শুক্রবার, ১৮ জানুয়ারী ২০১৯ খ্রীষ্টাব্দ | ৫ মাঘ ১৪২৫ বঙ্গাব্দ
সর্বশেষ সংবাদ
জিয়াউর রহমানের জন্মবার্ষিকী উপলক্ষে কর্মসূচি ঘোষণা  » «   সীমান্তের খালে মিয়ানমারের সেতু, বন্যার আশঙ্কা বাংলাদেশে  » «   দ্বিতীয় কৃত্রিম উপগ্রহ পাঠাবে বাংলাদেশ: শাবিতে পরিকল্পনামন্ত্রী  » «   আতিয়া মহল মামলা: ৫ দিনের রিমান্ডে ৩ আসামি  » «   শেখ হাসিনা হত্যাচেষ্টা মামলা: হাইকোর্টে আপিল শুনানি শুরু  » «   টিআইবির রিপোর্টে সরকার ও ইসির আঁতে ঘা লেগেছে: বিএনপি  » «   মাফিয়াদের স্বর্গরাজ্যে দশ বাংলাদেশির অনন্য সাহসিকতার নজির  » «   ১৪ দলের শরিকদের বিরোধী দলে থাকাই ভালো: ওবায়দুল কাদের  » «   সন্ত্রাস-মাদক-জঙ্গিবাদের মতো দুর্নীতির বিরুদ্ধেও ‘জিরো টলারেন্স’ : প্রধানমন্ত্রী  » «   সংসদ সদস্যদের শপথের বৈধতা নিয়ে রিট খারিজ  » «   কৃত্রিম কিডনি তৈরি করলেন বাঙালি বিজ্ঞানী  » «   ব্রেক্সিট ইস্যু: অনাস্থা ভোটে টিকে গেলেন তেরেসা মে  » «   টিআইবির প্রতিবেদন গ্রহণযোগ্য নয়, পুরোপুরি প্রত্যাখ্যান করি: সিইসি  » «   জনপ্রশাসন মন্ত্রণালয়ে অফিস করছেন শেখ হাসিনা  » «   সংসদ কার্যকর রাখতেই বিরোধী দলে জাপা : জিএম কাদের  » «  

মালয়েশিয়ার নিখোঁজ বিমানের অনুসন্ধান স্থগিত, স্বজনদের ক্ষোভ



রহস্যজনকভাবে হারিয়ে যাওয়া মালয়েশিয়া এয়ারলাইন্সের এমএইচ৩৭০ বিমানের ধ্বংসাবশেষের খোঁজে গভীর সমুদ্রে অনুসন্ধানের সমাপ্তি ঘোষণা করা হয়েছে। ২০১৪ সালে ২৩৯ জন আরোহী নিয়ে বেইজিং থেকে মালয়েশিয়া যাওয়ার পথে বিমানটি নিখোঁজ হয়।

অনুসন্ধান বন্ধের তীব্র প্রতিবাদ জানিয়েছে নিখোঁজ বিমানের আরোহীদের পরিবারবর্গ।

গভীর সমুদ্রে অনুসন্ধানে নিয়োজিত তিন দেশ মালয়েশিয়া, অস্ট্রেলিয়া ও চীনের যৌথ বিবৃতিতে মঙ্গলবার বলা হয়, সব ধরণের পদ্ধতি এবং সবচেয়ে আধুনিক বিজ্ঞানসম্মত পদ্ধতি ব্যবহার করে অনুসন্ধানে বিমানটির কোনো খোঁজ পাওয়া যায়নি। তিন বছর ধরে ভারতীয় মহাসগারের ১ লক্ষ ২০ হাজার বর্গ কিলোমিটার এলাকায় অভিযান চালিয়ে কোনো ইতিবাচক ফলাফল পাওয়া যায়নি। মঙ্গলবার সর্বশেষ অনুসন্ধান জাহাজ ফেরত গেছে। গত জুলাইয়ে অনুসন্ধানে নিয়োজিত তিন দেশ বলেছিল, নতুন কোনো প্রমাণ পাওয়া না গেলে অনুসন্ধান কর্ম স্থগিত করা হবে।
এমএইচ৩৭০ বিমানটির তিনটি নিশ্চিত ধ্বংসাবশেষ মরিশাস, ফ্রেঞ্চ আইল্যান্ড রিইউনিয়ন এবং তানজানিয়ার একটি দ্বীপের উপকূলে পাওয়া গেছে। এছাড়া আরো ৩০টি ধ্বংসাবশেষ মোজাম্বিক, তানজানিয়া ও দক্ষিণ আফ্রিকার সৈকতে পাওয়া গেছে। তবে বিশেষজ্ঞরা এটি যে ওই নিখোঁজ বিমানেরই সেই বিষয়ে নিশ্চিত নন।

অনুসন্ধান অভিযান স্থগিত ঘোষণা করায় নিখোঁজ আরোহীদের পরিবারবর্গের সংগঠন ভয়েস ৩৭০ এক বিবৃতিতে ক্ষোভ প্রকাশ করে বলা হয়, আমাদের মতে, বিশেষজ্ঞদের নির্দেশিত নতুন এলাকায় অনুসন্ধান অভিযান পরিচালনা বিমানে জনপরিবহনের নিরাপত্তা নিশ্চিতে একটি অপরিহার্য কর্তব্য।

২০১৪ সালের মার্চে নিখোঁজ হওয়া বোয়িং-৭৭৭ বিমানটিতে ১৪ জাতীয়তার ২২৭ জন যাত্রী ও ১২ জন ক্রু ছিলেন। বিমানে সবচেয়ে বেশি ১৫৩ জন ছিলেন চীনা নাগরিক। বিবিসি ও আলজাজিরা।

সংবাদটি সম্পর্কে আপনার বস্তুনিষ্ট মতামত প্রকাশ করুন

টি মন্তব্য

সংবাদটি শেয়ার করুন

Developed by: