন্ন দেশের অভিবাসী। চলতি বছরের জানুয়ারি থেকে গত ৩ জুন পর্যন্ত ২৮ হাজারের মতো অবৈধ অভিবাসীকে আটক করা হয়েছে। এর মধ্যে পাঁচ হাজারেরও অধিক বাংলাদেশি। তবে, আটকদের মধ্যে কতজন বাংলাদেশি বর্তমানে জেলে রয়েছেন তার সঠিক তথ্য জানা যায়নি।

মালয়েশিয়ার অভিবাসন বিভাগের প্রধান দাতুক খায়রুল দাজাইমি স্থানীয় সাংবাদিকদের এ তথ্য জানান। গত ২৭ মে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী নিজেই একটি অভিযানে অংশ নিয়ে অবৈধ অভিবাসীদের আটকের বিষয়ে প্রতিজ্ঞা ব্যক্ত করেন।

সম্প্রতি বাংলাদেশের প্রবাসী কল্যাণ প্রতিমন্ত্রী মালয়েশিয়া সফর করেন। তার ওই সফরে অবৈধ বাংলাদেশি প্রবাসীদের মধ্যে কিছুটা আশার আলোর সঞ্চার হয়। কিন্তু বাস্তবে দেখা যাচ্ছে উল্টোটা। অবৈধ শ্রমিকদের গ্রেফতারে শক্ত অবস্থানে রয়েছে দেশটির অভিবাসন বিভাগ।

এছাড়া আটকদের মধ্যে ইন্দোনেশিয়ার আট হাজার ছয়জন, মিয়ানমারের দুই হাজার ৩২৭ জন, ফিলিপাইনের দুই হাজার ২২ জন, থাইল্যান্ডের এক হাজার ২৭২ জন, ভারতের এক হাজার ২২৯ জন, ভিয়েতনামের ৭৯৪ জন এবং পাকিস্তানের ৭৭৫ জন রয়েছেন। বাকিরা বিভিন্ন দেশের নাগরিক।

উল্লেখ্য, মালয়েশিয়া সরকার অবৈধ বিদেশি কর্মীদের বৈধতার সুযোগ দিলেও প্রতারণার শিকার হয়ে অনেকেই বৈধতা পাননি। ইতোমধ্যে দেশটির মানবসম্পদমন্ত্রী বলেছেন, নতুন শ্রমিক নয় বরং বিগত দিনে যারা এ দেশে ছিলেন তারা আগের কোম্পানিতে আসতে পারবেন যদি মালিকপক্ষ সম্মতি দেন।

এদিকে নতুন শ্রমবাজার খোলার আগে অবৈধদের বৈধতার সুযোগ এবং আটক বাংলাদেশিদের জেল-জরিমানা ছাড়াই দেশে ফিরিয়ে নিতে সংশ্লিষ্টদের সুদৃষ্টি কামনা করছেন প্রবাসীরা।

সংবাদটি সম্পর্কে আপনার বস্তুনিষ্ট মতামত প্রকাশ করুন

টি মন্তব্য

সংবাদটি শেয়ার করুন

Developed by: